শুক্রবার , ২০ জুলাই ২০১৮
মূলপাতা » স্বাস্থ্য » স্তন ক্যান্সারে প্রতিবছর ২২ হাজারে মারা যায় ১৭ হাজার

স্তন ক্যান্সারে প্রতিবছর ২২ হাজারে মারা যায় ১৭ হাজার

প্রতিবছর বাংলাদেশে প্রায় ২২ হাজার মহিলা স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে ১৭ হাজার মারা যায় বলে জানিয়েছেন ‘বাংলাদেশ স্তন ক্যান্সার সচেতনতা ফোরাম’।

শুক্রবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে স্তন ক্যান্সারের সচেতনতা দিবস উপলক্ষ্যে ‘জেগে উঠুন জেনে নিন’ স্লোগানে মিট দ্যা প্রেস অনুষ্ঠানে সংগঠনটি এ তথ্য জানায়।

এ রোগের ব্যাপকতার অন্যতম কারণ হলো ডাক্তারের শরণাপন্ন হতে রোগীর সংকোচ ও লজ্জা। সচেতনতা ও নিয়মিত স্তন পরীক্ষার মাধ্যমে ব্রেস্ট ক্যান্সার নিরাময় করা যায় বলেও সংগঠনটি থেকে জানানো হয়।

জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. শামিউল ইসলাম বলেন, প্রাথমিক অবস্থায় যদি এ রোগ নির্ণয় করা যায় তাহলে এ রোগ সম্পূর্ণরুপে নিরাময় করা সম্ভব। ২০ বছর বয়সের পর থেকে প্রতি মাসে একবার করে স্তন পরীক্ষা করলে স্তন ক্যান্সার হওয়ার ভয় থাকে না।

কবি ও সংসদ সদস্য কাজী রোজী বলেছেন, আমি ক্যান্সারের ঝুঁকি নয় মানুষের ভয় নিয়ে বেঁচে আছি।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশে প্রতি আটজনের মধ্যে একজন নারী স্তন ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত হয়।

বাংলাদেশে মহিলা ক্যান্সার রোগীদের মধ্যে শতকরা ২৫ ভাগের বেশি স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত। বেশির ভাগ সময় এই ক্যান্সারটি ধরা পড়ে অনেক দেরিতে। এই ক্যান্সারের হাত থেকে নিস্তার পেতে চিকিৎসার পাশাপাশি জনসচেতনতাও বৃদ্ধি করতে হবে জানায় ‘বাংলাদেশ স্তন ক্যান্সার সচেতনতা ফোরাম’।

সংবাদ সম্মেলনে আরো বক্তব্য রাখেন জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. শামিউল ইসলাম সাদি, বাংলাদেশ ক্যানসার সোসাইটির মহাসচিব অধ্যাপক ডা. শেখ গোলাম মোস্তফা, হিষ্ট্রো প্যাথোলজিস্ট অধ্যাপক ডা. মো. গোলাম মোস্তফা বাংলাদেশ একাডেমি অফ প্যাথোলোজী সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর মালিহা হোসেন, বাংলাদেশ নারী সাংবাদিক কেন্দ্রের চেয়ারম্যান পারভিন সুলতানা ঝুমা, আইসিডিডিআরবি’র সায়েন্টিস্ট ডা. আশিক হায়দার চৌধুরী, মা ও শিশু হাসপাতালের নির্বাহী পরিচালক প্রফেসর শাহরিয়া তাসনিম, বাংলাদেশ শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের গাইনী অনকোলোজি বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর সাবেরা খাতুন, জাতীয় ক্যান্সার ইনস্টিটিউটের বিভাগীয় প্রধান ডা. হাবিবুল্লাহ তালুকদার রাসকিন প্রমুখ।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print