রবিবার , ২২ জুলাই ২০১৮
মূলপাতা » টেনিস » সারাদেশে সহিংসতায় নিহত ৩, আহত ১৪৩

সারাদেশে সহিংসতায় নিহত ৩, আহত ১৪৩

লক্ষ্মীপু৫ জানুয়ারি ‘গণতন্ত্র রক্ষা দিবস’ ও ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ পালন উপলক্ষে ক্ষমতাসীন আওয়ামী জোট ও বিএনপির নেতৃত্বধীন ২০ দলীয় জোট মুখোমুখি অবস্থানে রয়েছে।

দুই জোটের কর্মসূচি আর পাল্টা কর্মসূচি ঘিরে রাজধানী ঢাকার সঙ্গে বন্ধ রয়েছে অধিকাংশ জেলার বাস চলাচল। বেশ কয়েকটি জেলায় পুলিশ ও সরকারদলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে ২০ দলীয় জোটের সংঘর্ষ হয়েছে। এতে ৩ বিএনপি কর্মী নিহত ও আহত হয়েছেন ১৪৩ জন।

এছাড়া দলীয় কার্যালয়ে হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগেরও খবর পাওয়া গেছে দেশের বিভিন্ন জেলায়। আটক করা হয়েছে বিএনপি-জামায়াতের অন্তত ২ শতাধিক নেতাকর্মীকে।

বাংলানিউজের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা করেসপন্ডেন্টদের পাঠানো খবর:

নাটোর: নাটোরের তেবাড়িয়া এলাকায় আওয়ামী লীগের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে বিএনপির দুই কর্মী নিহত হয়েছেন। এর প্রতিবাদে ৬ জানুয়ারি জেলায় সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডেকেছে বিএনপি।

সকালে জেলা বিএনপি ও আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা নাটোর শহরের তেবাড়িয়া এলাকা থেকে পৃথক মিছিল বের করার প্রস্তুতি নেয়। এ সময় উভয়পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া, ইট-পাটকেল নিক্ষেপ ও গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। এতে রাকিব ও রায়হান গুলিবিদ্ধসহ বেশ কয়েকজন আহত হন। তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

রাজশাহী: বিকেল পৌনে ৫টার দিকে পুটিয়া উপজেলার বানেশ্বরে পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষে ১ জন নিহত হয়েছেন।

তবে নিহত ব্যক্তি বিএনপির কর্মী কিনা তিনি নিশ্চিত করে বলতে পারেনি পুলিশ।

নোয়াখালী: নাশকতার আশঙ্কা ও সব ধরনের নাশকতা এড়াতে নোয়াখালীর বিভিন্ন স্থানে বিশেষ অভিযান চালিয়ে বিএনপির ১৬ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

এদিকে,  বেলা ১১টায় বিএনপির মিছিলকে কেন্দ্র করে নাশকতার আশঙ্কায় নোয়াখালীর সোনাইমুড়ি বাজার এলাকায় জারি করা ১৪৪ ধারা। তা অমান্য করে সমাবেশ করতে গেলে বিএনপি ও পুলিশের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ টিয়ারশেল ও শটগানের ১০ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। পরে ঘটনাস্থল থেকে বিএনপির ৬ কর্মীকে আটক করে পুলিশ।

নাশকতা এড়াতে নোয়াখালীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পুলিশের সাথে ৩ প্লাটুন বিজিবি টহলে রয়েছে।

সারাদেশে সহিংসতা

কুষ্টিয়া: নাশকতার আশঙ্কায় জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে বিএনপি-জামায়াতের ২৩ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

চাঁদপুর: চাঁদপুরের বিভিন্ন স্থানে রোববার রাত থেকে সোমবার সকাল ৯টায় পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে বিএনপি-জামায়াতের ২১ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

এদিকে, দুপুর ১টার দিকে বিএনপি নেতাকর্মীরা দুপুরে মিছিল নিয়ে বর্ডার বাজার এলাকায় এলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়। এসময় নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছুড়লে উভয়পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ হয়। একপর্যায়ে পুলিশ রাবার বুলেট ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।  এ ঘটনায় ১২ জন আহত হয়। এদের মধ্যে শিশুসহ অন্তত চারজন বুলেটবিদ্ধ রয়েছে।

মাগুরা: নাশকতা সৃষ্টির আশঙ্কায় মাগুরা সদর, শালিখা, শ্রীপুর ও মহম্মদপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে বিএনপি ও জামায়াতের ১১ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

সুনামগঞ্জ: নাশকতার আশঙ্কায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অভিযান চালিয়ে বিএনপি-জামায়াতের ৩২ নেতাকর্মীকে আটক করেছে। রোববার দিনগত রাত থেকে সোমবার ভোর ৫টা পর্যন্ত জেলার ১২টি থানায় এ অভিযান চালানো হয়।

এদিকে, বেলা ১২টার দিকে ২০ দলীয় জোটের নেতাকর্মীরা শহরের পুরাতন কোর্ট এলাকা থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে স্থানীয় ট্রাফিক পয়েন্টের দিকে যাচ্ছিল। এ সময় জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয় থেকে একটি র‌্যালি নিয়ে পুরাতন কোর্ট এলাকায় যাচ্ছিল দলটির নেতাকর্মীরা। পথে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার প্রধান ফটকের কাছে এলে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। একপর্যায়ে পুলিশ টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সংঘর্ষে ওসি ও সাংবাদিকসহ কমপক্ষে ৩০ জন আহত হন।

সংঘর্ষের পরপরই ময়নার পয়েন্টে সিএনজিচালিত দুটি অটোরিকশা ভাঙচুর করে বিএনপিসহ ২০ দলীয় জোটের কর্মীরা।

সাতক্ষীরা: নাশকতার আশঙ্কায় জামায়াত-শিবিরের ১৬ নেতাকর্মীসহ ৫০ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

সোমবার সকালে জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

কক্সবাজার: কক্সবাজারের ৭ উপজেলায় অভিযান চালিয়ে ২০ দলীয় জোটের ১৪ জন নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

রোববার রাত ১২টা থেকে সোমবার সকাল ৯টা পর্যন্ত কক্সবাজার সদর, রামু, উখিয়া, চকরিয়া, কুতুবদিয়া, মহেশখালী ও টেকনাফ উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

বাগেরহাট: নাশকতা পরিকল্পনার অভিযোগে পুলিশ অভিযান চালিয়ে বিএনপি ও জামায়াত ইসলামীর ৫ নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করেছে। এছাড়া নাশকতা প্রতিরোধে ৯ থানা পুলিশের একাধিক দল মোড়ে মোড়ে টহল দিচ্ছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ: পুলিশের বিশেষ অভিযানে জামায়াতের ১, বিএনপির ৪ কর্মীসহ ৩৩ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এদের মধ্যে সদরে ১৮,  শিবগঞ্জে ৭, নাচোলে ৩, ভোলাহাটে ১ ও গোমস্তাপুরে ৪ জন রয়েছে।

ঝিনাইদহ: ঝিনাইদহের ৬ উপজেলা থেকে নাশকতার আশঙ্কায় পুলিশ ২৩ বিএনপি ও ২ জামায়াত কর্মীসহ ৩৮ জনকে গ্রেফতার করেছে।

লক্ষ্মীপুর: সকাল সোয়া ১০টার দিকে শহরে বিএনপির মিছিলে ধাওয়া করেছে পুলিশ। এ সময় পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক নিজাম উদ্দিনসহ ৩ জনকে আটক করা হয়।

আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া): বেলা ১২টার দিকে আখাউড়া শহরে সড়ক বাজার থেকে আনন্দ মিছিল বের হয়ে শহরের প্রধান সড়কগুলো প্রদক্ষিণ করে। পরে পৌর মুক্তমঞ্চের সামনে সমবেত হয়ে সভা করে।

রণক্ষেত্র

মানিকগঞ্জ: গণতন্ত্র হত্যার কালো দিবস উপলক্ষে মানিকগঞ্জে মিছিল ও সমাবেশ করেছে জেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা।

সোমবার দুপুরে আদালত প্রাঙ্গণ থেকে নেতাকর্মীরা একটি মিছিল বের করার চেষ্টা করলে পুলিশি বাধায় তা পণ্ড হয়ে যায়। পরে নেতাকর্মীরা আদালত প্রাঙ্গণেই  বিক্ষোভ মিছিল ও সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে।

এদিকে, দুপুরে দলীয় কার্যালয় থেকে যুবলীগের নেতাকর্মীরা শহরে একটি আনন্দ মিছিল বের করে। মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে স্থানীয় প্রেসক্লাবের সামনে নেতাকর্মীরা সমাবেশ করে।

পাবনা: বেলা সাড়ে ১১টার দিকে জেলা বিএনপি শহরে কালো পতাকা নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি শহরের ইন্দারা পট্টি মোড়ে পৌঁছালে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয় থেকে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের কর্মীরা তাদের ধাওয়া করে। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। এতে ১৫ জন আহত হয়।  (সংগ্রহীত)


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print