শুক্রবার , ২০ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » প্রধান খবর » ১২৯ রানে জিতল পাকিস্তান

১২৯ রানে জিতল পাকিস্তান

pak3জয়ের জন্য ৩৪০ রানের লক্ষ্য নিয়ে ব্যাট করতে নেমে পাকিস্তানি পেসারদের তোপে পড়ে রীতিমতো ধুঁকছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। সোহেল খান, ওয়াহাব রিয়াজ আর শহিদ আফ্রিদিদের বোলিং তোপে শেষ পর্যন্ত ৮ উইকেটে ২১০ রান করেছে আরব আমিরাত। ফলে ১২৯ রানের বিশাল জয় নিয়ে বিশ্বকাপে ঘুরে দাঁড়িয়েছে পাকিস্তান।

তবে পাকিস্তানি বোলারদের সামনে বুক চিতিয়ে লড়েন সাাইমান আনোয়ার, খুররম খান, আমজাদ জাভেদ ও স্বপ্নিল পাতিলরা। আনোয়ার করেন সর্বোচ্চ ৬২, খুররম ৪৩, জাভেদ ৪০ ও পাতিল করেন ৩৬ রান।

পাকিস্তানের হয়ে আফ্রিদি, ওয়াহাব রিয়াজ ও সোহাইল খান দুটি করে উইকেট লাভ করেন। একটি করে উইকেট নেন রাহাত আলী ও শোয়েব মাকসুদ। অবশ্য রাহাত আলী আর সোহেল খানের বোলিং ঝড়ে মাত্র ২৫ রান তুলতেই ৩ উইকেট হারিয়ে ব্যাকফুটে চলে যায় প্রায় ১৯ বছর পর বিশ্বকাপ খেলতে আসা আমিরাত।

দলীয় সপ্তম ও ব্যক্তিগত প্রথম ওভারের সময় আরব আমিরাতকে প্রথম খাক্কাটা দেন পেসার রাহাত আলী। সপ্তম ওভারের চতুর্থ বলে দলীয় ১৯ রানের সময় ওপেনার আমজাদ আলীকে সরাসরি বোল্ড করেন তিনি। এরপর পরপর দুই ওভারে আমিরাতকে বড় খাক্কাটা দেন সোহাইল খান। একে একে ফেরান এন্ডি বেরেঙ্গার (২) ও কৃষ্ণ চন্দ্রনকে (০)। এরপর চতুর্থ উইকেট জুটিতে খুররম খানকে নিয়ে ৮৩ রানের জুটি গড়ে তোলেন সাইমান আনোয়ার। খুররম আউট হলে স্বপ্নিল পাতিলকে নিয়ে গড়েন ৩২ রানের জুটি।

শেষ দিকে (৭ম উইকেটে) ৬৮ রান করে আরবদের স্বপ্ন জাগিয়ে তুলেছিলেন আমজাদ জাভেদ আর স্বপ্নিল পাতিল। কিন্তু ওয়াহাব রিয়াজের জোড়া শিকারে পরিণত হয়ে এই দুই ব্যাটসম্যানই ফিরে যান সাজঘরে। সঙ্গে সঙ্গে ভেঙে পড়ে আরবদের প্রতিরোধ। শেষ পর্যন্ত তারা গিয়ে থামে ২১০ রানে।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে আহমেদ শেহজাদ (৯৩), হারিস সোহেল (৭০), মিসবাহ (৬৫) এবং শোয়েব মাকসুদের (৪৫) সমন্বিত প্রচেষ্টায় নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৬ উইকেটে ৩৩৯ রান করতে সমর্থ হয় ১৯৯২ সালের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। শেষদিকে ৭ বলে ২১ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন আফ্রিদি।

আমিরাতের হয়ে মানজুলা গুরুজি চারটি উইকেট লাভ করেন।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print