শুক্রবার , ২০ জুলাই ২০১৮
মূলপাতা » টেনিস » তৃতীয় দিনেও ‘অবরুদ্ধ’ খালেদা জিয়া

তৃতীয় দিনেও ‘অবরুদ্ধ’ খালেদা জিয়া

‘অবরুদ্ধ’ খালেদাতৃতীয় দিনের মতো মঙ্গলবারও (৬ জানুয়ারি) গুলশান রাজনৈতিক কার্যালয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ‘অবরুদ্ধ’ রয়েছেন। এখনো কার্যালয়ের মূল গেটের বাইরে পুলিশের দেওয়া তালা ঝুলছে।সোমবার (৫ জানুয়ারি) বিকেলে গুলশানের নিজ কার্যালয় থেকে বের হওয়ার চেষ্টা করেও শেষ পর্যন্ত ব্যর্থ হন বিএনপি চেয়ারপারসন। ওই সময় পিপারস্প্রে ছিটিয়ে দেয় পুলিশ। এতে অসুস্থ হয়ে পড়েন খালেদা। তবে বর্তমানে তিনি সুস্থ রয়েছেন বলে কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে।

এর আগে সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বিএনপি চেয়ারপাসনের ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. শামীমের নেতৃত্বে ৩ সদস্যের একটি মেডিকেল টিম গুলশান কার্যালয়ে প্রবেশ করেছেন।

এ বিষয়ে খালেদা জিয়ার প্রেস সচিব মারুফ খান কামাল সোহেল বলেন, ম্যাডাম (খালেদা জিয়া) বেশ কিছুদিন ধরে সুস্থ ছিলেন। কিন্তু বিকেলে গুলশান কার্যালয়ের সামনে পুলিশের পেপার স্প্রেতে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন।

৫ জানুয়ারির নির্বাচনের বর্ষপূতির দিনটিকে ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ ঘোষণা করে রাজধানীর নয়াপল্টনে সমাবেশের পাশাপাশি সারা দেশে বিক্ষোভ কর্মসূচি নেয় বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট। ঢাকার সমাবেশে যোগ দিয়ে নিজে সরকার পতনের এ আন্দোলনে নেতৃত্ব দেওয়ার ঘোষণা দেন জোট নেত্রী বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।ঘোষিত কর্মসূচির একদিন আগে শনিবার (৩ জানুয়ারি) রাত ১১টা ৪০ মিনিট থেকে গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে অবস্থান নেন খালেদা জিয়া। সেখান থেকে রাতেই বের হয়ে নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যাওয়ার উদ্যোগ নিলে তাকে যেতে দেয়নি পুলিশ। এরপর থেকেই গুলশান কার্যালয়ে অবস্থান করছিলেন খালেদা জিয়া। আর তার কার্যালয় ঘিরে রেখেছে পুলিশ।

খালেদা জিয়াকে গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে ‘অবরুদ্ধ’ করে রাখা হয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছে বিএনপি।

অন্যদিকে ৫ জানুয়ারি ‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ ঘোষণা দিয়ে আওয়ামী লীগ রাজধানীর ১৬টি স্পটসহ সারা দেশের জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে বিজয় র‌্যালি ও সমাবেশ করার ঘোষণা দেয়। এ অনুযায়ী সোমবার সকাল থেকেই রাজধানীজুড়ে অবস্থান নেন সরকারি দলের নেতাকর্মীরা।

পাল্টাপাল্টি এ কর্মসূচির কারণে রাজধানীতে রোববার (৪ জানুয়ারি) বিকেল ৫টা থেকে সব ধরনের সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে ঢাকা মেট্রোপলিট্রন পুলিশ (ডিএমপি)।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print