বৃহস্পতিবার , ১৯ জুলাই ২০১৮
মূলপাতা » টেনিস » আন্দোলন ব্যারিকেড ভেঙেই করতে হয়: নাসিম

আন্দোলন ব্যারিকেড ভেঙেই করতে হয়: নাসিম

নাসিমব্যারিকেড ভেঙেই আন্দোলন করতে হয়—বলে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উদ্দেশে মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর মোহাম্মদ নাসিম। আজ সোমবার বিকেলে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘উনি (খালেদা জিয়া) হচ্ছেন এমন নেত্রী—একাই আন্দোলনের ডাক দেন, একাই মাঠে নামেন। এখন একাই মাঠে আছেন। ওনার নেতা–কর্মীরা কেউ নাই। ব্যারিকেড ভেঙেই তো আন্দোলন করতে হয়।’ তিনি বলেন, আন্দোলনের মাঠে কাউকে না পেয়ে উনি নিজেই বলেন, নিজেই মাঠে নামব। কি অসহায় আজকে উনি! কি অসহায় নেত্রী উনি! আর সাংবাদিকেরা খবর দেয়, তাঁর দলের নেতাদের মোবাইল বন্ধ। এই অসহায়ত্ব নিয়ে কীভাবে জনগণকে ডাক দেন।’

খালেদা জিয়ার আর্তনাদ পরাজিত নেত্রীর আর্তনাদ ছাড়া আর কিছু নয়, মন্তব্য করে নাসিম বলেন, ‘আন্দোলন করবেন, আগে কর্মীদের উজ্জীবিত করেন। আমাদের গণতেন্ত্রের বিজয় আছে, বিজয় থাকবে।’

‘খালেদা জিয়া দাবি করেছেন তিনি অবরুদ্ধ’ এ বিষয়ে সাংবাদিকেরা জানতে চাইলে নাসিম বলেন, ‘তাঁকে কেউ অবরুদ্ধ করেনি। তাঁকে কেউ বাধাও দেয়নি। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যদি মনে করে, একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তাঁর নিরাপত্তা জোরদার করা দরকার, তারা সেটা করবে।’

বিএনপির ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ পালনে আওয়ামী লীগ কি ভয় পেয়ে বাধা দিচ্ছে—এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ভয় পাওয়ার প্রশ্নই ওঠে না। আওয়ামী লীগ চিরদিনই সেই পাকিস্তান থেকে আন্দোলন করে এখানে এসেছে। আমরা কাউকে ভয় পাই না। আওয়ামী লীগ নেত্রী শেখ হাসিনাও একমাত্র আল্লাহ রাব্বুল আল-আমিন আর জনগণ ছাড়া কাউকে ভয় পান না।’

গত বছরের ২৯ ডিসেম্বরের আন্দোলনের পরিস্থিতি ও আজকের পরিস্থিতির তুলনা করে নাসিম বলেন, ‘গতবার আন্দোলনের সময় পতাকা হাতে দাঁড়িয়ে ছিল একজন। এবার কিন্তু ছিল ১০/১২ জন। এই আর কি! এবার উন্নতি হয়েছে।’

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুলের উদ্দেশে নাসিম বলেন, ‘উনি আজকে আমাদের গণতন্ত্রের শিক্ষা দেন। উনার নেতার সময়ে তো কারফিউ গণতন্ত্র জারি ছিল। এই হলো ওনাদের গণতন্ত্র। আজকে উনি বড় বড় কথা বলেন।’

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দীপু মনি, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, বি এম মোজাম্মেল হক, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী প্রমুখ।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print