শুক্রবার , ২০ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » ক্রিকেট » উইকেট হারিয়ে ব্যাকফুটে জিম্বাবুয়ে

উইকেট হারিয়ে ব্যাকফুটে জিম্বাবুয়ে

 

 জিম্বাবুয়ের ব্যাটিং অর্ডারে চিড় ধরিয়ে সিরিজ জয়ে পথে ধীর পদক্ষেপে এগিয়ে চলেছে টাইগাররা।  মধ্যহ্ন  বিরতির পর জিম্বাবুয়ে শিবিরে আবারো আঘাত হানেন সাকিব আল হাসান। নিজের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত করেন জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক ব্রেন্ডন টেলরকে।

জয়ের জন্য জিম্বাবুয়েকে এখনো করতে হবে ২৯৭ রান। আর বাংলাদেশকে তুলে নিতে হবে আরো ৭টি উইকেট।

আজ দিনের শুরুতে জিম্বুবায়েকে ৩১৪ রানের টার্গেট দেয় বাংলাদেশ। ৬৫ রানে এগিয়ে থেকে ব্যাটিং নেমে বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংসে ৯ উইকেটে ২৪৮ রান সংগ্রহ করে। তিন ম্যাচের সিরিজে সমতা আনতে ৬৮ ওভারে ৩১৪ রানের টার্গেট ছুঁতে হবে জিম্বাবুয়েকে। অন্যদিকে ২-০ ব্যবধানে সিরিজ জিততে বাংলাদেশকে জিম্বাবুয়েকে অলআউট করতে হবে।

টেস্টে দুই সেশনে তিন শতাধিক রান তুলে জয়ের রেকর্ড জিম্বাবুয়ের নেই। তবে চতুর্থ ইনিংসে জিম্বাবুয়ের সর্বোচ্চ রান ৩৩১। ২০১১ সালে বুলাওয়েতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে চতুর্থ ইনিংসে ৩৩১ রান করে জিম্বাবুয়ে। তাও আবার চতুর্থ দিনের শেষ সেশন ও পঞ্চম দিন ব্যাট করে তারা। অবশ্য ৩৬৬ রানের জবাবে ৩৪ রানে হেরে যায় স্বাগতিকেরা।

 

এ ছাড়া হারারেতে পাকিস্তানের বিপক্ষে ২০০২ সালে ৪৩০ রানের জবাবে ৩১০ রানের বেশি করতে পারেনি জিম্বাবুয়ে। বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ের মধ্যকার দ্বিতীয় টেস্টের পঞ্চম দিনের খেলা শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় শুরু হয়। দিনের প্রথম ঘন্টায় দুই উইকেট হারায় বাংলাদেশ। প্রথমে সাজঘরে ফিরেন মাহমুদুল্লাহ। পরে তাইজুল।

 

৬৩ রানে দিন শুরু করা মাহমুদুল্লাহ পঞ্চম দিন ৮ রান যোগ করে ৭১ রানে আউট হন। নাতসাই এমশ্যাংউইয়ের বলে মিড অনে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফিরেন। ১৫৮ বলে ৭ বাউন্ডারিতে ৭১ রানের ইনিংসটি সাজান মাহমুদুল্লাহ। এক ওভার পর আবার নাতসাই এমশ্যাংউইয়ের বলে মিউ উইকেটে ক্যাচ দেন তাইজুল ইসলাম (১)। লাফিয়ে ক্যাচটি লুফে নেন পেসার পানিয়াঙ্গারা।

 

ক্রিজে বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি পেসার শাহাদাত হোসেন (৩)। এমশ্যাংউইয়ের তৃতীয় শিকারে পরিণত হন তিনি। মিড অনে মাসাকাদজার তালুবন্দি হন লেট অর্ডার এই ব্যাটসম্যান। শাহাদাতের পর ক্যারিয়ারের প্রথম অর্ধশতক তুলে নেন শুভাগত হোম। এরপর আর ইনিংসটি বড় করতে পারেনি ময়মনসিংহের এই তারকা। এমশ্যাংউইয়ের বলে লং অনে মাসাকাদজার অসাধারণ ক্যাচে পরিণত হন ১০৩ বলে ৫০ রান করা শুভাগত। এরপরই ইনিংস ঘোষণা করেন মুশফিকুর রহিম। রুবেল হোসেন ৮ রানে অপরাজিত থাকেন।

 

এর আগে টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে ৪৩৩ রান করে। শতক হাঁকান সাকিব আল হাসান (১৩৭) ও তামিম ইকবাল (১০৯)।  জবাবে জিম্বাবুয়ে ৩৬৮ রানের বেশি করতে পারেনি। হ্যামিলটন মাসাকাদজা ১৫৮ ও চাকাবা ১০১ রান করেন। ব্যাটিংয়ের পর বল হাতে ৫ উইকেট নেন সাকিব।

 

৬৫ রানে এগিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে বাংলাদেশ চতুর্থ দিন শেষে ২০১ রান সংগ্রহ করে। তবে দ্বিতীয় ইনিংসে ১৪৫ রান তুলতেই ৫ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। তামিম ২০, শামসুর রহমান ২৩, মুমিনুল হক ৫৪, সাকিব আল হাসান ৬ ও মুশফিকুর রাহিম শূন্য রান করেন।

 

ঢাকা টেস্ট জিতে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে আছে বাংলাদেশ। এই টেস্ট জিতলে সিরিজ জিতে নেবে বাংলাদেশ।

 


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print