রবিবার , ২২ জুলাই ২০১৮
মূলপাতা » সাহিত্য আসর » প্রতি ১৫ দিনে একটি ভাষার মৃত্যু

প্রতি ১৫ দিনে একটি ভাষার মৃত্যু

বিশ্বের ১১টি সর্বাধিক প্রচারিত ভাষা হল চাইনিজ, ইংরেজি, হিন্দি-উর্দু, স্প্যানিশ, আরবি, পর্তুগীজ, রাশিয়ান, বাংলা, জাপানি, জার্মান ও ফরাসী। এই সবকটি ভাষায় কথা বলেন বিশ্বের অর্ধেক মানুষ। আশ্চর্যের বিষয় হল, বিশ্বে এত ভাষা থাকতেও হাতে গোণা কয়েকটি ভাষাতেই কথা বলেন পৃথীবির মোট ৯৬ শতাংশ বাসিন্দা।
সবচেয়ে বেশি ভাষার আঁতুড়ঘর দুটি দেশ। পাপুয়া নিউ গিনি, যেখানে ৮৫০টিরও বেশি ভাষা রয়েছে। অপরটি ইন্দোনেশিয়া, যেখানে ৬৭০টি ভাষা লোকমুখে ফেরে।
মহাদেশের বিচারে বিশ্বের ১০০০টির মধ্যে ১৫ শতাংশ ভাষায় কথা বলা হয় দক্ষিণ ও উত্তর আমেরিকায়, আফ্রিকায় ৩০ শতাংশ, এশিয়াতেও শতাংশের হিসেব ৩০, সবচেয়ে কম ইউরোপে, সেখানে মাত্র ৩ শতাংশ।
এদের মধ্যে অনেকগুলি ভাষাই পরস্পরের সঙ্গে সংযুক্ত। আবার অনেকগুলি ভাষা আছে যেগুলি একটি বিশেষ ভৌগোলিক অঞ্চলে বসবাসকারী মানুষই ব্যবহার করতেন। বংশধরদের অভাবে সেই ভাষা শেষ হয়ে গিয়েছে। হাতের কাছে উদাহরণ রয়েছে, বাস্ক, উস্কারা- এ ভাষাগুলি বক্তার অভাবে হারিয়ে গিয়েছে।
প্রতিনিয়ত ভাষা ও ভাষায় শব্দের ব্যবহার পাল্টে যাচ্ছে। অনেক ভাষা অস্তিত্ব রক্ষায় অন্যের সঙ্গে নিজেকে মিশিয়ে নিচ্ছে। যার ফলে খর্ব হচ্ছে ভাষার নিজস্বতা। সমীক্ষা বলছে, প্রতি ১৫ দিনে একটি করে ভাষা মুছে যাচ্ছে পৃথিবীর বুক থেকে। কয়েকটি ভাষা অবশ্য সরকারি বদান্যতায় স্বমহিমায় ফিরেও এসেছে। যেমন ওয়েলশ, মাওরির মত ভাষা সরকারি আনুকূল্য পেয়েছে।
মাত্র ২ কোটি৭৫ হাজার মানুষ মাতৃভাষায় কথা বললেও সেই ভাষাকে স্বমহিমায় বাঁচিয়ে রেখেছে আইসল্যান্ড।

আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print