শুক্রবার , ২২ জুন ২০১৮
মূলপাতা » বিশ্ববিদ্যালয় » এনবিআরে বদলির হিড়িক

এনবিআরে বদলির হিড়িক

NBR২০১৫-১৬ অর্থবছরের ১ লাখ ৭৬ হাজার ৩৭০ কোটি টাকার বিশাল অংকের রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। এতো রাজস্ব আদায় নিশ্চিত করতে নানা পদক্ষেপ নিচ্ছেন এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান। এর অংশ হিসেবে চলছে গণবদলি। দুই দিনে প্রায় দুইশ কর্মকর্তাকে বদলি ও পদোন্নতি দেয়া হয়েছে।

এনবিআর সূত্র জানিয়েছে, গত দুই দিনে কর বিভাগের এবং শুল্ক, আবগারি ও মূসক বিভাগের ১৯০ জন কর্মকর্তার রদবদল ও পদোন্নতি দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে গতকাল রোববার ১৭০ জন এবং সোমবার ২০ জন কর্মকর্তার রদবদল ও পদোন্নতি দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এদের বেশির ভাগকেই ঢাকা ও চট্টগ্রামের বাইরে বদলি করা হয়েছে। আর সাধারণত এসব বদলি আদেশ রাতেই প্রজ্ঞাপন আকারে জারি করা হয় বলে জানান সেই সূত্র।

দুই দিনে এতো কর্মকর্তার রদবদল সম্পর্কে জানতে চাইলে এনবিআরের প্রশাসন শাখার এক কর্মকর্তা বলেন, ‘বর্তমান চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান দায়িত্ব গ্রহণের পর দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের চিহ্নিত করতে কাজ শুরু করেন। আর বিষয়টি টের পেয়ে দীর্ঘদিন থেকে ঢাকা ও চট্টগ্রামসহ লোভনীয় স্থানে থাকা দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তারাও শুরু করেন ব্যাপক তদবির। তাই এরকম একটি সিদ্ধান্তের বিষয়ে বৈঠকের খবর আগে প্রকাশ হলে তদবিরের কারণে অফিস করা মুশকিল হতো। যে কারণে সভা শেষ করে কখনোবা রাতেই প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। যাতে আর তদবিরের সুযোগ না থাকে।’

এজন্য দুই দিনের মধ্যে কর্মস্থল পরিবর্তন করা হয়েছে ১৯০ জন কর্মকর্তার। দু’একদিনের মধ্যে এনবিআরের উচ্চপর্যায়ে আরো রদবদল হতে পারে বলেও জানান তিনি।

এনবিআর সূত্র জানায়, সদ্য বদলিকৃতদের মধ্যে ঢাকা কাস্টম হাউসের ১৮ জন কর্মকর্তা, চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের ২১ জন কর্মকর্তা, খুলনা ও যশোর কাস্টম হাউসগুলোর ৮ জন কর্মকর্তা এবং ঢাকা কাস্টমস ও বন্ড কমিশনারেট অফিস থেকে ১১ জন ও চট্টগ্রামের কাস্টমস ও বন্ড কমিশনারেট অফিস থেকে ১ জন কর্মকর্তা রয়েছেন।

সেই সঙ্গে ঢাকা কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেটের অফিস থেকে ৪৭ জন কর্মকর্তা, চট্টগ্রামের ৭জন কর্মকর্তা, কুমিল্লা ও সিলেট অফিসের ১৯ কর্মকর্তা, রাজশাহী, রংপুর, যশোর ও খুলনা অফিসের ২২ জন কর্মকর্তা এবং শুল্ক গয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরসহ অন্যান্য শাখার ২০ জন কর্মকর্তার রদবদল করা হয়েছে।

এছাড়া ২ জন অতিরিক্ত কমিশনার থেকে কমিশনার পদে পদোন্নতি, ৬ জন কমিশনারকে সদস্য পদে পদোন্নতি এবং ৮ জন কর কমিশনারকে বিভিন্ন জায়গায়গায় রদবদল করা হয়েছে।

বিভিন্ন জায়গায় বদলিকৃত ঢাকা কাস্টম হাউসের ১৮ জন কর্মকর্তা হলেন: মো. নাজির আহমেদ অলক, হারুনুর রশীদ, মো. মাজিদুল ইসলাম, মো. আবুল হাসান সিদ্দিক, সমীর কুমার বসু, মো. মোসলে উদ্দিন ভূইয়, এবিএম সালাউদ্দিন, সুবাশ চন্দ্র কুন্ডু, আকম আলী আসগা্র, বেগম রাফিয়া খানম, শেখ মো. আসলাম, নজরুল ইসলাম ভূইয়া, একেএম বারিকুজ্জামান, মো. হেলাল উদ্দিন, মো. কারুল ইসলাম, মো. নজরুল ইসলাম , মো. রফিকুল ইসলাম এবং সাকাওয়াত হোসেন।

অপরদিকে ঢাকা কর অঞ্চল-১ এর অতিরিক্ত কর কমিশনার মোহাম্মদ জাহিদ হাছান ও কর অঞ্চল-২ এর অতিরিক্ত কর কমিশনার মো. রেজাউল করিম চৌধুরীকে কর কমিশনার পদে পদোন্নতি দেয়া হয়েছে। একইভাবে পদায়ন করা হয়েছে খুলনা কর অঞ্চলের কর কমিশনার রাধেশ্যাম রায়কে, বিসিএস কর একাডেমির মহাপরিচালক রঞ্জন কুমার ভৌমিককে ও বরিশাল কর অঞ্চলের কর কমিশনার মো. আব্দুল বাতেনকে ঢাকা কর আপিলাত ট্রাইবুনালের সদস্য হিসেবে। আবার ঢাকা কর আপিলাত ট্রাইবুনালের সদস্য থেকে সাজ্জাদ হোসেন ভুইয়াকে কর কমিশনার হিসেবে কর আপিল অঞ্চল-৩ এ, মো. হারুন অর রশিদকে ময়মনসিংহ কর অঞ্চলে এবং খন্দকার মো. ফেরদৌস আলমকে বিসিএস কর একাডেমীর মহাপরিচালক হিসেবে বদলি করা হয়েছে।

সেই সঙ্গে রদবদল করা হয়েছে- রাজশাহী কর অঞ্চলের কর কমিশনার সুনীল কুমার সাহাকে খুলনা কর অঞ্চলে, চট্টগ্রাম কর অঞ্চল-১ কর কমিশনার মো. দবির উদ্দিনকে রাজশাহী কর অঞ্চলে, চট্টগ্রাম কর অঞ্চল-২ কর কমিশনার অপুর্ব কান্তি দাসকে চট্টগ্রাম কর অঞ্চল-১ এ, চট্টগ্রাম কর অঞ্চল-৪ করকমিশনার প্রদ্যুত কুমার সরকারকে চট্টগ্রাম কর অঞ্চল-১ এ , ময়মনসিংহ কর অঞ্চলের কর কমিশনার বেগম হুমাইরা সাইদাকে ঢাকা কর অঞ্চল-৪ এ, কুমিল্লা কর অঞ্চলের কর কমিশনার মো. মোতাহার হোসেনকে চট্টগ্রাম কর অঞ্চল-৪ এ, ঢাকা কর অঞ্চল-১ অতিরিক্ত করকমিশনার মোহাম্মদ জাহিদ হাছানকে বরিশাল কর অঞ্চলে এবং ঢাকা কর অঞ্চল-২ অতিরিক্ত কর কমিশনার মো. রেজাউল করিম চৌধুরী কুমিল্লা কর অঞ্চল কর কমিশনার হিসেবে বদলি করাসহ অন্যান্য বিভাগীয় ও জেলা শাখার মোট কর বিভাগের এবং শুল্ক, আবগারী ও ভ্যাট বিভাগের ১৯০ জন কর্মকর্তাকে রদবদল করা হয়েছে।

এই দ্রুত পদোন্নতির বিষয়ে জানতে চেয়ে এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমানের ব্যক্তিগত মোবাইল নম্বরে বারবার যোগাযোগ করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print