শুক্রবার , ২২ জুন ২০১৮
মূলপাতা » প্রধান খবর » ‘সবার সন্তান জন্মায় আনন্দ নিয়ে, আমাদের এলো দুঃখ নিয়ে’

‘সবার সন্তান জন্মায় আনন্দ নিয়ে, আমাদের এলো দুঃখ নিয়ে’

পাবনার আটঘরিয়া উপজেলায় পেটের সাথে যুক্ত যমজ শিশুর জন্ম হয়েছে। শিশু দুটির চিকিৎসা ব্যয়বহুল হওয়ায় দরিদ্র পরিবারটি চরম বিপাকে পড়েছে।

অর্থাভাবে উপযুক্ত চিকিৎসা নিতে না পেরে দুই নবজাতককে হাসপাতাল থেকে শেষ পর্যন্ত বাড়িতে নিয়ে এসেছে। গত মঙ্গলবার রাতে শিশু দুইটির জন্ম হয়েছে।

শিশু দুইটির পিতা আরিফুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার দুপুরে তার স্ত্রী ইভা খাতুনের প্রসব বেদনা শুরু হলে রাজশাহীর পদ্মা ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। ওই দিন রাতেই সিজারিয়ানের মাধ্যমে যুক্ত (পেটের সাথে) যমজ শিশুর জন্ম হয়। সেখানকার চিকিৎসকরা যমজ শিশুদের পেট কেটে আলাদা করা ও উন্নত চিকিৎসার জন্যে রাজশাহী মেডিকেল অথবা ঢাকায় নিতে বলেন। তারা জানান, এ ধরনের চিকিৎসা ব্যায়বহুল।

শিশু দুইটির দাদী রোজিনা খাতুন বলেন, ‘বাচ্চা দুইটির সবকিছুই স্বাভাবিক রয়েছে। খাওয়াদাওয়াসহ অন্যসব ঠিক আছে। অন্যান্য বাচ্চাদের মতোই কান্নাকাটি করছে। শুধু পেটের চামড়া একসঙ্গে লাগানো। সবার ঘরে সন্তান আসে আনন্দ নিয়ে, আর আমার ছেলের বাচ্চা হয়েছে দুঃখ নিয়ে।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য মাজেদা খাতুন বলেন, ‘ জোড়া লাগা যমজ শিশুর উন্নত চিকিৎসার জন্যে বিত্তবানদের এগিয়ে আসা উচিত। পরিবারটি একেবারেই দরিদ্র। যেটুকু টাকা পয়সা ছিল, রাজশাহী গিয়ে সব শেষ করে ফেলেছে। এখনই উন্নত চিকিৎসা করাতে না পারলে শিশু দুইটি মারা যাবে।

স্থানীয় মাজপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফারুক আহমেদ বলেন, ‘বিষয়টি আমি শুনেছি। প্রয়োজনীয় চিকিৎসার জন্যে আমার ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে বলে আর্থিক সাহায্য সহযোগিতার জন্যে চেষ্টা করছি।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print