শুক্রবার , ২৭ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » অন্যান্য » ‘যতদিন প্রয়োজন খালেদাকে নিরাপত্তার মধ্যে রাখা হবে’

‘যতদিন প্রয়োজন খালেদাকে নিরাপত্তার মধ্যে রাখা হবে’

আসাদুজ্জামান খাঁন কামালযতদিন প্রয়োজন হয় ততদিন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে নিরাপত্তা বেষ্টনীর মধ্যে রাখা হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে নিজ দফতরে সোমবার দুপরে সাংবাদিকদের সঙ্গে এ কথা জানান তিনি।

স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, ‘গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনের ভিত্তিতে খালেদা জিয়াকে নিরাপত্তা দেওয়া হচ্ছে। প্রয়োজন সাপেক্ষে যতদিন প্রয়োজন হয় ততদিন তাকে নিরাপত্তা বেষ্টনীর মধ্যে রাখা হবে।’

তিডিন বলেন, ‘আমাদের নিকট খবর আছে, তারা নিজেরা নিজেরা বিশৃঙ্খলা করে অন্যের উপর চাপাতে পারে। এ জন্য এ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। তবে নিরাপত্তার বিষয়টি আপেক্ষিক যে কোনো সময় যে কোনো কিছু হতে পারে। আর সে ধরনের কোনো আশঙ্কা না থাকলে মঙ্গলবার থেকে মুক্ত হয়ে যেতে পারেন খালেদা জিয়া।’

দুপরের পরে খলেদা জিয়ার পল্টন কার্যালয়ে আসার কথা রয়েছে, তাকে আসতে দেওয়া হবে কিনা এ প্রশ্নের জবাবে আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘এটা আমাদের পুলিশ কমিশনার জানেন, তার কোথায় যাওয়ার দরকার আছে, কোথায় যাওয়া উচিত সেটা তিনি নির্ধারণ করবেন। আর পল্টন আসলে আমাদের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি কতটুকু অবনতি হতে পারে অথবা কোথাও অসুবিধা হতে পারে কিনা, এগুলো দেখার বিষয় আছে।’

তিনি বলেন, ‘আপনারা নিজেরা বলেছেন, রাস্তা ঘাটে আওয়ামী লীগের অনেক মানুষ নানান জায়গায় বসে আছে। মানুষ এখন আর অন্ধকার জগতে ফিরে যেতে চায় না। মারপিট, ঘর পোড়াও, জ্বালাও-পোড়াও চায় না, আপনারা দেখেছেন গত হরতালে বিশৃঙ্খলাকারীদের জনগণ মারধর করে পুলিশের কাছে তুলে দিয়েছে, এ ধরনের ঘটনা ঘটতে পারে, সে কারণে আমরা তাঁর নিরাপত্তা ব্যবস্থা বৃদ্ধি করেছি। তিনি কোথায় কোথায় যাবেন, তা পুলিশকে জানালে পুলিশ সে ব্যবস্থা করবে। এর বাইরে আমার নিকট কোনো সংবাদ নেই।’

বিএনপির গুলশান কার্যালয়ে তালা মারার প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমার নিকট এখন পর্যন্ত এ খবর আসেনি। বিষয়টি আমি জানার পরে বলতে পারব কেনো তালা মারা হয়েছে।’

বালুর ট্রাক প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘যাতে ওই স্থানে কোনো লোকজন সমস্যা করতে না পারে সে জন্য এ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।’


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print