সোমবার , ২৩ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » ক্রিকেট » বিদায় দুই গ্রেট! বিদায় জয়া-সাঙ্গা!!

বিদায় দুই গ্রেট! বিদায় জয়া-সাঙ্গা!!

Sanga mahelaবিদায় এতটা আকস্মিক হবে কে ভাবতে পেরেছিল! টানা চার সেঞ্চুরির পর কেই বা চাইবে এতবড় মাপের এক ব্যাটসম্যানকে এভাবে বিদায় জানাতে! সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে ম্যাচের মাঝপথে যে বৃষ্টির ফোটা ঝরেছিল, সেটা বুঝি দুই গ্রেট মাহেলা জয়াবর্ধনে আর কুমারা সাঙ্গাকারার বিদায়ের অশ্রু হয়েই এসেছিল! ম্যাচ শেষে সেই বৃষ্টির চেয়েও করুণ হয়ে উঠেছিল যেন জয়া-সাঙ্গার মুখ। রঙিন জার্সিতে যে আর দেখা যাবে না এই যুগলকে!

বিশ্বকাপ খেলতে আসার আগেই ঘোষণা দিয়েছিলেন দুই বন্ধু, অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড সফরই শেষ। এরপরই একযোগে ওয়ানডেকে বিদায় জানিয়ে দেবেন তারা দু’জন। তবে সে বিদায়টা হতে পারতো গ্রুপ পর্বে, কিংবা ২৯ মার্চ মেলবোর্নের ফাইনালেও। কিন্তু না, কোনাটাই হয়নি।

দুই গ্রেটের যুগ একসঙ্গে সমাপ্তি টেনে নিতে যেন সিডনিই বেছে নিয়েছিল তাদেরকে। দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে ৯ উইকেটের বিশাল পরাজয়ের পরই নিশ্চিত হয়ে গেলো বিশ্বকাপ থেকে শুধু শ্রীলংকারই বিদায় ঘটেনি, একসঙ্গে যবনিকাপাত ঘটে গেছে মাহেলা-সাঙ্গাকারার বর্ণাঢ্য দুটি ক্যারিয়ারেরও।

গত দেড় দশক ধরে লংকান ক্রিকেটের সেরা বিজ্ঞাপন হয়েছিলেন তারা দু’জন। এবারের বিশ্বকাপে সবচেয়ে অভিজ্ঞ দুই ক্রিকেটারও মাহেলা-সাঙ্গাকারা। বিশ্বকাপ খেলতে আসার আগে মাহেলা জয়াবর্ধনের নামের পাশে ছিল ৪৪১ ম্যাচ। আর সাঙ্গাকারার নামের পাশে ৩৯৭ ম্যাচ।

বিশ্বকাপেই ৪০০তম ম্যাচের মাইলফলক পেরিয়ে গিয়েছিলেন। বিদায়ের ম্যাচটি ছিল সাঙ্গাকারার ৪০৪ আর জয়াবর্ধনের ৪৪৮তম। এই যুগলবন্দীর মোট ম্যাচ সংখ্যা ৮৫২টি। অনেক বড় বড় দেলের খেলোয়াড়দের মোট খেলার পরিমান যোগ করলেও তো এই দু’জনের ধারে-কাছে আসতে পারার কথা নয়।

আর এই যুগলবন্দীর মোট রানসংখ্যা শুনলে অনেকেরই ফিলে চমকে যাবে। সাঙ্গাকারার রান ৪০৪ ওয়ানডেতে ৪১.৯৮ গড়ে রান তুলেছেন ১৪,২২৩। ২৫ সেঞ্চুরির পাশে রয়েছে ৯৩টি হাফ সেঞ্চুরি। পাশাপাশি উইকেটের পেছনে তার বিশ্বস্ত হাতে জমা পড়েছে ৪০২টি ক্যাচ। স্ট্যাম্পিং করেছেন ৯৯টি। জয়াবর্ধনে ৪৪৮ ম্যাচে ক্যারিয়ারে রান জমা করেছেন ১২৬৫০। দু’জনের এক সঙ্গে রান ২৬৮৭৩।

বিদায়বেলায় পুরো ক্রিকেট দুনিয়াকেই যেন রাঙিয়ে গেলেন সাঙ্গাকারা। টানা চারটি সেঞ্চুরির রেকর্ড আর কেই বা গড়তে পেরেছিল? ওয়ানডে ক্রিকেটে টানা তিনটি সেঞ্চুরির রেকর্ডই ছিল এতদিন। ৬জন ব্যাটসম্যান ছিলেন এই তালিকায়। সাঙ্গাকারা প্রথমে যোগ হয়েছিলেন ৭ম ব্যাটসম্যান হিসেবে। সর্বশেষ স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করে শ্রীলংকা ছাড়িয়ে গেলেন সব কিংবদন্তীকে। টানা চারটি সেঞ্চুরি বিশ্বকাপে কেন, ওয়ানডে ইতিহাসেই যে ছিল না।

জয়াবর্ধনে কম কিসে! আফগানিস্তানের বিপক্ষে ৫৪ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে যখন হারের শঙ্কায় পড়ে গিয়েছিল লংকানরা, তখন ত্রাতার ভুমিকায় আবির্ভুত হন তিনি। সেঞ্চুরি করে ম্যাচ বের করে আনেন জয়াবর্ধনে। ইংল্যান্ড-বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ব্যাট করারই সুযোগ মেলেনি।

তবে শেষটা মোটেও সুখকর হলো না দুই গ্রেটের জন্য। ব্যাট হাতে বিদায়ী ম্যাচে জয়াবর্ধনে করেছেন মাত্র ৪ রান। আর সাঙ্গাকারা করলেন সর্বোচ্চ ৪৫। ব্যাটে রান যাই আসুক, দলের পরাজয়ের সঙ্গে মিশে গেল মাহেলা-সাঙ্গার বিদায়ের বেদনাও।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print