সোমবার , ২৩ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » প্রধান খবর » ‘তওবা করে প্রকাশ্যে ক্ষমা চান বুকে টেনে নেব’

‘তওবা করে প্রকাশ্যে ক্ষমা চান বুকে টেনে নেব’

usa gaffarপ্রখ্যাত কলামিস্ট আবদুল গাফফার চৌধুরীকে প্রকাশ্য ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন নিউইয়র্কের আলেম-ওলামারা। আল্লাহর ৯৯ গুণবাচক নাম নিয়ে আবদুল গাফফার চৌধুরী যে বিরূপ মন্তব্য করেছেন তা প্রত্যাহারেরও দাবি জানান তারা।

৩ জুলাই বিকেলে আল্লাহর ৯৯ নাম, নারীর পর্দা ও আরবী ভাষা নিয়ে নিউইয়র্কে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে ‘বাংলাদেশ : অতীত, বর্তমান ও ভবিষ্যত’ শীর্ষক আলোচনা সভায় বিভিন্ন মন্তব্য করেন বিশিষ্ট কলাম লেখক আব্দুল গাফফার চৌধুরী।

এ মন্তব্য নিয়ে প্রবাসীদের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়।

এরই ধারাবাহিকতায় সোমবার জ্যাকসন হাইটসের কাবাব কিং রেস্টুরেন্টে এক সংবাদ সম্মেলনে আমেল-ওলামারা বলেন, রাসুল ও সাহাবীদের নিয়ে গাফফার চৌধুরীর বক্তব্য সারাবিশ্বের মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দিয়েছে।’

গাফফার চৌধুরী যে বক্তব্য দিয়েছেন তা প্রত্যাহার ও তওবাসহ ক্ষমা না চাইলে মসজিদে মসজিদে তার বিরুদ্ধে বিশেষ খুতবার হুমকি দেওয়া হয় সংবাদ সম্মেলনে।

স্থানীয় সময় বিকেল ৩টায় নিউইয়র্কেন বিভিন্ন মসজিদের ইমাম, আলেম-ওলামা ও ইসলামী এ্যাক্টিভিটসদের ব্যানারে আয়োজিত এ সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারের খতিব মাওলানা আবু জাফর বেগ।

তিনি বলেন, ‘আবদুল গাফফার চৌধুরী আল্লাহ, রাসুল ও ইসলামে নারীর পর্দা নিয়ে যে বক্তব্য রেখেছেন তা সরাসরি আল্লাহর কোরআন, ইসলাম ও মুসলমানদের অবমাননার শামিল। আল্লাহ, রাসুল এবং সাহাবীদের সম্পর্কে তার ওই মন্তব্যে সারাবিশ্বের মুসলমানরা আঘাত পেয়েছেন। এরপরও তিনি কী করে ফের নিজিকে মুসলাম দাবি করেন?’

এমন প্রশ্ন রেখে আবু জাফর বেগ আরও বলেন, ‘আপনি (গাফফার চৌধুরী) যদি নিজেকে মুসলাম দাবি করেন, তাহলে অবিলম্বে প্রকাশ্যে মসজিদে গিয়ে তওবাপূর্বক ক্ষমা প্রার্থনা করেন। এরপর ধর্মপ্রাণ প্রবাসীসহ সব আলেম সমাজ আপনাকে বুকে টেনে নেবে।’

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, আজকে আমরা সব আলেম সমাজ ঐক্যবদ্ধ হয়েছি কোনো রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে নয়; বরং ইসলামের প্রতি ভালোবাসা থেকেই আবদুল গাফফার চৌধুরীর বক্তব্যের প্রতিবাদ করছি। কেউ যদি মনে করে আমরা জামায়াত কিংবা কোনো রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে এ সব করছি, তাহলে ভুল করবেন। এটা বাংলাদেশ নয়; নিউইয়র্ক। এখানকার ধর্মভীরুরা রাজনৈতিক উদ্দেশ নিয়ে আসেন নাই।

জনগণের অর্থে আমেরিকায় এসে আগামীতে ইসলাম সম্পর্কে কেউ যেন নেতিবাচক মন্তব্য না করতে পারে সে ব্যাপারে সজাগ দৃষ্টি রাখতে সরকারের প্রতিও আহ্বান জানান প্রবাসী আলেম সমাজ।

অনুষ্ঠানে নিউইয়র্কের বিভিন্ন মসজিদের ইমাম, খতিব এবং আলেম-ওলামাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মাওলানা আব্দুর রশিদ, মাওলানা শাহ মোহাম্মদ সাইফুল্লাহ, মাওলানা রফিক আহমেদ রাফাইয়ি, মাওলানা ফায়েক উদ্দিন, মাওলানা জাকারিয়া মাহমুদ, মাওলানা মাহমুদুল ইসলাম, মাওলানা ইব্রাহীম খলিল, মাওলানা রহমত উল্লাহ মজিদি, মাওলানা আব্দুল মুকিত, ডাক্তার ওয়াহিদুর রহামন প্রমুখ।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print