শুক্রবার , ২০ জুলাই ২০১৮
মূলপাতা » কলেজ » বেরোবিতে ৬ বিভাগের কোন বই নেই!

বেরোবিতে ৬ বিভাগের কোন বই নেই!

rokeya_14692প্রতিষ্ঠার ৭ বছর পরও রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারে ২১ বিভাগের মধ্যে ছয়টি বিভাগের কোনো বই নেই বলে জানা গেছে।  বারবার তাগাদা দিয়েও কোন লাভ হয়নি বলে অভিযোগ শিক্ষার্থীদের।
বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার সূত্রে জানা যায়, ইলেকট্রনিক্স এ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা, লোকপ্রশাসন, ফিন্যান্স এ্যান্ড ব্যাংকিং ও উইমেন এ্যান্ড জেন্ডার স্টাডিজ বিভাগের কোনো বইপত্র এখন পর্যন্ত কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারে সরবরাহ করা হয়নি।
বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের দ্বিতীয় ব্যাচের শিক্ষার্থী কামরুল ইসলাম জানান, ‘আমাদের বিভাগের বই রংপুর শহরের লাইব্রেরিগুলোতে সচরাচর পাওয়া যায় না।  আবার আমাদের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিতেও কোনো বই নেই।  আমাদেরকে সবসময় নেটের উপর নির্ভর করতে হয়। ’
এ ছাড়াও ইলেকট্রনিক্স এ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, লোকপ্রশাসন, ফিন্যান্স এ্যান্ড ব্যাংকিং ও উইমেন এ্যান্ড জেন্ডার স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষার্থীরাও কামরুলের  মতো একই অভিমত ব্যক্ত করেছেন।
অপরদিকে গণিত বিভাগের শিক্ষার্থী মঞ্জুরুল ইসলাম ও রসায়ন বিভাগের শিক্ষার্থী শাফিউর রহমান বলেন, ‘আমাদের স্বল্প সংখ্যক বই কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারে রয়েছে।  লাইব্রেরি বাবদ আমাদের কাছ থেকে প্রতি সেমিস্টারে টাকা নেওয়া হলেও প্রয়োজনীয় বই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন সরবরাহ করছে না। ’
এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রভাষক তাবিউর রহমান জানান, ‘আমরা একাধিকবার লিখিত ও মৌখিকভাবে সেন্ট্রাল লাইব্রেরিতে বই সরবরাহের জন্য চাহিদা দিয়েছিলাম।  কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন তা কোনোভাবেই গায়ে লাগাচ্ছেন না। ’
বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সহকারী পরিচালক আব্দুস সামাদ প্রধান বলেন, ‘যেসব বিভাগ ১১-১২ শিক্ষাবর্ষে চালু হয়েছে, শুধু তাদের কোনো বই এখানে নেই।  তবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন খুব শিগগিরই ওই বিভাগের বইপত্র এখানে সরবরাহ করবেন বলে জানিয়েছেন। ’
তিনি আরও বলেন, ‘অনেক শিক্ষার্থী আমাদের বইয়ের সেলফ দেখে মনে করতে পারেন যে এখানে বই খুবই কম।  কিন্তু তা নয়।  আমরা ৪০% বই সেলফে রাখি আর ৬০% বই নিচে ইস্যু করার জন্য রেখে দেই। ’
ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি আরও বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের এই গ্রন্থাগারে প্রতিবছর কত টাকা বাজেট হয় তা এখনো আমি জানিই না।  তবে তা আমারও জানা প্রয়োজন। ’
বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের পরিচালক অধ্যাপক ড. মতিউর রহমান বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির জন্য কি পরিমাণ বাজেট আসে তা আমিও জানি না।  তবে যে সব বিভাগের বই গ্রন্থাগারে নাই তা দ্রæত আনা হবে বলে উপাচার্য জানিয়েছেন। ’
বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. একেএম নূর উন নবী বলেন, ‘আমরা কম সময়ে অনেক বই কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারে সরবরাহ করেছি।  সামনে আরও কিছু বই কেনার জন্য অর্ডারও করেছি। ’

আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print