রবিবার , ২২ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » ফুটবল » শপথ নিলেন কেজরিওয়াল

শপথ নিলেন কেজরিওয়াল

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন কেজরিওয়ালদিল্লির ৮তম মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শনিবার রামলীলা ময়দানে শপথ নিয়েছেন আম আদমি দলের নেতা অরবিন্দ কেজরিওয়াল। তার মন্ত্রিসভার অন্য  সদস্যরাও শপথ নিয়েছেন। শপথ শেষে উপস্থিত জনতার উদ্দেশে ভাষণ দেন আপ নেতা।

স্থানীয় সময় বেলা সোয়া ১২টার দিকে শপথ নেয়ার জন্য মঞ্চে ওঠেন কেজরিওয়াল। গত চার দিন ধরে তিরি জ্বর ও সর্দিতে ভুগছিলেন। অসুস্থ শরীর নিয়েই শপথ নেন তিনি। দিল্লির গুরুত্বপূর্ণ অর্থ এবং পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় দুটির দায়িত্ব থাকছে মুখ্যমন্ত্রীর হাতে।

কেজরিওয়ালের পর উপ-মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেন তার ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত আপ নেতা মনীশ সিসোদিয়া। তার হাতে আরো থাকছে প্রকল্প ও কর্ম উন্নয়ন, নগরোন্নয়ন ও শিক্ষার মতো গুরুত্বপূর্ণ দপ্তর।

এরপর একে একে জিতেন্দ্র সিং তোমার আইনমন্ত্রী, সন্দীপ কুমার নারী ও শিশু কল্যাণমন্ত্রী, সত্যেন্দ্র জৈন স্বাস্থ্য ও শিল্পমন্ত্রী, অসিম আহমেদ খান খাদ্যমন্ত্রী এবং গোপাল রাই পর্যটন ও শ্রমমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন।

এনডিটিভি অনলাইনের প্রতিবেদনে জানানো হয়, পদত্যাগের ঠিক এক বছরের মাথায় আবার দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন কেজরিওয়াল। দ্বিতীয়বারের মতো রামলীলার খোলা ময়দানে শপথ নেন আপ প্রধান। ২০১৩ সালে প্রথমবার একই স্থানে শপথ নিয়েছিলেন তিনি। তাঁর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে প্রায় এক লাখ দর্শক উপস্থিত রয়েছেন বলে দাবি করেছে তার দল।

এএপির জ্যেষ্ঠ সদস্য এবং তাঁদের পরিবারের সদস্যরা এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত আছেন। অনুষ্ঠানে রয়েছেন কেজরিওয়ালের স্ত্রী, বাবা-মা, দুই সন্তানসহ পরিবারের সদস্যরা।

শপথ নেয়ার পর উপস্থিত জনতার উদ্দেশে দেয়া ভাষণে দিল্লিকে দুর্নীতিমুক্ত রাজ্য হিসেবে গড়ে তোলায় প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন নতুন মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়াল।

গত দু’দিন ধরে রামলীলা ময়দানে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি চালাচ্ছিল উত্তর দিল্লি মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন। বহু প্রতিক্ষীত এ এ শপথকে ঘিরে দিল্লিতে তৈরি হয় উত্তেজনা। ৫০ হাজার হাজার মানুষ যাতে  অংশ নিতে পারে সেভাবেই সাজানো হয়েছিল রামলীলাকে।এই জনস্রোত সামলাতে মোতায়েন করা হয়েছিল ৩ হাজারের মত পুলিশ। এছাড়া মাঠে বসানো হয়েছিল ৫০টি সিসিটিভি ক্যামেরা এবং ১২টি এলসিডি স্ক্রিন।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print