বৃহস্পতিবার , ১৬ আগস্ট ২০১৮
মূলপাতা » ক্রিকেট » ট্রান্সফার ফি ৫৬ মিলিয়ন ইউরো!

ট্রান্সফার ফি ৫৬ মিলিয়ন ইউরো!

গত গ্রীষ্মের ট্রান্সফার উইনডোতে মোনাকো থেকে ধার চুক্তিতে রাদামেল ফ্যালকাওকে দলে ভিড়িয়েছে ইংলিশ জায়ান্ট ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। তখন চুক্তির শর্তে বলা হয়েছিল, দামে বনিবনা হলে ম্যানইউ তাকে স্থায়ীভাবেও কিনতে পারবে। সে পথেই হাঁটছে ইংল্যান্ডের ইতিহাসে সবচেয়ে সফল ক্লাবটি। গোল ডটকমের খবর, কলম্বিয়ান স্ট্রাইকারের জন্য ৫৬ মিলিয়ন ইউরো ট্রান্সফার ফি দেবে রেড ডেভিলরা।

গ্রীষ্মের ট্রান্সফার উইনডোর শেষ দিন ৮০ লাখ ইউরোর বিনিময়ে এক মৌসুমের জন্য ফ্যালকাওকে ধারে পায় লুই ফন গালের ম্যানইউ। তার স্থায়ী ট্রান্সফারের দেনদরবার নাকি তখনই বহুলাংশে সেরে ফেলা হয়েছিল! বাকিটা ছিল ম্যানইউর ইচ্ছা-অনিচ্ছার ওপর। শর্ত এমন ছিল, মাঝের সময়টায় ফ্যালকাওয়ের পারফরম্যান্স এবং ফিটনেস নিয়ে ক্লাবটি সন্তুষ্ট হলে তাকে রেখে দিতে পারবে। কাগজে-কলমে করা সেই চুক্তিটাই এখন সক্রিয় হতে যাচ্ছে। ২০ বারের প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়নরা তাকে স্থায়ীভাবে কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

ফ্যালকাওয়ের এজেন্ট হোর্হে মেন্ডেসের সঙ্গে দারুণ সখ্য ম্যানইউর প্রধান নির্বাহী উড এডওয়ার্ডের। মেন্ডেসের মাধ্যমেই ফ্যালকাও নাকি ম্যানইউতে থেকে যাওয়ার কথা বলেছেন। আর এতেই দুই পক্ষের ইচ্ছা পূরণ হতে চলেছে। ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে বর্তমানে সপ্তাহে ৩ লাখ ৫ হাজার ইউরো পারিশ্রমিক পাচ্ছেন ফ্যালকাও। নতুন চুক্তি বাস্তবায়িত হলেও তিনি সেখানে এই পারিশ্রমিকটা পাবেন।

গ্রীষ্মের ট্রান্সফার উইনডোর শেষ মুহূর্তে ধার চুক্তি সম্পন্ন হওয়ায় অনেকের মনে ধোঁয়াশা ছিল। তখন সময় স্বল্পতার জন্যই মূলত ফ্যালকাওকে ধারে নিয়ে আসে রেড ডেভিলরা। কিন্তু সেই চুক্তির পরই স্থায়ী চুক্তি নিয়ে মেন্ডেস, মোনাকো এবং ম্যানইউর মধ্যে আলোচনা চলছিল। তখন যে শর্তগুলোর কথা বলা হয়েছিল তা সব পক্ষই মেনে নেয়ায় এখন স্থায়ীভাবে ম্যানচেস্টারের খেলোয়াড় হতে যাচ্ছেন তিনি। ফ্যালকাওয়ের ইনজুরিও তখন স্থায়ী চুক্তির পথে বাধা ছিল। বিশ্বকাপের আগ মুহূর্তে ইনজুরিতে পড়ায় ব্রাজিলের মাটিতে খেলাই হয়নি কলম্বিয়ার সবচেয়ে বড় তারকার। কিন্তু এখন পূর্ণ ফিট ফ্যালকাওয়ের ওপর ম্যানইউ ভীষণ খুশি।

ফ্যালকাওয়ের চুক্তি সম্পন্ন হলে চলতি মৌসুমে ম্যানইউর খরচটা ২০ কোটি পাউন্ডের কোটায় পৌঁছবে। কেননা এরই মধ্যে তারা ১৫ কোটি পাউন্ড খরচ করে ফেলেছে। গ্রীষ্মে তারা কিনেছে অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া, মার্কো রোহো, লুক শ, ড্যালি ব্লাইন্ড, অ্যান্ডার হেরেরাকে। লুক শ ও হেরেরার জন্য ৭ কোটি ৬০ লাখ ইউরো, ডি মারিয়ার জন্য ৭ কোটি ৬৩ লাখ ইউরো এবং রোহো ও ব্লাইন্ডের জন্য আরো ৪ কোটি ৪০ লাখ ইউরো খরচ করে ইংলিশ জায়ান্টরা। সেই সঙ্গে ধারে যোগ হন ফ্যালকাও। এবার তিনি স্থায়ীভাবেই ‘রেড ডেভিল’ হতে চলেছেন। খরচ নিয়ে অবশ্য খুব বেশি ভাবতে হবে না ফন গালকে। কেননা গত মৌসুমে সপ্তম হওয়ার পর ক্লাবটির ম্যানেজমেন্ট শক্তিশালী দল গড়তে তত্পর হয়। ফন গালকেও বলে দেয়া হয়েছে, তিনি নির্দ্বিধায় পছন্দের খেলোয়াড় কিনতে পারবেন।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে পাঁচ ম্যাচ খেলে এক গোল করেছেন ফ্যালকাও। তবে গত রোববার চেলসির সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র হওয়া ম্যাচটি তিনি খেলতে পারেননি ইনজুরির কারণে। তার সামর্থ্য নিয়ে অবশ্য কারো সংশয় নেই। এফসি পোর্তো ও অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদের হয়ে ইউরোপা লিগ জয় করার কৃতিত্ব দেখিয়েছেন তিনি।

এদিকে ইতালিয়ান চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলভারো মোরাতা বলেছেন, ম্যানইউতে নাম লেখানোর আগ মুহূর্তে তাদের সঙ্গেই কথা চলছিল ফ্যালকাওয়ের এবং তিনি চুক্তি সই করার দ্বারপ্রান্তে চলে গিয়েছিলেন। মোরাতার ভাষ্য, ‘আমরা তাকে অনুসরণ করছিলাম এবং যোগাযোগও ছিল। ফ্যালকাওকে সই করানোর কাছাকাছি চলে গিয়েছিলাম আমরা, কিন্তু সেই মুহূর্তে সামনে এসে হাজির ম্যানইউ। তাদের আর্থিক সক্ষমতা আমাদের চেয়ে ভালো থাকায় চুক্তিটা তাদের পক্ষেই যায়, আমাদের প্রচেষ্টারও অবসান ঘটে।’ গোল ডটকম


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print