শুক্রবার , ২০ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » প্রধান খবর » নিরাপত্তার চাদরে রমনা বটমূল

নিরাপত্তার চাদরে রমনা বটমূল

রমনাবর্ষবরণ অনুষ্ঠান নির্বিঘ্নে নিরাপদে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। নতুন বাংলা বছর ১৪২২ সালকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত রমনার বটমূল। পুলিশ-র‌্যাবের গোয়েন্দাসহ বিভিন্ন সংস্থার সাদা পোশাকধারী গোয়েন্দারা ইতিমধ্যেই অনুষ্ঠানস্থল ও আশপাশের এলাকায় তত্পরতা শুরু করেছে।
রমনা বটমূল, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোকে আনা হয়েছে সিসি ক্যামেরার আওতায়। র্যাবের ডগস্কোয়াড আগেই একাধিকবার এসব স্থানে কাজ করেছে। রমনা বটমূলে এই প্রথম থাকছে পুলিশের টু হুইলার। যার মাধ্যমে পুলিশ অনুষ্ঠানস্থল টহল দিবে। নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে রাজধানীর আকাশে উড়বে র্যাবের হেলিকপ্টার।
সোমবার বিকেল ৫টার দিকে রমনা বটমূলে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রস্তুতি পরিদর্শন শেষে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সাংবাদিকদের বলেন, পহেলা বৈশাখ সর্ববৃহৎ উত্সব। ধর্মবর্ণ নির্বিশেষে সবাই এ উত্সব পালন করবে। দেশবাসী যাতে নির্বিঘ্নে ও নিরপদে পহেলা বৈশাখ উদযাপন করতে পারেন সে জন্য পুলিশ, র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সমন্বয়ে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। তবে বিকেল সাড়ে ৫টার মধ্যে বর্ষবরণে উম্মুক্তস্থানের অনুষ্ঠান শেষ করা আহবান জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী।
তিনি বলেন, বর্ষবরণ অনুষ্ঠান নিরাপত্তার জন্যে রমনা বটমূল, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও রবীন্দ্র সরোবরে নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে রমান বটমূলে তিনটি ওয়াচ টাওয়ার, পুলিশ কন্ট্রোল রুম,  বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট, ডগস্কোয়াড, সোয়াত টিম, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের সমন্বয়ে অনুষ্ঠানস্থলে প্রবেশ ও বাহির পথে আর্চওয়ে থাকবে। পুরো এলাকা সিসিটিভি ক্যামেরার মনিটরিংয়ের আওতায় আনা হয়েছে।
স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, কিছু দিন আগে আমরা মন্ত্রণালয়ে মিটিং করেছি। শুধু ঢাকায় নয় দেশের প্রতিটি জেলা শহরেও কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা কোন ঝুকির মধ্যে নেই। কোন জঙ্গি হামলার আশঙ্কা করছি না। দেশের মানুষ নাশকাতা ও জঙ্গী হামলা পছন্দ করে না। সুতরাং তারাই জঙ্গী প্রতিহত করবে।
র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক উইং কমান্ডার মুফতি মাহমুদ খান বলেন, র‌্যাবের পক্ষ থেকে সর্বাত্মক নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। ডগ স্কোয়াড, বোম ডিসপোজাল ইউনিট, গোয়েন্দা শাখা ইতিমধ্যেই কাজ শুরু করেছে। এছাড়া জঙ্গি তত্পরতা মনিটরিংসহ রাজধানীতে আজ সারাদিন হেলিকপ্টারযোগে নিরাপত্তা টহল দিবে র‌্যাব।

আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print