শুক্রবার , ২৭ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » প্রধান খবর » মানবপাচার রোধে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি

মানবপাচার রোধে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি

pm-parliamentসম্প্রতি অবৈধভাবে মানবপাচারের বিষয়টি আশংকাজনক হারে বৃদ্ধি পাওয়ায় মানবপাচারকারীদের বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি গ্রহণ করতে সব আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মানবপাচারের বিরুদ্ধে সরকার কঠোর অবস্থানে রয়েছে বলেও জানান তিনি।

বুধবার জাতীয় সংসদে টেবিলে উত্থাপিত সরকার দলীয় সদস্য শরীফ আহমেদের তারকা চিহ্নত প্রশ্ন-২৯ এর জবাবে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘মানবপাচার প্রতিরোধে প্রতি জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে কাউন্টার ট্রাফিকিং কমিটি গঠন করা হয়েছে। মানবপাচার প্রতিরোধে ও দমনের লক্ষ্যে ২০১২ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি মানবপাচার প্রতিরোধ ও দমন আইন করা হয়েছে। আইনে মানবপাচারের জন্য সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড ও যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘মানবপাচার একটি আন্তর্জাতিক সমস্যা এবং মানব পাচারকারীরা আন্তর্জাতিক চক্রের সঙ্গে জড়িত। এজন্য আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে আরো উন্নতত ও অত্যাধুনিক ট্রেনিং প্রদান করার লক্ষ্যে জাতীয় পরিকল্পনা ২০১২-১৪ প্রণীত ও বাস্তবায়িত হয়েছে। এছাড়াও মানবপাচার প্রতিরোধে জাতীয় কর্ম পরিকল্পনা ২০১৫-১৭ এর খসড়া প্রণয়ন করা হয়েছে যা শিগগিরই প্রকাশিত হবে।’

এছাড়াও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে মানবপাচার প্রতিরোধ সংক্রান্ত কমিটির সভা প্রতি মাসে অনুষ্ঠিত হয়। মানবপাচার বিশেষ করে নারী ও শিশু পাচার সংক্রান্ত বিচারাধীন মামলার অগ্রগতি মনিটর করার বিষয় কমিটিতে পর্যালোচনা হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সম্প্রতি বাংলাদেশ হতে সমুদ্র পথে অবৈধভাবে মানবপাচার উদ্বেগজনক হারে বৃদ্ধি পাওয়ায় কোস্ট গার্ডের বর্তমান সময়ের কার্যক্রম আরও বিস্তৃত হয়েছে। কোস্ট গার্ডের টহল বৃদ্ধি করা হয়েছে। এলক্ষ্যে কোস্ট গার্ডের একটি পেট্রোল ক্রাফট এবং একটি অত্যাধুনিক হাই স্পিড মেটাল সার্ক বোর্ড সার্বক্ষণিকভাবে চট্টগ্রাম ও গহিরা অঞ্চলে টহলে নিয়োজিত রয়েছে। টহল কার্যক্রম আরো বৃদ্ধির জন্য একটি করে হাই স্পিড মেটাল সার্ক বোট কুতুবদিয়া এবং সাঙ্গু স্টেশনে মোতায়েন করা হয়েছে। এটহল কার্যক্রম আরো বৃদ্ধির জন্য একটি করে হাই স্পিড মেটাল সার্ক বোট কুতুবদিয়া এবং সাঙ্গু স্টেশনে মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া শাহপুরী, টেকনাফ এবং সেন্টমার্টিন্স উপকূলীয় অঞ্চলে ২টি অত্যাধুনিক হাই স্পিড মেটাল সার্ক বোট দিয়ে টহল করা হচ্ছে।’

বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড সমুদ্র পথে অবৈধভাবে বিদেশ গমনকালে আজ পর্যন্ত ১ হাজার ৭৩৬ জন বিদেশগামী নাগরিককে সাগর থেকে আটক করেছে বলে জানান তিনি।

তিনি জানান, সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী বিজিবির ঐকান্তিক তৎপরতায় ২০১৪ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৫ সালের মে পর্যন্ত ১৫০০ নাগরিককে উদ্ধার করা হয়েছে। এরমধ্যে নারী ১ হাজার ৯৪ জন, শিশু ৪০৬ জন। এতে ২০১৪ সালে নারী উদ্ধার করা হয় ৮৫২ জন, শিশু ৩১৭ জন। এছাড়া ২০১৫ সালে নারী উদ্ধার করা হয় ২৪২ জন এবং শিশু উদ্ধার করা হয় ৪০৬ জন। এই সময়ে ২৭ জন পাচারকারীকে আটক করা হয়। একই সময়ে মানবপাচারকারীদের বিরুদ্ধে ৪৪৮টি মামলা করা হয়েছে।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print