রবিবার , ২২ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » অন্যান্য » অবমাননার দায়ে সাংবাদিক বার্গম্যানের সাজা

অবমাননার দায়ে সাংবাদিক বার্গম্যানের সাজা

bargmanআদালত অবমাননার দায়ে বাংলাদেশে বসবাসরত ব্রিটিশ সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যানকে দোষী সাব্যস্ত করেছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২। আজ মঙ্গলবার আদালতের কার্যক্রম শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাঁকে কারাদণ্ডের নির্দেশ দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল। ওই সময় পর্যন্ত তাঁকে এজলাসে দাঁড়িয়ে থাকতে হবে।

আজ মঙ্গলবার বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বে গঠিত তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২ এ দণ্ড দেন। দণ্ডের সঙ্গে বার্গম্যানের পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। অনাদায়ে তাঁকে সাত দিনের কারাদণ্ড দেওয়া হবে।

বার্গম্যানের স্ত্রী ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সারাহ হোসেন প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘আমরা মনে করি, ট্রাইব্যুনালের এ রায় মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ওপর একটি চরম আঘাত। তার কারণ, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ছিল মুক্তবুদ্ধি, মুক্তচিন্তা ও বাকস্বাধীনতার অধিকার। সেখানে এ রায় দিয়ে ভিন্ন মত প্রকাশের অধিকারকে রুদ্ধ করা হয়েছে।’

বার্গম্যানের আইনজীবী মোস্তাফিজুর রহমান খান বলেন, রায়ের অনুলিপি পেলে তাঁরা পরবর্তী করণীয় ঠিক করবেন। এর কারণ ট্রাইব্যুনালের আইনে আদালত অবমাননার দায়ে দোষী সাব্যস্ত হলে আপিল করার কোনো সুযোগ নেই।

বার্গম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগকারী আবুল কালাম আযাদের আইনজীবী মিজান সাঈদ বলেন, এ রায়ে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে যে সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যান তাঁর লেখার মধ্য দিয়ে আদালতের অবমাননা করেছেন।

মুক্তিযুদ্ধকালে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে প্রশ্ন তুলে নিজস্ব ব্লগে করা মন্তব্যের বিষয়ে এ বছরের ২০ ফেব্রুয়ারি ডেভিড বার্গম্যানের কাছে ব্যাখ্যা চান ট্রাইব্যুনাল। সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী আবুল কালাম আযাদ এ-সংক্রান্ত আবেদন করলে ট্রাইব্যুনাল ওই ব্যাখ্যা চান। আবেদনে জানানো হয়, বার্গম্যানের নিজস্ব ব্লগে (বাংলাদেশ ওয়ারক্রাইমস ডট ব্লগস্পট ডটকম) তিনটি লেখায় মুক্তিযুদ্ধকালে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে। এগুলো হচ্ছে: ‘আযাদ জাজমেন্ট অ্যানালাইসিস ১: ইন অ্যাবসেন্সিয়া ট্রায়ালস অ্যান্ড ডিফেন্স ইনএডেকোয়েসি’, ‘আযাদ জাজমেন্ট অ্যানালাইসিস ২: ট্রাইব্যুনাল অ্যাসাম্পশন’ এবং ‘সাঈদী ইনডাইক্টমেন্ট: ১৯৭১ ডেথস’। পরে ট্রাইব্যুনালের আদেশ অনুসারে বার্গম্যান এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিলে এর ওপর শুনানি হয়।

সাংবাদিক বার্গম্যানের বিরুদ্ধে এর আগেও আদালত অবমাননার অভিযোগ উঠেছিল। ২০১১ সালের ১ অক্টোবর নিউ এজ-এ ‘অ্যা ক্রুসিয়াল পিরিয়ড ফর আইসিটি’ শিরোনামের প্রতিবেদনের জন্য ডেভিড বার্গম্যান, পত্রিকাটির সম্পাদক সম্পাদক নুরুল কবির ও প্রকাশক আ স ম শহীদুল্লাহ খানের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগে রুল জারি করেন ট্রাইব্যুনাল-১। ২০১২ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি ওই রুল নিষ্পত্তি করে দেওয়া আদেশের সময় ট্রাইব্যুনাল বার্গম্যানকে ‘সর্বোচ্চ সতর্ক’ করে দিয়ে বলেন, ওই প্রতিবেদনের একটি অংশ ‘অত্যন্ত অবমাননাকর।’


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print