শুক্রবার , ২০ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » টেনিস » বিএনপি-জামায়াত গণহত্যা চালাচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী

বিএনপি-জামায়াত গণহত্যা চালাচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী

hasinaপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিএনপি-জামায়াত চক্র তথাকথিত আন্দোলনের নামে দেশে গণহত্যা চালাচ্ছে। কারো পক্ষে তাদের এ ধরনের নৃশংসতা মেনে নেওয়া সম্ভব নয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াত জোট হরতাল-অবরোধের নামে মানুষ হত্যা করছে। তারা খুনের দায় এড়াতে পারে না। মূলত তারা গণহত্যা চালাচ্ছে। তাদের এই নৃশংসতা কেউ মেনে নিতে পারে না। এ ধরনের নির্মম কর্মকাণ্ড বন্ধ করতে আল্লাহ তাদের সুমতি দিন।’

রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে বৃহস্পতিবার সকালে বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি বিষয়ক ৪র্থ আন্তর্জাতিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণকালে তিনি এ কথা বলেন। দ্য সোসাইটি অব প্লাস্টিক সার্জনস বাংলাদেশ (এসপিএসবি) চার দিনের এই সম্মেলনের আয়োজন করছে।

এতে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণপ্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালিক বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া অনুষ্ঠানে এসপিএসবি সভাপতি ডা. সামন্ত লাল সেন, স্বাস্থ্য সচিব সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম, এসপিএসবি মহাসচিব ডা. মো. আবুল কালাম, সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির চেয়ারম্যান প্রফেসর ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) অঞ্জন কুমার দেব বক্তৃতা করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাসীরা আন্দোলনের নামে দেশব্যাপী ভীতিকর অবস্থার সৃষ্টি করেছে। মানুষ তাদের এই ধ্বংসাত্মক কর্মসূচিতে সাড়া দেয়নি। এ জন্য তারা পেট্রোল বোমা ছুঁড়ে মানুষ পুড়িয়ে মারার কৌশল নিয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘রাজনীতি হচ্ছে মানুষের জন্য। রাজনীতির লক্ষ্য হচ্ছে জনগণের সমস্যা সমাধান করে তাদের সুন্দর জীবন নিশ্চিত করা।’ তিনি প্রশ্ন করেন, ‘এভাবে মানুষ হত্যা করা হলে জনকল্যাণের রাজনীতির লক্ষ্য অর্জিত হবে কিভাবে?’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, তার প্রথম সরকারের মেয়াদে দেশে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ৫০ শয্যাবিশিষ্ট প্রথম বার্ন ইউনিট প্রতিষ্ঠিত হয়, যা তার দ্বিতীয় সরকারের মেয়াদে ১০০ শয্যায় উন্নীত করা হয়। ইতিমধ্যে এই ইউনিটকে ৩০০ শয্যার জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে রূপান্তরের প্রশাসনিক অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এই ইনস্টিটিউট পরিপূর্ণভাবে চালু হলে প্রয়োজনীয় সংখ্যক বিশেষজ্ঞ ও জনশক্তি তৈরি করা সম্ভব হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

সরকার স্বাস্থ্যসেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সকল সরকারি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ও বিভাগীয় হাসপাতালে বার্ন ইউনিট চালুর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে উপজেলা পর্যন্ত তা সম্প্রসারিত হবে।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print