শুক্রবার , ২৭ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » জাতীয় » ‘সন্ত্রাসীদের সঙ্গে সংলাপ হতে পারে না’

‘সন্ত্রাসীদের সঙ্গে সংলাপ হতে পারে না’

মিজানুর রহমানজাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বলেছেন, ‘বর্তমানে দেশে গণতন্ত্র রক্ষার নামে যা হচ্ছে, তা সন্ত্রাস। যারা বোমা মেরে সাধারণ নিরীহ মানুষকে পুড়িয়ে মারে, তারা আর যা–ই হোক, গণতন্ত্র মানে না। তারা সন্ত্রাসী। সন্ত্রাসীদের সাথে কোনো সংলাপ হতে পারে না। তাদের সাথে সংলাপে বসা মানে সন্ত্রাসের কাছে গণতন্ত্রের মাথা নত করা।’

আজ শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত ‘নারীর ক্ষমতায়নে প্রচারাভিযান: সিডও সনদের প্রাসঙ্গিকতা’ শীর্ষক এক সেমিনারে মিজানুর রহমান এ কথা বলেন। খবর বাসসের।

সাম্প্রতিক রাজনৈতিক অবরোধ ও হরতালের নামে নাশকতা সৃষ্টিকারীদের প্রতি বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) মহাপরিচালকের হুঁশিয়ারি মানবাধিকারের লঙ্ঘন নয় বলেও মন্তব্য করেন তিনি। তিনি বলেন, ‘বিজিবির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আজিজ আহমেদ কোনো সাধারণ মানুষের ওপর গুলি চালানোর কথা বলেননি। তিনি জনগণের নিরাপত্তা ও আত্মরক্ষার লক্ষ্যে প্রয়োজনে গুলি চালাবেন বলেছেন। আত্মরক্ষার অধিকার এমন এক অধিকার, যা রক্ষায় কোনো পূর্বঘোষণার প্রয়োজন নেই। যখন কারও জীবন বিপন্ন হচ্ছে বলে প্রতীয়মান হয়, তখন কারও সাথে আলাপ-আলোচনারও প্রয়োজন নেই। তাই আত্মরক্ষার জন্য গুলি চালালে সেটা স্বীকৃত ও বৈধ। এতে আইনের কোনো বরখেলাপ হয় না। কারও মানবাধিকারও লঙ্ঘন হয় না।’

জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের নারীবিষয়ক কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মাহফুজা খানমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন শিরীন আখতার, গণস্বাক্ষরতা অভিযানের নির্বাহী পরিচালক রাশেদা কে চৌধূরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী অধ্যয়ন বিভাগের অধ্যাপক নাজমুন্নেসা মাহতাব, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক কাবেরী গায়েন এবং জাতীয় নারী জোটের সভাপতি আফরোজা হক রীনা।

জাতীয় মানবাধিকার কমিশন ও পেশাজীবী নারী সমাজ আয়োজিত এ সেমিনারে অধ্যাপক কাবেরী গায়েন ‘সিডও সনদ এবং নারীর ক্ষমতায়ন’ শীর্ষক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।

মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান রাষ্ট্র ও সমাজে নারীর অবস্থান সুদৃঢ় করতে নারীকে আরও প্রতিবাদী ও আপসহীন হওয়ার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, যখন কোনো রাষ্ট্রের অর্থনৈতিক ব্যবস্থা নারীকে পণ্য সমতুল্য বিবেচনা করে, সেই সমাজে নারীর ক্ষমতায়ন হয় না। তাই উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় নারীর সক্রিয় অংশগ্রহণ থাকলেও তা নারীর ক্ষমতায়নের মাপকাঠি নয়। নারীর ক্ষমতায়ন করতে হলে অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক ব্যবস্থার পরিবর্তন করতে হবে।

জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বলেছেন, ‘বর্তমানে দেশে গণতন্ত্র রক্ষার নামে যা হচ্ছে, তা সন্ত্রাস। যারা বোমা মেরে সাধারণ নিরীহ মানুষকে পুড়িয়ে মারে, তারা আর যা–ই হোক, গণতন্ত্র মানে না। তারা সন্ত্রাসী। সন্ত্রাসীদের সাথে কোনো সংলাপ হতে পারে না। তাদের সাথে সংলাপে বসা মানে সন্ত্রাসের কাছে গণতন্ত্রের মাথা নত করা।’

আজ শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত ‘নারীর ক্ষমতায়নে প্রচারাভিযান: সিডও সনদের প্রাসঙ্গিকতা’ শীর্ষক এক সেমিনারে মিজানুর রহমান এ কথা বলেন। খবর বাসসের।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print