শুক্রবার , ২০ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » প্রধান খবর » পোপের ‘চুম্বনে’ ক্যান্সারমুক্ত কিশোরী!

পোপের ‘চুম্বনে’ ক্যান্সারমুক্ত কিশোরী!

pope_gracie_14752পোপ ফ্রান্সিসের ‘স্নেহ চুম্বনে’ ক্যান্সার থেকে সেরে উঠেছে ১২ বছরের এক কিশোরী।  এমনটাই বিশ্বাস করছেন আমেরিকার নিউ জার্সির মানুষ।
‘নিউরোব্লাস্টমা’ নামে জটিল ক্যান্সারে আক্রান্ত গ্র্যাসি।  চিকিৎসকরা পর্যন্ত হাল ছেড়ে দিয়েছিলেন।  বাঁচবে না এমনটাই আশঙ্কা করছিল বাবা-মা, আত্মীয়-স্বজন ও প্রতিবেশীরা।
কিন্তু খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের রোমান ক্যাথলিক মতের অনুসারীদের প্রধান ধর্মগুরু পোপের একটি ‘স্নেহ চুম্বন’ বদলে দিয়েছে গোটা ভাবনা।  ঘন কালো অন্ধকার থেকে জীবনে ফিরতে শুরু করল গ্র্যাসির।
গ্র্যাসির চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, গ্র্যাসির শরীরের ক্যান্সার কোষ আস্তে আস্তে কমতে শুরু করেছে, যা সাধারণত জটিল কেমোথেরাপির পর হতে দেখা যায়।
গত ২৬ ডিসেম্বর নিউজার্সি সফরে যান পোপ ফ্রান্সিস।  পরদিন সেখানে স্থানীয় এক গির্জায় প্রার্থনার সময় গ্রাসীকে তার সামনে নিয়ে আসেন তার বাবা-মা।  সেদিন তাদের ইচ্ছায় পোপ গ্র্যাসির কপালে এঁকে দিয়েছিলেন স্নেহচুম্বন।  আর এই চুম্বনেই ক্যান্সারমুক্ত হতে শুরু করেছে শিশুটি।
গ্র্যাসির বাবা ড্যানভার জনাথন বলেন, ‘চিকিৎসাবিজ্ঞান প্রায় হাল ছেড়ে দিয়েছিল।  আমার মেয়ে বাঁচবে না এমন কথা বলে দিয়েছিল তারা।  কিন্তু ছোট্ট গ্র্যাসির জীবনে ঘনিয়ে আসা সব কালোমেঘ দূর করে দিয়েছে একটা ‘স্নেহ চুম্বন’। ’
এদিকে পোপের এই ‘স্নেহচুম্বন’কে ঘিরে বিতর্কেরও সৃষ্টি হয়েছে বেশ।  অনেকেই এটিকে ‘মিথ্যা ও বুজরুকি’ খবর বলে আখ্যা দিয়েছে।
পোপের চুম্বনে ক্যান্সার মুক্তির ঘটনা নিয়ে যতই দ্বিধা বিভক্ত হোক নিউজার্সির মানুষের কাছে ধর্মীয় বিশ্বাস, ঈশ্বরই প্রাণ ফিরিয়ে দিয়েছেন ছোট্ট মেয়ে গ্র্যাসির।
সূত্র: ডেইলি মেইল

আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print