বুধবার , ২৫ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » টেনিস » কেন্দ্রীয় নেতাদেরও মানছে না ছাত্রলীগ

কেন্দ্রীয় নেতাদেরও মানছে না ছাত্রলীগ

b1-1420107554ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ব্যানার-ফেস্টুন টানানোর ক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় নেতাদের নিষেধ মানছেন না সংগঠনের বিভিন্ন ইউনিটের নেতারা।  

রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে ছাত্রলীগ নেতাদের টাঙানো এসব ব্যানার-ফেস্টুনে এ চিত্র দেখা গেছে।

২১ ডিসেম্বর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর ব্যানার-ফেস্টুন টাঙানোর ক্ষেত্রে সংগঠেনের নেতাদের সতর্কতা অবলম্বনের নির্দেশ দেয় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি। নির্দেশনায় বলা হয়, ব্যানার-ফেস্টুনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সজীব ওয়াজেদ জয়ের ছবি ছাড়া অন্য ছবি ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকতে হবে।

বুধবার ছাত্রলীগ সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম এক যৌথ বিবৃতিতে এ নির্দেশনা দেন। এতে বলা হয়, ছাত্রলীগের ৬৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ইতিমধ্যে অনেকেই নিজ নাম ও  ছবি ব্যবহার করে বিলবোর্ড টানাচ্ছেন, যা বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ঐতিহ্যের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। যদি কোনো ইউনিট অথবা নেতা-কর্মী পর্যায়ের কেউ ব্যানার-ফেস্টুন টানানোর ইচ্ছে প্রকাশ করেন, তাতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, শেখ হাসিনা এবং সজীব ওয়াজেদ জয় ছাড়া অন্য কোনো ছবি ব্যবহার করবেন না। যদি কেউ বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের নির্দেশ অমান্য করেন, তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।  download (4)

কিন্তু রাজধানীর বিভিন্ন পয়েন্ট ঘুরে দেখা গেছে, আগামী ৪ জানুয়ারি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৬৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রাজধানী ঢাকা শহরের অনেক গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে শুভেচ্ছা জানিয়ে বিলবোর্ড, ফেস্টুন সাঁটিয়েছেন ঢাকা মহানগর ও এর অন্তর্গত বিভিন্ন থানা ইউনিটের নেতারা প্রতিটি ফেস্টুনে  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার ও সজীব ওয়াজেদ জয়ের ছবির পাশাপাশি কেন্দ্রীয় সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ নিজ নিজ ইউনিটের নেতাদের ছবি ব্যবহার করে ব্যানার-ফেস্টুন টাঙিয়েছেন।

এ ক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় নেতাসহ ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন ইউনিটের নেতাসহ অনেকেই এগিয়ে আছেন। রাজধানীর বিভিন্ন বিলবোর্ডে এসব নেতার টাঙানো ডিজিটাল ব্যানার-ফেস্টুনে এমন চিত্র দেখা গেছে।   রাজধানীর রমনা এলাকার মৎস্য ভবনের সামনে বিলবোর্ডে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সফলতা কামনা করে ডিজিটাল ব্যনার লাগিয়েছেন ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সহসভাপতি মো. রিয়াজ উদ্দিন রিয়াজ। ফেস্টুনে দেখা যায়, এক পাশে কেন্দ্রীয় সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ এবং সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলমের বড় ছবি পাশাপাশি ছবি। আর এক কোণায় ছোট আকারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা এবং তার পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয়ের স্ট্যাম্প ছোট সাইজের ছবি ব্যবহার করা হয়েছে।

সেই একই এলাকায় ঢাকা মহানগর (দক্ষিণ) ছাত্রলীগের সহসভাপতি কাজী রাইসুল ইসলাম সেলিমের ডিজিটাল ব্যানারে এসব নেতার বাইরেও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক এক সহসভাপতির ছবি ব্যবহার করা হয়েছে।

এ নিয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের অনেকের মধ্যে ক্ষোভও প্রকাশ করতে দেখা গেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির এক যুগ্মসাধারণ সম্পাদক বলেন,‘সংগঠনের কিছু কিছু ইউনিটের নেতা কেন্দ্রীয় নেতাদের নির্দেশ অমান্য করে ব্যানার-ফেস্টুন নিয়ে কেন্দ্রীয় কমিটির চেইন অব কমান্ড প্রশ্নের সম্মুখীন করেছে। কিন্তু এসব ইউনিটের নেতাদের বিরুদ্ধে কেন্দ্রীয় নেতারা কোনো ব্যবস্থা নিতে পারেন না। কারণ রাজধানীর বিভিন্ন দলীয় এমপি এবং হাইকমান্ডের আশীর্বাদ এদের মাথায় রয়েছে। এসব নেতাদের স্বেচ্ছাচারিতার কাছে আমরা ব্যানার-ফেস্টুনের মতোই অনেক সময় অসহায় হয়ে পড়ি।

এ ব্যাপারে কেন্দ্রীয় এক নেতা ক্ষোভ প্রকাশ করে ফেসবুকে লিখেছেন,‘মহানগর উত্তর/দক্ষিণ শাখার সভাপতি/সম্পাদক ও অধস্তন নেতৃবৃন্দের ঢাউস ঢাউস ছবি শোভা পাচ্ছে, বিষয়টি শুধু বৈসাদৃশ্য নয়,অমার্জনীয় অসাংগঠনিক ঔদ্ধত্ব। সংগঠনের চেয়ে ব্যক্তির আনুগত্য জাহিরের অপরাজনীতিও বটে। উক্ত ছবি ব্যবহারে সতর্কতার বিষয়ে গত বুধবার আমাদের সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি/সম্পাদক প্রেস রিলিজে সুস্পষ্ট নির্দেশনা দিয়েছেন। পাশাপাশি নির্দেশনা অমান্য করলে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণের কথাও বলা হয়েছে।’

সংগঠনের ৬৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন উপলক্ষে এবার সপ্তাহব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print