শুক্রবার , ২০ জুলাই ২০১৮
মূলপাতা » ফুটবল » পালমিরার দু’টো সৌধ উড়িয়ে দিয়েছে আইএস

পালমিরার দু’টো সৌধ উড়িয়ে দিয়েছে আইএস

Palmyra-mausoleum-demolished-1ধর্মান্ধ উগ্র আইএস সন্ত্রাসীরা এবার সিরিয়ার ঐতিহাসিক পালমিরা শহর দখলের পর দু’টি মূল্যবান ঐতিহাসিক পবিত্র সৌধ উড়িয়ে দিয়েছে। এগুলো প্রখ্যাত ইউনেস্কো হেরিটেজ সাইট ছিল।

এর মধ্যে পাঁচ শ’ বছরের পুরোন একটি সৌধকে সন্ত্রাসীরা “ইসলাম বিরোধী” এবং “শিরক”-এর প্রতীক বলে মনে করত। এটা ছিল মোহাম্মদ বিন আলী নামে মহানবী (সঃ) এর চাচাতো ভাই ও জামাই খলিফা আলী (রাঃ) এর এক বংশধরের। পাঁচ শ’ বছরের পুরোন অপর সৌধটি ছিল একজন সুফী ধর্মীয় আলেম নিজার আবু বাহাদ্দিন এর।

সিরিয়ার প্রত্নতত্ব বিভাগের প্রধান মামুন আব্দুল করিম বলেন, সিরিয় সেনারা পালমিরা দখলে পর সেখান থেকে পুরাতন ও মূল্যবান অনেক নিদর্শন নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়া হয়েছে, যেখানে আইএষ এর পক্ষে পৌছানো সম্ভব নয়। তবে বিশাল স্মৃতিসৌধগুলি এত সহজে সরিয়ে নেয়া সম্ভব নয় বলে এখানে রয়ে গিয়েছিল।

তিনি বলেন, জনশুণ্য তাদমোরিয়ান মরুভূমির মাঝখানে অবস্থিত পালমিরা এক সময় পৃথিবীর পুরাকীর্তির প্রখ্যাত কেন্দ্রগুলির একটি ছিল। এটি রাজধানী দামেস্কের উত্তর-পূর্বে একটি মরুদ্যান।

পালমিরা সম্পর্কে ইউনেস্কো বলে, এটি বিশ্বের অত্যুৎকৃষ্ট মূল্যবান এক ঐতিহাসিক নগরী।

মার্চ মাসে আইএস সন্ত্রাসীরা খৃষ্টপূর্ব ১৩০০ সালে নির্মিত ইরাকের আসিরিয়ান আমলের ঐতিহাসিক নগরী নিমরুদ ধ্বংস করে দেয়। সেই সাথে অসংখ্য মহামুল্যবান ঐতিহাসিক পুরাকীর্তি এবং নিদর্শন ধ্বংস করে দেয়। এছাড়া তারা মসুল নগরীতে একটি মহামূল্যবান যাদুঘর সম্পূর্ণ ধ্বংস করে দেয়। তারা মসুলের বিখ্যাত পাবলিক লাইব্রেরিটিও ধ্বংস করে দেয়।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print