মঙ্গলবার , ১৭ জুলাই ২০১৮
মূলপাতা » প্রধান খবর » জাকারবার্গকে হত্যার হুমকি !

জাকারবার্গকে হত্যার হুমকি !

জাকারবার্গপ্যারিসের বিদ্রূপ ম্যাগাজিন শার্লি হেবদোর প্রধান কার্যালয়ে হামলার এক দিন পর ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ একটি ফেসবুক স্ট্যাটাস দিয়েছেন। তাতে তিনি লিখেছেন, পাকিস্তানের এক উগ্রপন্থী তাঁকে কয়েক বছর আগে হত্যার হুমকি দিয়েছিল।

জাকারবার্গ ফেসবুকে লিখেছেন, ‘কয়েক বছর আগের ঘটনা। পাকিস্তানের এক উগ্রপন্থী আমাকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়েছিল, কারণ ফেসবুক মুহাম্মদ (স.)কে কটাক্ষ করে তৈরি একটি কনটেন্ট সরাতে অস্বীকার করেছিল।’
কেন মহানবী (স.)কে কটাক্ষ করে তৈরি কনটেন্ট সরাতে ফেসবুক অস্বীকার করেছিল সে ব্যাখা হিসেবে জাকারবার্গ লিখেছেন, ‘আমরা কনটেন্ট সরিয়ে ফেলার বিপক্ষে ছিলাম কারণ,ভিন্নমত, যদিও সেই মত অপমানজনকও হয়, তা এই বিশ্বকে আরও সুন্দর ও আরও মজার জায়গা করে তুলতে পারে।’
ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী আরও জানিয়েছেন, তাঁর সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইট প্রতিটি দেশেরই আইন মেনে চলে। তিনি বলেন, ‘বিশ্বজুড়ে মানুষ কী বিনিময় বা শেয়ার করবে, তার ওপর কোনো দেশ বা কোনো দলকে একনায়কতন্ত্র তৈরির সুযোগ দেবেন না।’

জাকারবার্গ বলেন, ‘গতকালের (প্যারিসের ঘটনা) আক্রমণ দেখে আমার মনে হয়েছে এবং উগ্রপন্থা নিয়ে আমার অভিজ্ঞতা বলে, আমাদের এই বিষয়টিই আগে ছাড়তে হবে। একদল উগ্রপন্থী বিশ্বজুড়ে সবার কণ্ঠকে থামিয়ে দিতে ও মতামতের টুটি চেপে ধরতে চাইছে।’

জাকারবার্গ বলেন, ‘ফেসবুকে আমি কখনো এটা হতে দেব না। আমি ফেসবুককে এমনভাবে বানাব, যেখানে সহিংসতার ভয়ডর ভুলে সবাই মুক্তভাবে তাঁদের মতামত ব্যক্ত করতে পারবেন। নিহত ব্যক্তি ও তাঁদের পরিবার, ফ্রান্সের জনগণ এবং সারা বিশ্বের মুক্ত চিন্তার মানুষের সঙ্গেই আছি আমি।’
জাকারবার্গের এই স্ট্যাটাসের জবাবে অনেকেই তাঁদের মন্তব্য লিখেছেন। উমর খান নামের পাকিস্তানি একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী লিখেছেন, ‘মার্ক, একজন পাকিস্তানি হয়ে আমি আপনার চিন্তাভাবনার প্রশংসা করি কিন্তু একটি বিষয়ে পরিষ্কারভাবে বলতে চাই, সব পাকিস্তানির মনোভাব কিন্তু এক নয় আর আপনি শুধু একজন পাকিস্তানির আচরণের জন্য পুরো জাতির ওপর দোষ চাপাতে পারেন না। ফেসবুকে ধর্মীয় বিষয়গুলোর কথা বললে আমি বলব, আপনারা নির্দিষ্ট পেজ/ ম্যাটিরিয়ালের রিভিউ করে দারুণ কাজ করছেন।’
প্রসঙ্গত, ফেসবুকে কোনো পোস্ট অপছন্দ হলে তা সরিয়ে ফেলার জন্য ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করা যায়।
উমরের মন্তব্যের জবাবে জাকারবার্গ লিখেছেন, ‘আপনার মতামত ঠিক। আমার বেশ কিছু পাকিস্তানি বন্ধু আছে, আমি জানি সব পাকিস্তানি আমাকে মেরে ফেলার হুমকিদাতার মতো নয়।’
গতকাল বৃহস্পতিবার এএফপির খবরে জানানো হয়, শার্লি হেবদোর সম্পাদকীয় বিভাগের সাপ্তাহিক সভার শেষ পর্যায়ে এই আক্রমণের ঘটনা ঘটে। বিশেষ বাহিনীর সদস্যের মতো পোশাক পরে বন্দুকধারীরা আক্রমণ করে।
এক বন্দুকধারী ‘শার্ব’ নামে চিত্কার করতে থাকে। শার্ব হচ্ছে পত্রিকার প্রধান সম্পাদক ও কার্টুনিস্ট স্তিফান শার্বোনিয়ারের ডাক নাম। ইসলামকে কটাক্ষ করে ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশ করার পর প্রাণনাশের হুমকি পান তিনি। এরপর থেকে পুলিশ পাহারায় ছিলেন শার্বোনিয়ার। আক্রমণে মোট ১২ জন মারা যান। (ইন্টারনেট)


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print