রবিবার , ২২ জুলাই ২০১৮
মূলপাতা » প্রধান খবর » আইনের আশ্রয় নেবেন গোল্ড-আলিম দার!

আইনের আশ্রয় নেবেন গোল্ড-আলিম দার!

d12494f456e6c76ab09b56b41a724e37-2-umpires-imagettমেলবোর্নে ভারতের বিপক্ষে বিশ্বকাপ কোয়ার্টার ফাইনালে বিতর্কিত দুই সিদ্ধান্তে এই মুহূর্তে বাংলাদেশে সবচেয়ে অপ্রিয় দুটি নাম হচ্ছে ইয়ান গোল্ড ও আলিম দা’র। ম্যাচের দুই আম্পায়ার। পক্ষপাতিত্বের অভিযোগে অভিযুক্ত এই দুই আম্পায়ার প্রচণ্ড অপমানিত বোধ করছেন।

তাঁরা অপমাণিত আইসিসির সভাপতি আ হ ম মুস্তফা কামালের মন্তব্যে। খোদ আইসিসি সভাপতিই যে এই দুই আম্পায়ারের সততা নিয়ে ছুড়েছেন অভিযোগের তীর!

ব্যাপারটি মেনেই নিতে পারছেন না এই দুই আম্পায়ার। নিজেদের ‘সততা’ নিয়ে প্রশ্ন তোলায় তাঁরা নাকি এই মুহূর্তে মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন আইসিসি সভাপতির বিরুদ্ধেই। অস্ট্রেলীয় পত্রিকা সিডনি মর্নিং হেরাল্ডের এক প্রতিবেদনে শনিবার দেওয়া হয়েছে এমনই ইঙ্গিত। ইয়ান গোল্ড ও আলিম দা’র এ ব্যাপারে আইসিসির গুরুত্বপূর্ণ কর্তা-ব্যক্তিদের সঙ্গেও নাকি আলাপ-আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন।

মেলবোর্নের ম্যাচে বেশ কয়েকটি সিদ্ধান্ত বাংলাদেশের ইচ্ছাকৃতভাবেই বাংলাদেশের বিপক্ষে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ বাংলাদেশের। বিশেষ করে রুবেল হোসেনের করা ৪০ তম ওভারে রোহিত শর্মার ক্যাচ নো বলের অভিযোগে বাতিল করাকে নিয়েই সবচেয়ে বেশি ক্ষোভ বাংলাদেশের। টেলিভিশন রিপ্লেতে পরিষ্কারভাবেই দেখা গেছে আম্পায়ার ইয়ান গোল্ডের সিদ্ধান্তটি ছিল ভুল।

পাশাপাশি সুরেশ রায়নার বিপক্ষে এলবি না দেওয়া, শিখর ধাওয়ানের ক্যাচ-অনেক কিছু নিয়েই ক্ষোভ বিরাজ করছে বাংলাদেশ-শিবিরে। আইসিসি সভাপতি, বিসিবির সাবেক সভাপতি ও বাংলাদেশের পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল তো ম্যাচ শেষে সরাসরিই অভিযুক্ত করেছেন আম্পায়ারিংকে। তিনি বলেছেন, ‘দুই আম্পায়ারের খেলা পরিচালনা ছিল ভুলে ভরা ও অত্যন্ত নিম্নমানের। তাদের আম্পায়ারিং দেখে মনে হয়েছে কোনো নির্দিষ্ট অ্যাজেন্ডা বাস্তবায়নের উদ্দেশ্য নিয়েই তাঁরা মাঠে এসেছিলেন।’

মুস্তফা কামালের এই মন্তব্যের পিঠে অবশ্য আম্পায়ারদের পাশে দাঁড়িয়েছে খোদ আইসিসিই। গতকাল প্রকাশিত এক বিবৃতিতে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা তাঁদের সভাপতির এই মন্তব্যকে ‘দুঃখজনক’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছে।

এদিকে সিডনি মর্নিং হেরাল্ড জানিয়েছে, আইসিসি সভাপতির বক্তব্যকে আম্পায়ার দ্বয় ‘ব্যক্তিগত আক্রমণ’ হিসেবেই মনে করছেন। তাঁরা মনে করেন, মুস্তফা কামালের এসব মন্তব্যে তাঁদের ব্যক্তিগত সততা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে। খুব সম্ভবত আইসিসির সবুজ সংকেত পেলেই তাঁরা দু’জন মামলা-মোকদ্দমার দিকে এগোবেন।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print