রবিবার , ২২ জুলাই ২০১৮
মূলপাতা » ফুটবল » ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির স্ত্রী মারা গেছেন

ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির স্ত্রী মারা গেছেন

শুভ্রা মুখার্জিভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির স্ত্রী শুভ্রা মুখার্জি মারা গেছেন। মঙ্গলবার সকাল ১০টা ৫১ মিনিটে নয়াদিল্লির একটি হাসপাতালে শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

টাইমস অব ইন্ডিয়া, ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস ও জিনিউজ অনলাইনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বেশ কিছুদিন তিনি শ্বাসপ্রশ্বাসজনিত রোগে ভুগছিলেন। ৭ আগস্ট তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে নেওয়া হয় তাকে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির সহধর্মিণী শুভ্রা মুখার্জির পৈতৃক বাড়ি বাংলাদেশের নড়াইল জেলার চিত্রা নদীপারের ভদ্রবিলা গ্রামে। প্রণব মুখার্জি রাষ্ট্রপতি হওয়ার পর ২০১৩ সালের ৫ মার্চ শুভ্রা মুখার্জিকে সঙ্গে নিয়ে নড়াইলে বেড়াতে আসেন।

ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবন থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, গভীর অনুতাপের সঙ্গে জানানো যাচ্ছে, আজ সকালে (১৮ আগস্ট, ২০১৫) শ্রীমতী শুভ্রা মুখার্জি ইহধাম ত্যাগ করেছেন। সকাল ১০টা ৫১ মিনিটে স্বর্গধামে পাড়ি দিয়েছেন তিনি।’

১৭ সেপ্টেম্বর ১৯৪০ সালে (টাইমস অব ইন্ডিয়া তথ্য অনুযায়ী) বাংলাদেশের যশোর জেলায় (বর্তমানে নড়াইল) জন্ম গ্রহণ করেন শুভ্রা মুখার্জি। নড়াইল শহরসংলগ্ন ভদ্রবিলা গ্রামে বাবা অমরেন্দ্র ঘোষ ও মা মীরা রানী ঘোষের ঘরে জন্মগ্রহণ করেন শুভ্রা ঘোষ। প্রণব মুখার্জির সঙ্গে বিয়ের পর ‘শুভ্রা মুখার্জি’ হিসেবে পরিচিতি পান তিনি। শুভ্রা মুখার্জির শৈশবের কিছুটা সময় কেটেছে ভদ্রবিলায়, আর কিছুটা কেটেছে মামাবাড়ি নড়াইল সদরের তুলারামপুর গ্রামে। পরিবারের সদস্যরা শুভ্রাকে ডাকতেন ‘গীতা’ নামে। তুলারামপুরে মামাবাড়ি থেকে প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত পড়েন তিনি। এরপর শুভ্রা চলে যান কলকাতা। তখন তার বয়স ছিল ১০ বছর। উল্লেখ্য, শুভ্রার ভাই-বোনের মধ্যে শুধু কানাইলাল ঘোষ (৬৮) বর্তমানে ভদ্রবিলায় বসবাস করেন।

স্নাতক ডিগ্রিধারী শুভ্রা ভারতের জাতীয় কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গানের পাগল ছিলেন। বর‌ীন্দ্রসংগীত শিল্পী হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন। এ ছাড়া রবীন্দ্রনাথের নাটকে বহুবার তাকে মঞ্চে দেখা গেছে। আজীবন সংগীত ও শিল্পচর্চার সঙ্গে জড়িয়ে ছিলেন। এশিয়া, ইউরোপ ও আমেরিকার বিভিন্ন দেশে তিনি পারফর্ম করেছেন।

রবীন্দ্রনাথের সৃষ্টিকর্ম ও আদর্শ বিশ্বদরবারে আরো ছড়িয়ে দিতে শুভ্রা প্রতিষ্ঠা করেন ‘গীতাঞ্জলি ত্রৌপি’। আমৃত্যু তিনি এ প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ছিলেন।

 

শুধু সংগীত ও অভিনয়ে নয়, শুভ্রার খ্যাতি ছিল চিত্রশিল্পী হিসেবেও। তার আঁকা অসংখ্য ছবি রয়েছে। অনেকবার তার ছবির প্রদর্শনী হয়েছে।

 

শুভ্রার লেখা দুটি বই রয়েছে- চোখের আলোয়চেনা অচেনায় চীনচোখের আলোয় বইটিতে ইন্দিরা গান্ধীর সঙ্গে তার ব্যক্তিগত সম্পর্ককে গুরুত্ব দিয়ে সেই সময়ের গল্প বলেছেন। আর চীন ভ্রমণের অভিজ্ঞতার আলোকে লিখেছেন চেনা অচেনায় চীন

 

বহুমুখী গুণের অধিকারী শুভ্রা ছিলেন প্রণব মুখার্জির অনুপ্রেরণার উৎস। রাজনৈতিক ঘাত-প্রতিঘাতের সময় তাকে সাহস জুগিয়েছেন শুভ্রা।

 

শুভ্রা ও প্রণব মুখার্জির দুই ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। দুই ছেলে অভিজিত মুখার্জি ও ইন্দ্রজিৎ মুখার্জি এবং মেয়ের নাম শর্মিষ্ঠা মুখার্জি। পাঁচ সদস্যের সংসার ছেড়ে চলে গেছেন একজন, শুভ্রা।

 

 


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print