রবিবার , ২২ জুলাই ২০১৮
মূলপাতা » অন্যান্য » খালেদার গাড়িবহরে হামলায় আ.লীগ নেতার মামলা!

খালেদার গাড়িবহরে হামলায় আ.লীগ নেতার মামলা!

khaedaরাজধানীর কারওয়ান বাজারে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার পথসভা ও গাড়িবহরে হামলার ঘটনায় দলটির অজ্ঞাত ১০০ জন নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করেছেন আওয়ামী লীগের স্থানীয় এক নেতা।

সোমবার দিবাগত রাত পৌনে ১২টার দিকে রাজধানীর তেজগাঁও থানায় মামলাটি করা হয়। মামলার বাদী ঢাকা মহানগরের ২৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি জহিরুল হক।

মামলা হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার বিপ্লব কুমার সরকার।

তেজগাঁও থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. রমজান আলী জানিয়েছেন, মামলার নম্বর ৩৯। মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে বেআইনিভাবে সংঘবদ্ধ হওয়া, হত্যার উদ্দেশ্যে আঘাত ও গুরুতর জখম করা এবং ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগ আনা হয়েছে।

সোমবার সন্ধ্যা ছয়টার দিকে রাজধানীর কারওয়ান বাজার এলাকায় সরকারি দলের কর্মী-সমর্থকেরা খালেদা জিয়ার পথসভা ও গাড়িবহরে হামলা চালান বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন। এ সময় খালেদা জিয়া মেয়র পদপ্রার্থী তাবিথ আউয়ালের পক্ষে প্রচার চালাচ্ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, জয় বাংলা স্লোগান দিয়ে সরকার-সমর্থকেরা খালেদা জিয়ার গাড়ি, পেছনে থাকা চেয়ারপারসনের অতিরিক্ত গাড়ি (স্পেয়ার কার) ও ব্যক্তিগত নিরাপত্তাকর্মীদের (সিএসএফ) তিনটি গাড়ি এলোপাতাড়ি ভাঙচুর করেন। এ ছাড়া সেখানে রাখা বেশ কয়েকটি গাড়িও ভাঙচুর করা হয়।

হামলায় খালেদার দুজন নিরাপত্তাকর্মী ফজলুল করিম ও ফারুক হোসেন, একান্ত সচিব আবদুস সাত্তার ও খালেদা জিয়ার একজন গাড়িচালক শাহজাদা শাহেদ এবং সাংবাদিকসহ অন্তত ১০ জন আহত হন। খালেদা জিয়ার গাড়ির সামনের অংশে রক্তের দাগ দেখা গেছে। তবে খালেদা জিয়া অক্ষত আছেন।

হামলার প্রতিবাদে আজ বিক্ষোভ কর্মসূচি এবং কাল বুধবার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহানগর বাদে সারা দেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডেকেছে বিএনপি। নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ এ কর্মসূচি ঘোষণা করে অভিযোগ করেন, খালেদার ওপর হামলা ‘সরকার পরিকল্পিত’।

স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ঘটনাটি যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। যদি কেউ এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়ে থাকে, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ঘটনার সত্যতা আছে কি না, খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তিনি বলেন, ‘আমাদের কানে এসেছে ঘটনাটি অন্য রকম। কারও ওপর হামলা করা হয়নি বরং অন্যদের ওপর বিএনপির লোকজন চড়াও হয়েছিল।’


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print