রবিবার , ২২ জুলাই ২০১৮
মূলপাতা » টেনিস » মন্ত্রিসভায় নতুন ৭ মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী, কাল শপথ

মন্ত্রিসভায় নতুন ৭ মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী, কাল শপথ

minister

ঈদের আগেই মন্ত্রিসভায় রদবদল হচ্ছে। এতে পুরাতন কয়েকজন বাদ ও নতুন কয়েকজন অন্তর্ভুক্ত হচ্ছেন।

সোমবার সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মন্ত্রিপরিষদের নিয়মিত বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়াকে একান্তে ডেকে এ বিষয়ে নির্দেশনা দিয়েছেন বলে বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে তার কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার ৬৯তম বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সূত্র জানায়, আগামীকাল মঙ্গলবার বিকেল ৫টায় নতুন মন্ত্রীদের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠিত হতে পারে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে মন্ত্রিসভায় স্থান পেতে পারেন এমন বেশ কয়েকজনকে ঢাকার বাইরে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। এমনিক যারা মন্ত্রিসভায় স্থান পেতে যাচ্ছেন তাদের ঢাকায় চলে আসারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

মন্ত্রিপরিষদ বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে যারা মন্ত্রী হতে যাচ্ছেন এ রকম সম্ভাব্য কয়েকজনের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হয়েছে। রাজধানীর বাইরে অবস্থান করা একজন সাংসদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

পাবর্ত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক সংসদীয় কমিটির সভাপতি র আ ম উবায়দুল মোক্তাদির, সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য তারানা হালিম, চট্টগ্রামের আওয়ামী লীগ নেতা ও প্রাক্তন সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম বিএসসিকে সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে ঢাকায় থাকতে বলা হয়েছে। এ তিনজনের মধ্যে উবায়দুল মোক্তাদির ঢাকার বাইরে ছিলেন। নির্দেশনা পাওয়ার পর তিনি আজ ঢাকায় ফেরেন।

তারানা হালিম মন্ত্রিসভায় স্থান পাওয়ার খবর একজন বেসরকারি টিভি চ্যানেলের ব্যবস্থাপককে নিশ্চিত করেছেন।

এ ছাড়াও আওয়ামী লীগের আর্ন্তজাতিক বিষয়ক সম্পাদক ও প্রাক্তন বাণিজ্য মন্ত্রী কর্নেল (অব.) মুহাম্মদ ফারুক খান, প্রাক্তন খাদ্য মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ড. আবদুর রাজ্জাক, প্রাক্তন পররাষ্ট্র মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মনি, ফজলে নূর তাপস ও খালিদ মাহমুদ চৌধুরী মন্ত্রিপরিষদে স্থান পেতে পারেন।

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার সৈয়দ আশরাফুল ইসলামকে স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয় থেকে অব্যাহতি দেওয়ার পর থেকেই মন্ত্রিসভায় রদবদলের গুঞ্জন জোরালো হয়ে ওঠে। এরপরই সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে ঈদের আগেই মন্ত্রিপরিষদে রদবদলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

গত ৯ জুলাই স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে সৈয়দ আশরাফকে দপ্তরবিহীন মন্ত্রী করা হয়। একই দিন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেনকে দেওয়া হয় স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব।

বৈঠকের পর মন্ত্রিসভায় আরো রদবদল হচ্ছে কি না- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞা বলেন, ‘রিশাফল হয়ে যাওয়ার পর সংবাদ বিজ্ঞপ্তি পাবেন। আবার আমাদের ওয়েসবাইটেও দেখতে পাবেন।’


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print