রবিবার , ২২ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » প্রধান খবর » জনকণ্ঠের সম্পাদককে রোববারের মধ্যে জবাব দাখিলের নির্দেশ

জনকণ্ঠের সম্পাদককে রোববারের মধ্যে জবাব দাখিলের নির্দেশ

high Court-1425281152বিচার বিভাগ নিয়ে আদালত অবমাননামূলক কলাম প্রকাশ করায় দৈনিক জনকণ্ঠের সম্পাদক ও প্রকাশক আতিকউল্লাহ খান মাসুদ ও নির্বাহী সম্পাদক স্বদেশ রায়কে রোববারের মধ্যে জবাব দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট।

সোমবার সকাল ৯টা ১৫ মিনিটে তাদের পক্ষে সময় আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে জনকণ্ঠের পক্ষে তিন মাসের সময় আবেদন করেন অ্যাডভোকেট সালাউদ্দিন দোলন। কিন্তু আপিল বিভাগ জবাব দাখিল করতে রোববার পর্যন্ত সময় দেন।

রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। এ ছাড়া দৈনিক জনকণ্ঠ  পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক আতিকউল্লাহ খান মাসুদ ও নির্বাহী সম্পাদক স্বদেশ রায় উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত ২৯ জুলাই মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে সাকা চৌধুরীর ফাঁসির রায় ঘোষণার দিন তাদের দুজনকে আজ আপিল বিভাগে হাজির হয়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছিল।

প্রসঙ্গত, চলতি মাসের ১৬ জুলাই ‘সাকার পরিবারের তৎপরতা ॥ পালাবার পথ কমে গেছে’ শিরোনামে একটি কলাম প্রকাশ করে দৈনিক জনকণ্ঠ। যার লেখক পত্রিকাটির নির্বাহী সম্পাদক স্বদেশ রায়।

ওই কলামের এক অংশে বলা হয়, ‘’৭১-এর অন্যতম নৃশংস খুনি সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী। নিষ্পাপ বাঙালি রক্তে যে গাদ্দারগুলো সব থেকে বেশি হোলি খেলেছিল এই সাকা তাদের একজন। এই যুদ্ধাপরাধীর আপিল বিভাগের রায় ২৯ জুলাই। পিতা মুজিব! তোমার কন্যাকে এখানেও ক্রশে পিঠ ঠেকিয়ে দাঁড়িয়ে থাকতে হচ্ছে। তাই যদি না হয়, তাহলে কিভাবে যারা বিচার করছেন সেই বিচারকদের একজনের সঙ্গে গিয়ে দেখা করে সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর পরিবারের লোকেরা? তারা কোন পথে বিচারকের কাছে ঢোকে, আইএসআই ও উলফা পথে না অন্য পথে? ভিকটিমের পরিবারের লোকদেরকে কি কখনও কোন বিচারপতি সাক্ষাত দেয়। বিচারকের এথিকসে পড়ে! কেন শেখ হাসিনার সরকারকে কোন কোন বিচারপতির এ মুহূর্তের বিদেশ সফর ঠেকাতে ব্যস্ত হতে হয়। যে সফরের উদ্যোক্তা জামায়াত-বিএনপির অর্গানাইজেশন। কেন বিতর্কিত ব্যবসায়ী আগে গিয়ে সেখানে অবস্থান নেয়। কী ঘটতে যাচ্ছে সেখানে। ক্যামেরনই পরোক্ষভাবে বলছেন সকল সন্ত্রাসীর একটি অভয়ারণ্য হয়েছে লন্ডন।’

সাকা চৌধুরীর রায়ের পরে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, বিচার বিভাগ নিয়ে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে দৈনিকজনকণ্ঠে। যাতে বিচার বিভাগ সম্পর্কে কুৎসা রটনামূলক লেখা হয়েছে। এটা আদালতকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য। এ কারণে আদালত তাদের বিরুদ্ধে কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না, তা জানতে চেয়ে সুয়োমোটো রুল জারি করেছেন।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print