শুক্রবার , ২৭ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » প্রধান খবর » আমি জুলুমের শিকার : আইনজীবীদের কামারুজ্জামান

আমি জুলুমের শিকার : আইনজীবীদের কামারুজ্জামান

জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল  মুহম্মদ কামারুজ্জামানের সাথে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে আজ সকাল ১০টা ১৫ মিনিটে  তার আইনজীবীরা সাক্ষাৎ করেছেন। এসময় কামারুজ্জামান আইনজীবীদের বলেন, তিনি জুলুমের শিকার। তার বিরুদ্ধে যে রায় তা এ দেশ থেকে ইসলামকে নির্মূল করার ষড়যন্ত্রের একটি অংশ। সেই ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে তিনি আজ জুলুমের শিকার।  সাক্ষাৎ শেষে কারাগারের সামনে অপেক্ষমান সাংবাদিকদের একথা বলেন অ্যাডভোকেট শিশির মনির।

শিশির মনির বলেন, কামারুজ্জামান তাদের জানিয়েছেন মামলার পূর্ণাঙ্গ রায় হাতে পাওয়ার পর রিভিউ পিটিশন দাখিল করা হবে। তাকে যে অভিযোগে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়েছে সে বিষয়ে রায় পর্যালোচনা করে তিনি তার অবস্থান তুলে ধরবেন রিভিউ আবেদনে। তারা কামারুজ্জামানের সাথে পরবর্তী আইনী পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনা করেছেন। এসময় তিনি সোহাগপুর সম্পর্কে দেশবাসীর উদ্দেশে কিছু কথা বলেছেন।

শিশির মনির বলেন, কামারুজ্জামান বলেছেন, যে অভিযোগে তাকে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়েছে সেই এলাকায় তিনি কোনো দিন যাননি। মামলার আগে ওই এলাকার নামও তিনি কোনদিন শুনেননি। মামলার পর তিনি এ বিষয়ে শুনেছেন। তিনি বলেন, সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে মামলাটি করা হয়েছে। এই রায় এ দেশ থেকে ইসলামকে নির্মূল করার ষড়যন্ত্রের একটি অংশ। সেই ষড়ন্ত্রের অংশ হিসেবে তিনি (কামারুজ্জামান) আজ জুলুমের শিকার। কামারুজ্জামান আশা প্রকাশ করেন, নতুন প্রজন্মের কাছে যে অপপ্রচার আজকে করা হচ্ছে সেই নতুন প্রজন্মই একদিন এদেশে ইসলামের বিজয় পতাকা উড়াবে। রায়ের খবর শুনে কামারুজ্জামান বিচলিত নন বলে জানান শিশির মনির।

পূর্ণাঙ্গ জাজমেন্ট প্রকাশ করা ছাড়া এবং রিভিউ আবেদনে নিষ্পত্তি ছাড়া ফাঁসি কার্যকরের খবর বিষয়ক সংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে শিশির মনির বলেন, এ ধরনের পদক্ষেপ হবে সম্পূর্ণ আইন ও নিয়ম বহির্ভূত। ফুল জাজমেন্ট এখনো বের হয়নি। সুপ্রিম কোর্টের অর্ডার কোনো কর্তৃপক্ষের কাছে এখনো পৌঁছেনি। এ অবস্থায় কি করে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হতে পারে। সংবিধানের ১০৫ ধারায় আসামিকে রিভিউ করার অধিকার দেয়া হয়েছে। সংবিধানের উপরে দেশে আর কোনো আইন নাই।

সংবিধানের ৪৭ ধারা অনুযায়ী মৌলিক মানবাধিকার রহিতকরণ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এ ধারা বহাল থাকা সত্ত্বেও আব্দুল কাদের মোল্লার ক্ষেত্রে রিভিউ শুনানি হয়েছে। কাজেই কামারুজ্জামানও সেই অধিকার পাবেন বলে তিনি মনে করেন।

রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ফুল জাজমেন্ট প্রকাশ এবং পরবর্তীতে রিভিউ নিষ্পত্তি হওয়ার পরের বিষয় হচ্ছে এটি। কাজেই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানতে চাওয়া এখন অবান্তর।

ফাঁসি কার্যকরের প্রস্তুতি নিতে কারা কর্তৃপক্ষকে মৌখিক নির্দেশনা দেয়া হয়েছে আইনমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে শিশির মনির বলেন, আইনী প্রক্রিয়া নিষ্পত্তি না করে আইনমন্ত্রী ফাঁসি কার্যকরের যে নির্দেশনা কারা কর্তৃপক্ষকে দিয়েছেন তা সম্পূর্ণ কর্তৃত্ব বহির্ভূত। আইনের লোক হয়ে তিনি এ ধরনের নির্দেশনা দিতে পারেন না।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print