শুক্রবার , ২০ জুলাই ২০১৮
মূলপাতা » জাতীয় » ‘ছাত্র সংগঠনগুলো নতুন প্রজন্মকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে’

‘ছাত্র সংগঠনগুলো নতুন প্রজন্মকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে’

সাবেক নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) এম সাখাওয়াত হোসেন বলেছেন, প্রধান রাজনৈতিক দলের ছাত্র সংগঠনগুলো এখন নিজেদের মধ্যেই সন্ত্রাস করছে। দেশের ‘ইয়াং জেনারেশন’কে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে তারা।

শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাব ভিআইপি লাউঞ্জে বাংলাদেশ নিউ জেনারেশন পার্টি(বিএনজিপি)’র তৃতীয় বর্ষে পর্দাপণ উপলক্ষে এক গোলটেবিল বৈঠকে তিনি এসব কথা বলেন।

সাখাওয়াত হোসেন বলেন, “পরিবারতন্ত্র আর রাজনৈতিক নেতাদের গুনগান গাওয়ার মানসিকতা থেকে বেরিয়ে এসে তরুণদের সচেতনভাবে সংগঠিত হতে হবে। গণজাগরণ মঞ্চের মতো আলু আলু হওয়া চলবে না।”

‘বাংলাদেশের কোনো রাজনৈতিক দলেই গণতন্ত্র নেই, চলছে শুধু দলের প্রধানদের ব্যক্তিপূজা’ মন্তব্য করে সাখাওয়াত বলেন, “সামান্য সুবিধার লোভে আমরা সুর পাল্টিয়ে ফেলছি। জাতি হিসেবে সংগঠিত হতে পারিনি। যার কারণে দেশের আজ এই রাজনৈতিক বিপত্তি।”

তারুণ্যের উদ্যমের ওপর নির্ভর করছে দেশের রাজনৈতিক পরিবর্তন বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

‘তৃতীয় রাজনৈতিক শক্তিই এখন বাস্তবতা’ উল্লেখ করে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহামুদুর রহমান মান্না বলেন, “দেশের প্রধান দুই রাজনৈতিক দল গণতন্ত্র দেবে না। এই দুই দলের মধ্যে কূটনৈতিক ও গণতন্ত্রের চর্চা নেই। দল প্রধানদের যে আচরণ তাতে এরা নিজেরাই মারামারি করবে।”

তিনি বলেন, “হরতালকারীরা যেমন গাড়িঘোড়া চললেও বলে হরতাল সফল হয়েছে, তেমনি প্রধানমন্ত্রীও বিদেশ থেকে ঘুরে এসে বলছেন সফর সফল হয়েছে।”

জাতিসংঘের মহাসচিবের সঙ্গে ফটোসেশন করলেই নির্বাচন সঠিক হয়েছে বুঝাতে চাইলেই তা জনগণ মানবে না বলেন সাবেক এই আওয়ামী লীগ নেতা।

সাবেক এমপি কলামিস্ট গোলাম মাওলা রনি বলেন, “সুযোগ ছাড়া কোনো ঐতিহাসিক রাজনৈতিক পরিবর্তন আসে না। বাংলার জনগণ পরিবর্তনের জন্য প্রস্তুত, এখন শুধু সুযোগের অপেক্ষা।”

সভায় সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি জাহিদ ইকবালের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য দেন- সাবেক সংসদ সদস্য এস এম আকরাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক ড. সুকোমল বড়ুয়া, চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব শেখ আবুল কাশেম মিঠুণ প্রমুখ।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print