শনিবার , ২১ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » প্রধান খবর » সংখ্যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ-আয়ার‌ল্যান্ড ম্যাচ

সংখ্যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ-আয়ার‌ল্যান্ড ম্যাচ

নেলসন: ৩০৪ রান তাড়া করে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৪ উইকেটে হারিয়ে বিরাট অঘটনের জন্ম দিয়েছে আয়ার‌ল্যান্ড। খেলায় বেশ কয়েকটি রেকর্ড ও আলোচিত ঘটনা ঘটেছে। সংখ্যার আলোকে সেগুলোকে তুলে ধরা হলো।

৮৯: সাত নম্বরে নেমে ওয়েস্ট ইন্ডিজ তারকা ড্যারেন স্যামি ৮৯ রান করেছেন, বিশ্বকাপে যেটি রেকর্ড। এর আগে ১৯৮৩ বিশ্বকাপে পাকিস্তানের শহিদ মাহবুব সাত নম্বরে নেমে সর্বোচ্চ ৭৭ রান করেন।

Cricket WCup Ireland West Indies১৯৮: শেষ ২০ ওভারে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৯৮ রান সংগ্রহ করে। ২০০১ সালের পর এটি ক্যারিবিয়ানদের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ।

১৫৪: ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে লেন্ডল সিমন্স ও ড্যারেন স্যামি ১৫৪ রান করেন, বিশ্বকাপের ইতিহাসে ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে যা তৃতীয় সর্বোচ্চ সংগ্রহ। ২০১১ বিশ্বকাপে আয়ারল্যান্ডের কেভিন ও’ব্রায়েন ও অ্যালেক্স কুসাক ষষ্ঠ উিইকেট জুটিতে সর্বোচ্চ ১৬২ রান করেছিলেন।

৩: আয়ারল্যান্ড বিশ্বকাপে তিনবার ৩০০ প্লাস রান তাড়া করে ম্যাচ জিতেছে। কোনো দলই বিশ্বকাপে িএটি করে দেখাতে পারেনি।

৪: আইসিসির সহযোগী দেশ আয়ারল্যান্ড চারবার টেস্ট খেলা দলগুলোকে পরাজিত করে। সহযোগী দেশগুলোর মধ্যে কেনিয়া সর্বোচ্চ পাঁচবার টেস্ট প্লেয়িং দেশকে পরাজিত করেছে। ফলে কেনিয়াকে ছাড়িয়ে যাওয়া আইরিশদের জন্য এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র্র।

৬: এবারের বিশ্বকাপের প্রথম পাঁচ ম্যাচে ৬ বার ৩০০ তা তার বেশি রান দেখেছে ক্রিকেটবিশ্ব, যা বিশ্বকাপের প্রথম সাত আসরের চেয়ে বেশি। ২০১১ বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ ১৭ বার ৩০০ বা তার বেশি রান হয়েছে।

৭১: পল স্টার্লিং ও উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড উদ্বোধনী জুটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৭১ রানের জুটি গড়েন। আইসিসির শীর্ষ আট দলের বিপক্ষে আয়ারল্যান্ডের জন্য যেটি সর্বোচ্চ উদ্বোধনী জুটি।

৯২: আয়ারল্যান্ড ওপেনার পল স্টার্লিং ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৯২ রান করেছেন। আর কোনো আইরিশ ওপেনার আইসিসির শীর্ষ আট দেশের বিপক্ষে এতো রান করতে পারেননি। ২০১১ বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে পোর্টারফিল্ড সর্বোচ্চ ৭৫ রান করেছিলেন।

৮৪: এড জয়েসে সোমবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৮৪ রান করেছেন। ২০১১ বিশ্বকাপেও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ঠিক ৮৪ রান করেছিলেন জয়েসে। আইসিসির শীর্ষ আট দেশের বিপক্ষে কোনো আইরিশ ব্যাটসম্যানের এটি তৃতীয় সর্বোচ্চ ইনিংস।

১: প্রথম ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যান হিসেবে বিশ্বকাপে ৬ নম্বর পজিশনে ব্যাট করে সেঞ্চুরি করেছেন লেন্ডল সিমন্স। এর আগের সর্বোচ্চ ছিল ৮৬ রান। ১৯৭৯ সালে দ্বিতীয় বিশ্বকাপের ফাইনালে ক্যারিবিয়ান তারকা কলিস কিং ছয় নম্বরে নেমে ৮৬ রান করেছিলেন।
.
১৮: ২০১২ সালের পর থেকে ওয়ানডেতে ১৮ বার ১০০ বা তার চেয়ে কম রানে পাঁচ উইকেট হারিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, যা অন্য যেকোনো দলের চেয়ে বেশি। এ সময় ক্যারিবীয়রা ৬০টি ওয়ানডে খেলেছে। যার মানে হলো- গড়ে প্রতি প্র্রায় তিন ওয়ানডের একটিতে ১০০ বা তার চেয়ে কম রানে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৫ উইকেট হারিয়েছে।

৫৫.৪: ক্রিস গেইলের ৬৫ বলে ৩৬ রানের ব্যাটিং স্ট্রাইক ৫৫.৪। আইসিসির সহযোগী কোনো দেশের বিপক্ষে গেইল কমপক্ষে ৫০ বল খেলেছেন, এমন ইনিংসে সবচেয়ে বাজে স্ট্রাইক রেট এটি।   -ওয়েবসাইট


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print