বুধবার , ২৫ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » জাতীয় » সারাদেশ থেকে বিচ্ছিন্ন রাজধানী

সারাদেশ থেকে বিচ্ছিন্ন রাজধানী

সারাদেশ থেকে বিচ্ছিন্ন রাজধানী৫ জানুয়ারিকে কেন্দ্র করে সারাদেশে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে ঢাকামুখী সব যান চলাচল। একদিন আগে রবিবার সকাল থেকে দেশের বেশিরভাগ এলাকায় ঢাকামুখী বাস, লঞ্চ চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।রাজধানীর ঢাকার রাজপথেও ব্যাপকহারে কমে গেছে যান চলাচল।ফলে কার্যত বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে রাজধানী ঢাকা। চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন দূরপাল্লার যাত্রীরা। ফলে অনেকেই বলছেন, আজ অঘোষিত হরতাল চলছে।হাতে গোনা দুই/চারটি গণপরিবহন ঢাকার রাস্তায় সচল থাকলেও প্রাইভেট কারের সংখ্যা কমে গেছেও ব্যাপক হাবে।স্কুল কলেজসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেও অঘোষিত ছুটি চলছে।
আজ সোমবার রাজধানীর অভ্যন্তরীণ সড়কে গণপরিবহণও চলাচল বন্ধ রয়েছে।রাজধানীতে সিএনজিচালিত কিছু অটোরিকশা ও রিকশা চলাচল করতে দেখা গেছে। মহাখালী, ফার্মগেট, কাওরান বাজার, শাহবাগ, পল্টন, মতিঝিল, যাত্রাবাড়ি এলাকা ঘুরে এ চিত্র পরিলক্ষিত হয়েছে।
তবে যান চলাচল কম থাকায় যাত্রীদের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা আদায় করছে গাড়ি চালকরা। বিষয়টি তারা স্বীকারও করছেন। তাদের ভাষ্য, আজকে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাস্তায় গাড়ি চালাতে নেমেছেন তারা। একারণে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা স্বাভাবিক।
এছাড়া সকাল ১০টায় গাবতলী, যাত্রাবাড়ি ও মহাখালী বাস স্ট্যান্ডে গিয়ে দেখা গেছে, বাইরে থেকে বাস আসা বন্ধ। একইভাবে যাত্রীর অভাবে এসকল বাস ঢাকা ছেড়ে যায়নি। একারণে অনেকে ঝুঁকি নিয়ে গন্তব্যে যাচ্ছে। কেউ খালি ট্রাকে লাফিয়ে উঠে পাড়ি দিচ্ছে দীর্ঘপথ।
শফিকুল ইসলাম নামে এক ব্যাংক কর্মকর্তা জানান, ‘ভাই অফিসে যাবো। কোনো গাড়ি পাচ্ছি না। মনে হচ্ছে আজ অঘোষিত হরতাল। হরতালেও কিছু গাড়ি পাওয়া যায়। কিন্তু আজ পরিস্থিতি তারচেয়েও খারাপ।’
পুলিশের একটি সূত্র জানায়, কর্তৃপক্ষের নির্দেশেই বাস মালিক সমিতিকে ঢাকামুখী বাস বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
বাস মালিক ও শ্রমিক সংগঠনের নেতারা জানিয়েছে, নাশকতার আশঙ্কা এবং প্রশাসনিক নির্দেশনার কারণে বিভিন্ন জেলা থেকে ঢাকাগামী বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। তবে ঢাকা থেকে অল্পসংখ্যক বাস বিভিন্ন জেলার উদ্দেশ্যে ছেড়ে গেছে বলে জানায় তারা।
রবিবার সকাল থেকে রাজশাহী, পটুয়াখালী, ময়মনসিংহ, সিলেট, রংপুর ও মুন্সীগঞ্জসহ বিভিন্ন জেলা থেকে ঢাকামুখী বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। সেই অবস্থা সোমবার সকাল পর্যন্ত বিরাজ করছে। নাশকতার আশঙ্কায় বাস চলাচল বন্ধ করে দেয় ওইসব জেলার বাস মালিকরা। হঠাৎ করে পূর্ব ঘোষণা ছাড়া বাস চলচল বন্ধ করে দেওয়ায় বিপাকে পরেছেন সাধারণ যাত্রীরা।
রাজশাহী: সকাল ৮ টার পর থেকে ঢাকামুখী বাস চলাচল বন্ধ  হয়ে গেছে। স্থানীয় শ্রমিক ইউনিয়ন বলছে, বাস এবং বাসের কর্মচারীদের নিরাপত্তার খাতিরে রবিবার সকাল থেকে ঢাকাগামী বাস না চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা।
পটুয়াখালী: রবিবার সকাল থেকে পটুয়াখালী-ঢাকাগামী বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। সোমবারও কোনো বাস ঢাকার উদ্দেশ্যে ছাড়েনি। ফলে যাত্রীরা দুর্ভোগে পরেছে। কি কারণে ঢাকার উদ্দেশে বাস ছেড়ে যাচ্ছে না এ ব্যাপারে বাসের লোকজন কিছু বলতে পারছে না।
ময়মনসিংহ: সকাল থেকে ময়মনসিংহ-ঢাকাগামী বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। জেলার বাস মালিক সমিতির সভাপতি মমতাজউদ্দিন মমতা জানিয়েছেন, নিরাপত্তাজনিত কারণে ঢাকার উদ্দেশ্যে বাস ছেড়ে যাচ্ছে না। তবে অভ্যন্তরীণ সকল রুটে বাস চলছে।
সিলেট: সকাল থেকে সিলেট-ঢাকাগামী বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি। বাস মালিক সমিতি জানিয়েছে, নিরাপত্তাজনিত কারণে ঢাকার উদ্দেশে বাস যাচ্ছে না।
রংপুর: শনিবার রাত থেকে রাজধানীগামী বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। সোমবার সকাল পর্যন্ত একই অবস্থা বিরাজ করছে। রংপুর জেলা মোটর মালিক সমিতির যুগ্ম সম্পাদক আজিজুল ইসলাম রাজু বলেন, বাংলাদেশ মোটর মালিক ফেডারেশনের নির্দেশে রংপুর থেকে ঢাকাগামী সকল বাস চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে।
মুন্সীগঞ্জ: সকাল থেকে মুন্সীগঞ্জ থেকে ঢাকামুখী বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। বাস মালিক সমিতির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, নিরাপত্তার কারণে আমরা যান চলাচল বন্ধ রেখেছি। পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, তারা বাস চলাচলে কোনো প্রকার বাধার সৃষ্টি করছে না।

আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print