বৃহস্পতিবার , ১৯ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » প্রধান খবর » সেনা মোতায়েন নিয়ে ইসির ধোয়াঁশা : বিএনপি

সেনা মোতায়েন নিয়ে ইসির ধোয়াঁশা : বিএনপি

bnp-1423822742‘অবাধ ও সুষ্ঠু’ সিটি নির্বাচনের স্বার্থে সেনাবাহিনী মোতায়েনের বিষয়ে বিএনপির দাবি নিয়ে নির্বাচন কমিশন কৌশলের আশ্রয় নিয়েছে বলে মনে করে দলটি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে দলটির মুখপাত্র আসাদুজ্জামন রিপন বলেন, ‘আমরা বিচারিক ক্ষমতা দিয়ে সেনাবাহিনীকে প্রতিটি কেন্দ্রে মোতায়েনের দাবি করেছিলাম। কিন্তু নির্বাচন কমিশন তাদের স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে ক্যান্টনমেন্টে রাখার কথা বলছে। এর মাধ্যমে মূলত বিএনপির দাবিকে পাশ কাটিয়ে যাওয়া হয়েছে। সরকারের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে এই নির্বাচন কমিশনের সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ সৃষ্টি করা অসম্ভব। তারপরও শেষ পর্যন্ত আমরা ভোটের মাঠে থাকবো।’

নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। নির্বাচন কমিশন এক চোখা নীতি নিয়ে চলছে অভিযোগ করে বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, ‘যেখানে ব্যবস্থা নেওয়া দরকার সেখানে না নিয়ে নির্বাচন কমিশন অন্য জায়গায় ব্যবস্থা নিচ্ছে। বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী ও খালেদা জিয়ার নিরাপত্তার জন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে তাগাদা না দিয়ে উল্টো মির্জা আব্বাস ও তাবিথ আউয়ালকে সতর্ক করা হচ্ছে।’

খালেদা জিয়া রাস্তায় বের হলে যেন জটলার সৃষ্টি না হয়, সেই বিষয়ে বিএনপি নেত্রীকে সর্তক থাকতে ইসির আহ্বানের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষন করে রিপন বলেন, ‘কাজী রবিকউদ্দিন (প্রধান নির্বাচন কমিশনার), আপনি যখন সচিব ছিলেন তখন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। আপনার জানার কথা, তিনি যথন রাস্তায় বের হবেন তখন নেতাকর্মীরা তাতে ঘিরে থাকবে সেটাই স্বাভাবিক।’

সিটি নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠিত হোক সরকার সেটা চায় কিনা- সে বিষয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘সরকার আশা করেছিলো বিএনপি সিটি নির্বাচনে আসবে না। কিন্তু নির্বাচনে অংশ নেওয়ায় তারা বিচলিত।’

তিনি অভিযোগ করেন, ‘ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী সাঈদ খোকন তার পক্ষে কাজ করার জন্য প্রায় ৭’শ পোলিং অফিসার নিয়ে ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড করেছে বৈঠক করে তাদের হাতে লিফলেট তুলে দিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘পোলিং অফিসাররা সরকারের চাপের মুখে তাদের সমর্থিত প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছেন। এই অবস্থায় নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়ার কোনো লক্ষন দেখা যাচ্ছে না। সিটি নির্বাচন নিয়ে সরকার কোনো ধরনের বাহানা করলে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচন দেওয়ার জন্য বিএনপির দাবিতে আরো জোরদার করবে।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘ঢাকা সিটিতে অনেক রাষ্ট্রদূতের অফিস রয়েছে। তারা এ নির্বাচন পর্যবেক্ষন করছে। সরকার যদি নির্বাচনে কারচুপি ও সন্ত্রাসী কর্মকা- করে তার দায় তাদেরই নিতে হবে।’

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ইনাম আহমেদ চৌধুরী, সহ-দপ্তর সম্পাদক শামীমুর রহমান শামীম, আসাদুল করিম শাহীন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print