সোমবার , ২৩ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » প্রধান খবর » অবরোধ চলবে: খালেদা

অবরোধ চলবে: খালেদা

3e6d089ea9503a559250854964ab72e9-khaladaবিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন, অবরোধ চলবে। তিনি দেশবাসীকে চলমান অবরোধ পালনের জন্য আহ্বানও জানিয়েছেন। আজ সোমবার রাতে বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ে খালেদা জিয়া অবরোধ চালিয়ে যাওয়ার এই ঘোষণা দেন।
খালেদা জিয়া বলেন, চলমান সংকট নিছক কোনো আইনশৃঙ্খলাজনিত সংকট নয়। এটি রাজনৈতিক সংকট। এই সংকট রাজনৈতিকভাবে সমাধান করার জন্য আবারও তিনি সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।
খালেদা জিয়া অভিযোগ করেন, বর্তমানে দেশে যেসব নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড চলছে তার জন্য ক্ষমতাসীন দল দায়ী। এর সঙ্গে বিএনপির কোনো সম্পর্ক নেই।
১৫ দিন অবরুদ্ধ হয়ে থাকার পর গতকাল রোববার দিবাগত রাত আড়াইটার পর হঠাৎ করে খালেদা জিয়ার কার্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে থাকা পুলিশের দুটি গাড়ি সরিয়ে নেওয়া হয়। অবরোধমুক্ত হয়ে এটি খালেদা জিয়ার প্রথম প্রেস ব্রিফিং। লিখিত বক্তব্য শেষে খালেদা জিয়া সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দেন।
বিএনপি চেয়ারপারসন লিখিত বক্তব্যে বলেন, ‘জুলুম-নির্যাতন, গুম-খুন, হামলা-মামলার পরও আমরা বারবার একটি গ্রহণযোগ্য ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের জন্য আলোচনার আহ্বান জানিয়েছি। আলোচনার ভিত্তি হিসেবে ৭ দফা প্রস্তাব দিয়েছি। আমাদের আহ্বান ও প্রস্তাবকে তাৎক্ষণিকভাবে নাকচ করে দিয়ে অস্ত্রের ভাষায় সব দমানোর পথ বেছে নিয়েছে সরকার। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও সিনিয়র নেতাসহ সারা দেশে নেতা-কর্মীদের গণহারে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ অবস্থায় বাধ্য হয়ে সারা দেশে শান্তিপূর্ণভাবে অবরোধ কর্মসূচি পালনের ডাক দিয়েছি। কর্মসূচি চলছে এবং পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত তা চলতে থাকবে। ’

 

খালেদা জিয়া বলেন, ‘আমাদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালনের কোনো সুযোগ না দিতে ক্ষমতাসীনরা মরিয়া হয়ে উঠেছে। সারা দেশে বিএনপি ও ২০-দলের নেতা-কর্মীরা সাধারণ মানুষকে সঙ্গে নিয়ে শান্তিপূর্ণ বিরাট মিছিল নিয়ে রাস্তায় নামছেন। সঙ্গে সঙ্গে মিছিলে গুলি, কাঁদুনে গ্যাস ও লাঠিচার্জ করা হচ্ছে। পুলিশের ছত্রছায়ায় ক্ষমতাসীনদের মদতপুষ্ট সন্ত্রাসীরাও হামলা করছে। ’ এর মধ্যে গুলিতে কয়েকজন প্রাণ হারিয়েছেন বলে দাবি করেন তিনি।
খালেদা জিয়া বলেন, শান্তিপূর্ণ আন্দোলন সম্পর্কে দেশে-বিদেশে বিভ্রা‌ন্তি সৃষ্টির উদ্দেশ্যে ক্ষমতাসীনরা নাশকতা ও অন্তর্ঘাতের পথ বেছে নিয়েছে। পুলিশি প্রহরার মধ্যে নারী, শিশু, ছাত্রছাত্রীদের বহনকরী যানবাহনে পেট্রলবোমা মেরে অনেক নিরপরাধ মানুষকে হতাহত ও দগ্ধ করা হয়েছে। এই সব পৈশাচিক বর্বরতার আমরা তীব্র নিন্দা জানাই।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print