শুক্রবার , ২৭ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » কলেজ » ১২০ নম্বর পেলেই মেডিকেলে ভর্তির সুযোগ

১২০ নম্বর পেলেই মেডিকেলে ভর্তির সুযোগ

মেডিক্যালসরকারি-বেসরকারি মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজে ভর্তির শর্ত শিথিল করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। চলতি বছর মোট ১২০ নম্বর পেলেই শিক্ষার্থীরা ভর্তির সুযোগ পাবেন। তবে ১০০ নম্বরের লিখিত ভর্তি পরীক্ষায় বাধ্যতামূলকভাবে ৪০ নম্বর পেতেই হবে। গত বছর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় মোট ২০০ নম্বরের মধ্যে (এসএসসি ও এইচসি পরীক্ষার প্রাপ্ত মোট নম্বরের ওপর ১০০ ও ভর্তি পরীক্ষা ১০০) ভর্তি পরীক্ষায় ৪০ নম্বরসহ মোট ১৪০ নম্বর পাওয়ার বাধ্যবাধকতা বেঁধে দিয়েছিল।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এ সিদ্ধান্তের ফলে গত বছর বেসরকারি মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজের অনেক আসন শূন্য ছিল। সম্প্রতি বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ অ্যাসোসিয়েশন (বিপিএমসিএ) মোট নম্বর কমিয়ে দেয়ার আবেদন করলে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় মোট নম্বর ১৪০ থেকে কমিয়ে ১২০ নম্বর নির্ধারণ করে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একাধিক নির্ভরযোগ্য সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, আগামী ১৮ সেপ্টেম্বর মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজের ভর্তি পরীক্ষার নতুন তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে। এদিন স্বাস্থ্য অধিদফতরের অধীনে কেন্দ্রীয়ভাবে রাজধানীসহ সারাদেশে ১০০ নম্বরের অভিন্ন প্রশ্নপত্রে সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের সভাপতিত্বে অনু্ষ্ঠিত ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত এক সভায় ২ অক্টোবর ভর্তি পরীক্ষার তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছিল।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (চিকিৎসা শিক্ষা ও জনশক্তি উন্নয়ন) অধ্যাপক এ বি এম আবদুল হান্নান জাগো নিউজকে জানান, ওই সময় ঈদুল আজহার ছুটি পড়ে যাওয়ায় তারিখ পুনঃনির্ধারণ করা হয়েছে। তিনি জানান, বুধবার থেকে অনলাইনে আবেদন গ্রহণ শুরু হবে। ১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত (রাত ১১টা ৫৯ মিনিট) আবেদনপত্র জমা দেয়া ও ২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত (রাত ১১টা ৫৯ মিনিট) আবেদনের টাকা অনলাইনে গ্রহণ করা হবে। ১৪ সেপ্টেম্বর থেকে প্রবেশপত্র বিতরণ শুরু হবে।

চলতি বছর ভর্তির শর্ত হিসেবে বলা হয়, ২০১২ ও ২০১৩ সালে এসএসসি ও ২০১৪ ও ২০১৫ সালে এইচএসসি বা সমমানের (পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন ও জীববিজ্ঞানসহ) পরীক্ষায় পাস করেছেন তারা ভর্তির  আবেদন করার যোগ্য হবেন। দুটি পরীক্ষায় জিপিএ-৮ পেতে হবে তবে কোনো পরীক্ষায় তিন দশমিক পাঁচ এর কম হলে আবেদনের যোগ্য হবেন না। সকল উপজাতীয় ও পার্বত্য এলাকার অউপজাতীয় প্রার্থীদের ক্ষেত্রে এসএসসিও এইচএসসি পরীক্ষায় মোট জিপিএ-৭ থাকতে হবে। এককভাবে কোনো পরীক্ষায় তিন এর কম পেলে চলবে না। লিখিত পরীক্ষায় প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য দশমিক ২৫ নম্বর কর্তন করা হবে।

২০১৪-২০১৫ শিক্ষাবর্ষে সরকারি মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজে ভর্তিরতদের কেউ চলতি বছর ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করলে তাদের পাঁচ নম্বর কেটে নেয়া হবে। পরীক্ষা ফিসের টাকা প্রিপেইড টেলিটকের মাধ্যমে ৭৫০ টাকা জমা দিতে বলা হয়েছে।

দেশে বর্তমানে ২৯ সরকারি মেডিকেল কলেজে তিন হাজার ১৬২টি আসন ও প্রাইভেট মেডিকেল কলেজে পাঁচ হাজার ৩২৫টি আসন রয়েছে। এছাড়া সরকারি ৯টি সরকারি ডেন্টাল কলেজ ও ইউনিটে বিডিএস কোর্সে ৫৩২টি ও ২৪ প্রাইভেট ডেন্টাল কলেজে এক হাজার ২৮০টি আসন রয়েছে।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print