শুক্রবার , ২২ জুন ২০১৮
মূলপাতা » প্রধান খবর » লতিফ সিদ্দিকীর বিরূপ মন্তব্যের প্রতিবাদে পাথরঘাটায় ওলামাকেরামের সম্মেলন

লতিফ সিদ্দিকীর বিরূপ মন্তব্যের প্রতিবাদে পাথরঘাটায় ওলামাকেরামের সম্মেলন

 হজ ও তাবলিগ জামাতকে নিয়ে লতিফ সিদ্দিকীর বিরূপ মন্তব্যের প্রতিবাদে বরগুনার পাথরঘাটা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে আয়োজিত ওলামা-মাশায়েখদের সম্মেলনের প্রধান অতিথির বক্তব্যে ছারছিনা দরবার শরীফের সনামধন্য আলেম মাওলানা এনায়েত উল্লাহ ফয়রাভী বলেছেন, বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম মুসলিম দেশ বাংলাদেশ। এদেশের শতকরা ৯৫ ভাগ মানুষ মুসলমান। ইসলাম শান্তি- ও কল্যাণের ধর্ম।ইসলাম অশান্তি-, অরাজকতা, উগ্রতা আদৌ পছন্দ করে না। আর মুসলমান হিসেবে, এদেশের বাসিন্দা হিসেবে আমরাও অশান্তি– অরাজকতা চাইনা। ঈমান, আমল নিয়ে সুন্দর ভাবে বাঁচতে চাই। সমপ্রতি আমরা লক্ষ্য করছি যে,এক শ্রেণীর ধর্মদ্রোহী,নাস্তিক মুরতাদ আল্লাহ রাসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম, উম্মাহাতুল মুমিনীন, সাহাবায়ে কিরাম, নামাজ, রোজা, হজ্জ্ব, যাকাত ইত্যাদি ইসলামের মৌলিক বিষয়, ভিত্তি, ব্যক্তি ও ইবাদত বন্দেগী সম্পর্কে যে সকল বক্তব্য ও মন্তব্য করেছে যা কোন মুসলমানই সহ্য করতে পারে না। আমরা তীব্র ভাষায় এর নিন্দা,ধিক্কার ও কঠোর প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সেই সাথে যে সকল ধর্মদ্রোহী ব্যক্তি এ ধরণের কার্যকলাপের জন্য দায়ি আমরা তাদেরও শাস্তি প্রদানের দাবি জানাচ্ছি।
এনায়েত উলস্নাহ ফয়রাভী বলেন, এদেশে বিভিন্ন ধর্মাবলম্বী মানুষের বসবাস। যার যার ধর্ম সে পালন করবে। কারো ধর্মে কেউ আঘাত করবে না। রাজনৈতিক মতবাদ যার যাই থাকুক
IMG_20141104_181754না কেন ঈমান-আকীদা সম্পর্কিত ব্যাপারে সকল মুসলমানের অনুভূতি এক ও অভিন্ন। এই অনুভূতিতে আঘাত হানার অধিকার কারোরই নেই। আল্লাহ- রাসূল, ইসলাম মুসলমান,কুরআন-সুন্নাহ, দীন- শরীয়ত, তরিকা-তাসাউফ ইত্যাদি নিয়ে ব্যঙ্গ বিদ্রুপ করা , এর বিরুদ্ধে মিথ্যা, বানোয়াট, জঘন্য কল্প কাহিনী রচনা করা ও প্রচারণা চালানো এক শ্রেণীর ধর্মদ্রোহী, নাস্তিক, মুরতাদ লোকের ফ্যাসনে পরিণত হয়েছে। যা খুবই দুঃখ জনক। এর প্রতিকার সরকারেরই করতে হবে। এনায়েত উল্লাহ ফয়রাভী বলেন, ছারছীনা পীর ছাহেব কেবলাসহ হক্কানী ওলামায়ে কেরামদের দাবী যে কোন ধর্মাবলম্বীর ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানা রোধ কল্পে অবিলম্বে ব্লাসফেমী আইন প্রণয়নের ও প্রবর্তনের । তাই সরকারের প্রতি ব্লাসফেমী আইন প্রণয়নের ও প্রবর্তনের জন্য জোর দাবি জানিয়েছেন। সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম রিপন, বক্তব্য রাখেন, মাওঃ সিদ্দীকুর রহমান, মাওঃ নুর মোহাম্মদ, মাওঃ গোলামুর রহমান, কাজী মো তোহা, মো. আছাদুলস্নাহ. খন্দকার মো তহা, হাফেজ বেলাল প্রমুখ।

সম্প্রতী লতীফ সিদ্দীকীর অশুভ আচারনের জন্যে মন্ত্রী পরিশদ থেকে বহিস্কার ও নিজ দল থেকে বাদ দেয়ার জন্যে মাননীয় প্রধান মন্ত্রীকে বক্ত্যরা ধন্যবাদ জানান। এছাড়াও লতীফ
সিদ্দীকীকে ও আল্লামা ফারুকী হত্যাকারী ঘাতকদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবী জানান।

বার্তা প্রেরক
কাজী রাকিব
পাথরঘাটা বরগুনা


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print