রবিবার , ২২ জুলাই ২০১৮
মূলপাতা » বেসরকারি » ওয়াসিকুর হত্যা জাতিসংঘ ও যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগ

ওয়াসিকুর হত্যা জাতিসংঘ ও যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগ

imagesসাংবাদিক ও বুদ্ধিজীবীদের (ইনটেলেকচুয়াল) ওপর হামলায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ, যুক্তরাষ্ট্র ও ফ্রান্স।

মঙ্গলবার ঢাকায় মার্কিন দূতাবাসের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে ওয়াসিকুর রহমানের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বলা হয়, তার হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্র গভীরভাবে শোকাহত। এ ধরনের বর্বর ঘটনার ক্ষেত্রে ছাড় দেয়ার কোনো সুযোগ নেই। এ ধরনের ঘটনা বিশ্বজনীন মানবাধিকার ও মত প্রকাশের স্বাধীনতার ওপর আঘাত। বাংলাদেশে ধর্মীয় অসহিষ্ণুতা ও সহিংসতার বিরুদ্ধে লড়াই করছে এমন মানুষের পাশে যুক্তরাষ্ট্র সব সময় রয়েছে।

এদিকে ঢাকাস্থ ফ্রান্স দূতাবাসের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বলা হয়, ব্লগার অভিজিৎ হত্যার এক মাসের মধ্যে এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে। কর্তৃপক্ষকে এ বিষয়ে তদন্ত করতে হবে। অনলাইনসহ মত প্রকাশের স্বাধীনতা রায় ফ্রান্সের অবস্থানের কথাও পুনর্ব্যক্ত করা হয়েছে বিজ্ঞপ্তিতে।

প্রায় এক মাসের কাছাকাছি সময়ে বাংলাদেশে সন্ত্রাসীদের হাতে খুন হলেন দুজন ব্লগার। এর আগে নিহত হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় এক মাসের কাছাকাছি সময়ে বাংলাদেশে সন্ত্রাসীদের হাতে খুন হলেন দুজন ব্লগার। এর আগে নিহত হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর হুমায়ূন আজাদ। এসব নিয়ে জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুনের মুখপাত্র ফারহান হকের কাছে সাংবাদিকরা নিয়মিত ব্রিফিংয়ের সময় প্রশ্ন তোলেন।

তার জবাবে ফারহান হক ওই উদ্বেগের কথা জানান।

তিনি বলেন, বিভিন্ন পর্যায়ের সাংবাদিক ও অন্য বুদ্ধিজীবীদের ওপর হামলা হচ্ছে। এটা ভয়াবহ এক উদ্বেগের বিষয়। এতে তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশে নাগরিকদের মত প্রকাশের অধিকারসহ তাদের মৌলিক অধিকারের প্রতি সম্মান দেখানোর আহ্বান জানিয়ে আসছে জাতিসংঘ। তার কাছে এক সাংবাদিক জানতে চান- এই পর্যায়ে জাতিসংঘের কোন শীর্ষ স্থানীয় কর্মকর্তা সংলাপের জন্য বাংলাদেশ সফরে যাবেন কিনা। জবাবে তিনি বলেন, এ পর্যায়ে কোন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা বাংলাদেশ সফরে যাবেন কিনা তা আমার জানা নেই। তবে আমাদের উদ্বেগের বিষয়ে আমরা সচেতন।

প্রশ্ন করা হয়, ওয়াসিকুর রহমান নামে আরও একজন ব্লগারকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ বিষয়ে জাতিসংঘের কি কোনো প্রতিক্রিয়া  আছে? এ সম্পর্কিত আরও একটি বিষয়, বাংলাদেশে সংলাপের জন্য জাতিসংঘের সহকারী মহাসচিব অস্কার ফার্নান্দেজ তারানকো অথবা জেফ্রে ফেল্টম্যান অথবা জাতিসংঘের কোনো কর্মকর্তার কোনো উদ্যোগ আছে কি না?

উত্তরে তিনি বলেন, এ পর্যায়ে উচ্চপর্যায়ের কোন কর্মকর্তার বাংলাদেশ সফরের বিষয়ে আমার কাছে কোন তথ্য নেই। তবে আমাদের উদ্বেগের বিষয়ে আপনি জানেন। অবশ্যই বাংলাদেশের নাগরিকদের মত প্রকাশের স্বাধীনতাসহ তাদের মৌলিক অধিকারের প্রতি সম্মান দেখানোর আহ্বান আমরা অব্যাহতভাবে জানিয়ে যাচ্ছি। বিভিন্ন পর্যায়ের সাংবাদিক ও বিভিন্ন পর্যায়ের বোদ্ধাদের ওপর হামলা হয়েছে এটা ভয়াবহ এক উদ্বেগের বিষয়।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print