শুক্রবার , ২০ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » টেনিস » ছাত্রলীগের কর্মসূচি মোকাবিলা করার ক্ষমতা বিএনপির নেই

ছাত্রলীগের কর্মসূচি মোকাবিলা করার ক্ষমতা বিএনপির নেই

তোফায়েলআওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য ও বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘গাজীপুরে এক ছাত্রলীগের কর্মসূচি মোকাবিলা করার ক্ষমতা বিএনপির নেই। প্রতিবাদে হরতাল ডেকে জ্বালাওপোড়াও এবং ঢিল ছুড়ে এক শিক্ষিকাকে মেরেছে। আর হরতালের দিন মাঠে বিএনপির নেতাদের খুঁজে পাওয়া না।’
খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া গাজীপুরে যেতেই সাহস পাননি। সত্যিকারের নেতা যদি হতেন, তিনি সেখানে যেতেন। সরকার বাধা দিলেও সেখানে জনসভা করতেন।’
আজ মঙ্গলবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের জাতীয় বীর আব্দুল কুদ্দুস মাখন মুক্তমঞ্চে দীর্ঘ ১০ বছর পর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।
গতকাল সোমবার হরতালের সময় পিকেটারের ছোড়া ইটের আঘাতে শামছুন নাহার নামের এক স্কুলশিক্ষিকা নিতহ হন। এ প্রসঙ্গে তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, “আওয়ামী লীগের এজেন্টরা এটা করেছে।” বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিবের কথা যদি সত্য হয়, তাহলে ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ বিএনপির সবাই আওয়ামী লীগের এজেন্ট। এই এজেন্টদের দিয়ে আন্দোলন হবে না।’

বিএনপির সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘মিডিয়াই বিএনপিকে বাঁচিয়ে রেখেছে।’
প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়া বলেছিলেন শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন করবেন না। আর এখন খালেদা জিয়া প্রতিদিন এতিমের মতো আমাদের অনুরোধ করছেন সংলাপ করতে। সংলাপ হবে। অপেক্ষা করতে হবে। ২০১৯ সালের ২৯ জানুয়ারি পর্যন্ত। ২০১৯ সালের ২৯ জানুয়ারির আগের ৯০ দিনের মধ্যে যেকোনো একদিন নির্বাচন হবে।’

সম্মেলনে জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সৈয়দ এ কে এম এমদাদুল বারীর সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম, সাবেক আইনমন্ত্রী আবদুল মতিন খসরু, সাংসদ এ বি তাজুল ইসলাম, স্থানীয় সাংসদ র আ ম উবায়দুল মোক্তাদির চৌধুরী, নবীনগরের সাংসদ ফয়জুল রহমান, ফজিলাতুনন্নেছা বাপ্পী, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সুজিত রায় নন্দী, পৌর মেয়র হেলাল উদ্দিন, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার প্রমুখ।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print