বুধবার , ২৫ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » ফুটবল » ইমরান খানের নতুন বিয়ে নিয়ে ব্রিটিশ মিডিয়ায় ঝড়

ইমরান খানের নতুন বিয়ে নিয়ে ব্রিটিশ মিডিয়ায় ঝড়

ইমরান খানেরপাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার ও প্লেবয় হিসেবে খ্যাত বর্তমানে তেহরিক ই ইনসাফ নেতা ইমরান খানের নতুন বিয়ে নিয়ে ব্রিটিশ মিডিয়ায় ব্যাপকভাবে আলোচিত ও সমালোচিত হয়েছে।

ডেইলি মেইলসহ বেশ কয়েকটি গণমাধ্যম এ খবর নিশ্চিত করেছে। বিবিসির সাবেক সাউথ টুডে ওয়েদার প্রোগ্রামের প্রেজেন্টার রেহম খানকে গত অক্টোবর মাসে ইমরান খান বিয়ে করেছেন।

খবরে বলা হয়েছে, গত অক্টোবর মাসেই ইমরান খানের সাবেক ব্রিটিশ স্ত্রী জেমাইমা গোল্ড স্মীথ তার নামের শেষে খান উপাধি বাদ দেয়ার জন্য রেজিস্ট্রি অফিসে আবেদনের সময়ে মন্তব্য করেছেন। এখন আর খান রেখে লাভ নেই। কেননা ইমরান খান দ্বিতীয় স্ত্রী বিয়ে করেছেন।

এরপর থেকে ব্রিটিশ মিডিয়ায় কানা ঘুষা চলছিলো ইমরান খান কি সত্যিই বিয়ে করেছেন নাকি করতে যাচ্ছেন।

বিশ্বস্ত সূত্র নিশ্চিত করেছেন, ইমরান এবং রেহম খান ইতিমধ্যেই বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন। এখন শুধু বাকি আনুষ্ঠানিক ঘোষণার। ধারণা করা হচ্ছে, নিউ ইয়ারে এই ঘোষণা আসতে পারে।

পাকিস্তানি নিউজ এংকর ফারাহ জাভেদ রাব্বানী ২৭ ডিসেম্বর যে টুইট করেছেন, তাতে বুঝাই যাচ্ছে ইমরান খান নতুন বিয়ে করেছেন। ফারাহর টুইট হলো,‘Another well-known news anchor in Pakistan, Farhat Javed Rabani, Tweeted on December 27: Ahmmm… an anchor has married a politician today… ‪#WeddingBells’

এ ব্যাপারে পাকিস্তানের তেহরিক ই ইনসাফ পার্টির সঙ্গে ব্রিটিশ মিডিয়া যোগাযোগ করলে মুখপাত্র জানিয়েছেন রেহমা খান ইনসাফ পার্টির কর্মকান্ডে অংশ গ্রহণের আগ্রহ প্রকাশ করেছেন এবং রেহম খান নিজেই ফার্স্ট লেডি হওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ ও করেছেন।

পাকিস্তানের লিডিং পলিটিক্যাল কমেন্টেটর এবং ইমরান খানের ঘনিষ্ট ড. শাহিদ মাসুদ বলেছেন, তিনি ইমরান খানকে জিজ্ঞেস করেছিলেন, ইমরান খান এই সংবাদ স্বীকার করেননি তবে আবার অস্বীকারও করেননি।

ইমরান খানের পুনরায় বিয়ে নিয়ে তার বিরোধী রাজনৈতিক পক্ষ এবং মুসলিম লীগ শরীফ এর দল রাজনৈতিক অঙ্গনে ঝড় তুলবে তার আলামত পাকিস্তানি রাজনৈতিক অন্দর মহলে শুরু হয়েছে বলে স্থানীয় পত্রিকার রিপোর্টার মন্তব্য করেছেন।

রেহম খান লিবিয়া জন্ম গ্রহণকারী পাকিস্তানি পিতা মাতার সন্তান। এর আগে তার বিয়ে হয়েছিলো এক ডাক্তারের সঙ্গে। তাদের ডিভোর্স হয়ে যায়। সেই পক্ষের ঘরে তার তিন সন্তানও রয়েছে।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print