শুক্রবার , ২৭ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » ক্রিকেট » হেরেও শেষ আটে রিয়াল মাদ্রিদ

হেরেও শেষ আটে রিয়াল মাদ্রিদ

রিয়াল মাদ্রিদ প্রথম লেগে দুই গোলে এগিয়ে ছিল রিয়াল মাদ্রিদ। ওই ম্যাচে একটি গোল কম হলে অথবা কাল রাতে হান্টেলারের শটটি বারে না লেগে জালে জড়ালে কী হত? চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোতেই বিদায় ঘণ্টা বেজে যেত বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদের!

চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে বাদ না পড়লেও আরেকটি পরাজয়ের উপাখ্যান রচনা করেছে রিয়াল মাদ্রিদ। মঙ্গলবার রাতে টুর্নামেন্টের শেষ ষোলোর ফিরতি লেগে ঘরের মাঠে শালকের কাছে ৪-৩ গোলে হেরেছে কার্লো আনচেলোত্তির দল। তবে ভাগ্য ভাল যে, দুই লেগ মিলিয়ে ৫-৪ গোলে এগিয়ে থেকে টুর্নামেন্টের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছেন রোনালদো-বেলরা।

রিয়ালের মাঠ সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে পুরো ম্যাচই ছিল টানটান উত্তেজনায় ঠাসা। ম্যাচের প্রথমার্ধ যেন ছিল শালকের গোল করে এগিয়ে যাওয়া আর রিয়ালের তা শোধ করার প্রতিযোগিতা! ম্যাচের ২০ মিনিটে রিয়াল সমর্থকদের হতাশায় ডুবিয়ে শালকেকে এগিয়ে দেন ক্রিস্টিয়ান ফুকস। ডি বক্সে সতীর্থ ক্লাস হান্টেলারের ক্রস থেকে জোরালো শটে গোলটি করেন অস্ট্রিয়ার এই ডিফেন্ডার। তার শট রিয়াল গোলরক্ষক ইকার ক্যাসিয়াসের হাতে লেগে জালে জড়িয়ে যায়।

এগিয়ে যাওয়ার আনন্দ বেশিক্ষণ উপভোগ করতে পারেনি জার্মান ক্লাবটির খেলোয়াড়রা। পাঁচ মিনিট পরেই রিয়ালকে সমতায় ফেরান ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। টনি ক্রুসের কর্নার-কিক থেকে দারুণ এক হেডে বল জালে জড়ান এই পর্তুগিজ সুপারস্টার।

এরপর ৩৯ মিনিটেই ব্যবধান দ্বিগুণ হইতে পারতো শালকের। কিন্তু রিয়ালকে রক্ষা করে গোলবার। ডি বক্সের সামনে থেকে হান্টেলারের বুলেট গতির একটি শট গোলবারে লেগে ফিরে আসে। তবে পরের মিনিটেই বাঁ-পায়ের আরেকটি শটে দলকে ২-১ গোলে এগিয়ে দেন এই ডাচ স্ট্রাইকার।

এবারও পাঁচ মিনিট পরেই গোল শোধ করে রিয়াল। তাও আবার গোলটি করেন ওই রোনালদোই। স্বদেশি ডিফেন্ডার ফ্যাবিও কোয়েন্ত্রাওয়ের ক্রস থেকে হেডে গোলটি করেন সিআর-সেভেন। ফলে ২-২ গোলের সমতা নিয়েই বিরতিতে যায় রিয়াল।

বিরতির পর খেলা আরও নাটকীয়তায় রূপ নেয়। ৫২ মিনিটে রিয়ালকে ৩-২ গোলে এগিয়ে দেন করিম বেনজেমা। ডি বক্সের মধ্যে বল পায়ে আড়াআড়ি দৌড়ে গোলরক্ষকসহ তিন জনের বাধা এড়িয়ে গোলটি করেন এই ফরাসি স্ট্রাইকার।

মূল নাটকের মঞ্চায়ন যে তখনও বাকি ছিল তা কে জানতো! ৫৭ মিনিটে জার্মান মিডফিল্ডার লেরোয় সানের বাঁ-পায়ের দারুণ এক শটে ৩-৩ গোলের সমতায় ফেরে শালকে।

এরপর আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণের মধ্য দিয়ে ম্যাচটি শ্বাসরুদ্ধকর লড়াইয়ে রূপ নেয়। এরই মধ্যে ৮৪ মিনিটে গোটা বার্নাব্যুকে স্তব্ধ করে দিয়ে নিজের দ্বিতীয় গোলে স্কোরলাইন ৪-৩ করেন হান্টেলার।

বাকি সময়ে আরেকটি গোল করলেই অ্যাওয়ে গোল বেশি দেওয়ার সুবাদে রিয়ালকে বিদায় করে শেষ আটে উঠে যেত শালকে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়েও আর গোল করতে পারেনি জার্মান দলটি। ফলে ফিরতি লেগে হেরেও শেষ আটের টিকিট পায় রিয়াল।

 তথ্যসূত্র : টেন অ্যাকশন, গোল ডটকম, মেইল অনলাইন


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print