বৃহস্পতিবার , ১৯ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » জ্ঞান-বিজ্ঞান » এইচআইভির সংক্রমণ ক্ষমতা কমছে

এইচআইভির সংক্রমণ ক্ষমতা কমছে

প্রাণঘাতী এইডসের কারণ এইচআইভির সংক্রমণ ক্ষমতা কমছে। মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা এর সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেওয়ায় ভাইরাসটি ক্রমশ ‘দুর্বল’ হয়ে কম সংক্রামক ভাইরাসে পরিণত হচ্ছে।’এইচআইভির সংক্রমণ ক্ষমতা কমছে’

এইচআইভি সংক্রমিত হওয়ার পর তা এইডসে রূপান্তরিত হওয়ার ক্ষেত্রে আগের চেয়ে বেশি সময় লাগছে। একসময় ভাইরাসটি মানুষের ক্ষতি করার ক্ষমতা ‘প্রায় হারিয়ে’ ফেলতে পারে।

যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালিত এক গবেষণায় এমন তথ্য উঠে এসেছে।

তবে ক্রমাগত কম ক্ষতিকর হয়ে ওঠলেও ভাইরাসটি এইডসে রূপান্তরের যথেষ্ট ক্ষমতা রাখে বলে সতর্ক করেছেন গবেষকরা।

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ফিলিপ গোল্ডার বলেন, ‘আমরা ভাইরাসটির বিবর্তন লক্ষ্য করছি। বিবর্তনটি এত দ্রুত ঘটছে যে- তা রীতিমতো বিস্ময়কর। ভাইরাসটি এইডস রোগে রূপান্তরিত হওয়ার ক্ষমতাও কমে যাচ্ছে।’

ন্যাচারাল অ্যাকাডেমি অব সায়েন্সেস সাময়িকীতে প্রকাশিত এ গবেষণায় আরো বলা হয়, এইডস প্রতিরোধে ব্যবহৃত বিভিন্ন প্রতিষেধকও এইচআইভিকে কম ক্ষতিপূর্ণ অবস্থার দিকে বিবর্তিত হওয়ার ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখছে।

এ বিষয়ে যুক্তরাজ্যের নটিংহ্যাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক জনাথন বিল বলেন, ‘ভাইরাসটির বর্তমান প্রবণতা অব্যাহত থাকলে আমরা হয়তো এইডসের বৈশ্বিক চিত্র পরিবর্তিত হতে দেখব। পরিবর্তিত সেই অবস্থায় হয়তো এমন মানবজাতি আমরা দেখতে পাব; যারা বর্তমানের তুলনায় এইচআইভি প্রতিরোধে আরও শক্তিশালী।’

তবে এধরনের বিবর্তন ঘটতে অনেক সময় লাগবে বলেও জানান এ অধ্যাপক।

প্রায় ৩ দশক আগে বিশ্বে ব্যাপক আকারে এইডস দেখা দেয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত সাড়ে ৩ কোটি মানুষ এইচআইভিতে সংক্রমিত হয়েছেন। তবে তাদের সবারই এইডস হয়েছে- এমনটি নয়।

সাধারণত সংক্রমিত হওয়ার পর ভাইরাসটি মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার ধংস করতে চেষ্টা করে। তখন মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার সঙ্গে এর লড়াই হয়। এতে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা হেরে গেলে ভাইরাসটি এক পর্যায়ে এইডসে রূপান্তরিত হয়। তখন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা হারিয়ে মানুষ যে কোনো রোগে আগের চেয়ে দ্রুত কাবু হয়। এভাবে মানুষকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয় ভাইরাসটি।

তবে গবেষণায় প্রাপ্ত ফল এবং এইচআইভি আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিতে আসা মানুষের সংখ্যা এ বছর কমায় ভাইরাসটি নিয়ন্ত্রণে গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি হচ্ছে বলে ধারণা বিশেষজ্ঞদের। খবর বিবিসির


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print