বৃহস্পতিবার , ২৬ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » অন্যান্য » ত্বকীর বাবার জেল-জরিমানা

ত্বকীর বাবার জেল-জরিমানা

rabbiচেক প্রত্যাখ্যাত হওয়ার মামলায় নারায়ণগঞ্জে নিহত তানভীর মুহাম্মদ ত্বকীর বাবা রফিউর রাব্বিকে এক বছরের কারাদণ্ড ও দুই কোটি ১০ লাখ টাকা জরিমানা করে রায় দিয়েছেন আদালত।
মামলার বাদী জালাল উদ্দিন আহম্মেদ নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ শামীম ওসমানের মামাশ্বশুর।
আজ বুধবার নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ (প্রথম) আদালতের বিচারক মামুনুর রশিদ রফিউর রাব্বির অনুপস্থিতিতে এ রায় দেন বলে জানান জেলার অতিরিক্ত সরকারী কৌঁসুলি (পিপি) আব্দুর রহিম।
মামলার বাদী প‌ক্ষের আইনজীবী মাসুদ-উর রউফ বলেন, ২০১২ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি রফিউর রাব্বি ব্যক্তিগত ঋণের বিপরীতে স্ট্যান্ডার্ড চাটার্ড ব্যাংকের পৃথক দুটি চেকে মামলার বাদী জালাল উদ্দিনকে ৭০ লাখ টাকা প্রদান করেন। পরবর্তীতে চেক দুটি এবি ব্যাংকে জমা দেওয়া হলে ব্যাংক হিসাব নম্বরে পর্যাপ্ত টাকা না থাকায় তা প্রত্যাখ্যাত হয়। এই ঘটনায় টাকা পরিশোধের জন্য মামলার বাদী জালাল উদ্দিন বিবাদী রফিউর রাব্বিকে উকিল নোটিশ প্রদান করেন। তারপরও টাকা পরিশোধ না করায় তিনি আদালতে ওই বছরের ২৫ এপ্রিল চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এনআই অ্যাক্টের ১৩৮ ধারায় ওই মামলাটি করেন। এরপর মামলাটি বিচারের জন্য জেলা ও দায়রা জজ আদালতে স্থানান্তর করা হয়। ওই মামলার রায়ে আদালত বিবাদী রফিউর রাব্বির বিরুদ্ধে রায় প্রদান করেন। রায়ে রফিউর রাব্বিকে এক বছরের কারাদণ্ড ও দুই কোটি ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন। এর মধ্যে এক কোটি ৪০ লাখ টাকা মামলার বাদীকে এবং বাকি ৭০ লাখ টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

মামলার বিবাদী রফিউর রাব্বির আইনজীবী মাহবুবুর রহমান মাসুম ও আওলাদ হোসেন জানান, ‘আমরা এই রায়ে সংক্ষুব্ধ। রফিউর রাব্বির ব্যবসায়ী অংশীদার শামীম কাদরী সাহেব রাব্বির কাছ থেকে ৩০ শতাংশ জমি কেনেন। সেই জমিটি শামীম কাদরী সাহেবের কাছ থেকে ব্যবসায়ী জালাল আহম্মেদ কিনে নেন। কিন্তু জালাল উদ্দিন জমিটি নামজারী করতে গেলে জনৈক দলিল উদ্দিন সহকারী কমিশনার (ভূমি) অফিসে নামজারী বাতিল চেয়ে মিস কেস দায়ের করেন। দলিল উদ্দিনের আবেদনের প্রে‌ক্ষিতে নামজারী বাতিল হয়ে যায়। পরবর্তীতে বিষয়টি মীমাংসার জন্য বৈঠক হয়। জালাল উদ্দিন আহমেদ ও রফিউর রাব্বির মধ্যকার সেই বৈঠকে বিবাদীপক্ষের বর্তমান আইনজীবী মাসুদ-উর রউফ সমঝোতার দায়িত্বপালন করেন। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় জমিটি রফিউর রাব্বিকে ফেরত দেবেন, বিনিময়ে রফিউর রাব্বি ৭০ লাখ টাকা জালাল উদ্দিনকে প্রদান করবেন। এ সময় রফিউর রাব্বি জামানত হিসেবে সমঝোতাকারী মাসুদ-উর রউফের কাছে দুটি তারিখ বিহীন খালি চেক জমা রাখেন।’
রফিউর রাব্বির দুই আইনজীবীর দাবি, রাফিউর রাব্বি জালাল উদ্দিন আহম্মেদকে টাকা পরিশোধ করার পরও তিনি জমি ফেরত দেননি। উল্টো মাসুদ উর রউফের কাছে রাখা জালাল উদ্দিন চেক দুটিতে নিজ হাতে টাকার অংক বসিয়ে ব্যাংকে জমা দেন। তা ব্যাংক থেকে প্রত্যাখ্যাত হওয়ায় রফিউর রাব্বির বিরুদ্ধে মামলা করেন। আদালতের এ রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করা হবে বলে জানান ওই দুই আইনজীবী।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print