সোমবার , ২৩ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » স্বাস্থ্য » ডায়াবেটিক রোগীর জরুরি পরীক্ষা

ডায়াবেটিক রোগীর জরুরি পরীক্ষা

ডায়াবেটিস রোগী ছাড়াও যাদের কাছে নিকটাত্মীয়ের ডায়াবেটিস আছে,যাদের ওজন বেশি,ব্যায়াম বা শারীরিক পরিশ্রমের কাজ তেমন করেন না, তারা নিম্নোল্লেখিত রক্তের পরীক্ষাগুলোর মাধ্যমে ডায়াবেটিস সম্পর্কে জানতে পারেন।
খালি পেটে বা খাবারের আগে (Fasting Blood Glucose): এ পরীক্ষাটি সকালে নাস্তার আগে খালি পেটে করতে হয়। এর স্বাভাবিক মাত্রা ৬.১ মিলি মোল/লিটার বা তার কম।
খাবারের দুই ঘণ্টা পরে (2 Hour After Breakfast): এ পরীক্ষাটি নাস্তা খাওয়ার দুই ঘণ্টা পরে করতে হয়। এর স্বাভাবিক মাত্রা ১০ মিলি মোল/লিটার বা তার কম।
যে কোন সময় (Random): এ পরীক্ষাটি দিনের যে কোন সময় করা যেতে পারে। এর স্বাভাবিক মাত্রা ৫.৫ থেকে ১১.১ মিলি মোল/লিটার।
Oral Glucose Tolerance Test (OGTT): যাদের খালি পেটে FBG ৬.১ এর বেশি কিন্তু ৭.০ মিলি মোল/ লিটারের কম কিংবা দিনে যে কোন সময় ৫.৫ এর বেশি কিন্তু ১১.১ মিলি মোল/লিটারের কম,তাদের এ পরীক্ষাটি করা খুবই জরুরি।
কারণ এ পরীক্ষাটির মাধ্যমে কারো ডায়াবেটিস আছে কি না সে ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া যাবে।
এ পরীক্ষাটির জন্য রোগীকে প্রথমে খালি পেটে রক্ত দিতে হবে। এরপর ৭৫ গ্রাম গ্লুকোজ পানিতে মিশিয়ে খেতে হবে এবং ঠিক দুই ঘণ্টা পর রোগীকে আবার রক্ত দিতে হবে।
এই দুই ঘণ্টা রোগী অন্য কোনো খাবার খেতে পারবেন না। কোনো প্রকার শারীরিক পরিশ্রমের কাজও করতে পারবেন না। ধূমপান করা যাবে না।
এ পরীক্ষায় যে রোগীর খালী পেটে ৭.০ মিলি মোল/লিটারের চেয়ে বেশি এবং দুই ঘণ্টা পর ১১.১ মিলি মোল/লিটারের চেয়ে বেশি হবে তাকে নিশ্চিত ডায়াবেটিক রোগী হিসেবে চিহ্নিত করা যাবে।
গ্লাইকোলাইলেটেড হিমোগ্লোবিন এ পরীক্ষার মাধ্যমে আপনার রক্তে গত ৪ মাসের গ্লুকোজের মাত্রার একটা ধারণা পাওয়া যাবে।
এ পরীক্ষাটি খালি পেটে অথবা খাওয়ার পর যে কোনো অবস্থায় করা যায়।এর স্বাভাবিক মাত্রা ৭% নিচে থাকা বাঞ্চনীয়।

আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print