বৃহস্পতিবার , ১৯ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » জাতীয় » হঠাৎ ৪ ট্রেন বন্ধ, উত্তরাঞ্চলে চরম যাত্রী দুর্ভোগ

হঠাৎ ৪ ট্রেন বন্ধ, উত্তরাঞ্চলে চরম যাত্রী দুর্ভোগ

Train-East-zoneবাংলাদেশ রেলওয়ের পশ্চিমাঞ্চলের লালমনিরহাট-সান্তাহার সেকশনে চলাচলকারী গুরুত্বপূর্ণ চারটি যাত্রীবাহী মেইল ও লোকাল ট্রেন হঠাৎ করেই বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। ফলে ওই রুটে চলাচলকারী উত্তরাঞ্চলের ৮ জেলার হাজারো যাত্রী পড়েছে চরম দুর্ভোগে।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ গত ১৩ জুন থেকে ১৯নং মেইল ও ২০নং ডাউন ট্রেন দু’টি এবং ১৬ জুন থেকে ৭নং মেইল ও ৮নং ডাউন ট্রেন দু’টি চলাচল বন্ধ করে দেয়।

এদিকে যাত্রীরা চরম ভোগান্তিতে পড়লেও কবে নাগাদ ট্রেনগুলো চালু হবে তা নিশ্চিত করে বলতে পারছেনা কর্তৃপক্ষ।

লালমনিরহাট রেলস্টেশন মাস্টার বেলাল হোসেন জানান, ট্রেনের চালক ও জনবল সঙ্কট থাকায় ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে ট্রেন দু’টির চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

অপরদিকে, লালমনিরহাট রেলওয়ে লোকো সেকশন সূত্রে জানা যায়, এ সেকশনে চালক সহকারী চালকসহ অন্যান্য সৃষ্ট পদের সংখ্যা ৬৪ জন। তার মধ্যে চালকেরই (এলএম) এর পদ ১৮ জন। কিন্তু ১৪ জন চালকের পদ এখন শূন্য। কমর্রত রয়েছেন মাত্র ৪ জন। পদগুলো অবিলম্বে পূরণ করা না হলে ট্রেন চলাচল ব্যবস্থা আরও বিপন্ন হয়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

বাংলাদেশের রেলওয়ের পশ্চিমাঞ্চলের লালমনিরহাট-সান্তাহার সেকশনে চলাচলকারী অতিগুরুত্বপূর্ণ চারটি মেইল লোকাল ট্রেন যার নং ২০ নিম্নগামী, ১৯ ঊর্ধ্বগামী, ৭নং ঊর্ধ্বগামী এবং ৮নং নিম্নগামী যাত্রীবাহী ট্রেনগুলো লালমনিরহাট-সান্তাহার স্টেশনের মধ্যে চলাচল করছিল। ট্রেনগুলোর মধ্যে যাত্রীবাহী ২০নং লোকাল ট্রেনটি লালমনিরহাট থেকে সকাল সাড়ে ৮টায় সান্তাহার অভিমুখে ছেড়ে আসতো এবং ১৯নং মেইল ট্রেনটি সান্তাহার স্টেশন থেকে লালমনিরহাট অভিমুখে ছেড়ে আসতো বিকেল ৪টায়।

এছাড়া ৭নং মেইল ট্রেনটি সান্তাহার স্টেশন থেকে পঞ্চগড় অভিমুখে ছেড়ে আসতো সকাল সাড়ে ৯টায় এবং ৮নং ডাউন ট্রেনটি পঞ্চগড় স্টেশন থেকে সান্তাহার অভিমুখে ছেড়ে আসতো সন্ধা সাড়ে ৮টায়। ওই দুই জোড়া মেইল ও লোকাল ট্রেনে রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের পঞ্চগড়, নীলফামারী, দিনাজপুর, রংপুর, গাইবান্ধা, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম, বগুড়া ও নাটোর জেলাসহ পার্শ্ববর্তী জেলার লাখ লাখ শ্রমিক মেহনতি ও সাধারণ যাত্রীরা প্রতিদিন এক স্টেশন থেকে অপর স্টেশনে নিরাপদে যাতায়াত ও মালামাল পরিবহন করত।

শুধু তাই নয়, স্কুল-কলেজের ছাত্রছাত্রী ও বিভিন্ন জেলার অফিস আদালতে এবং ব্যবসা বাণিজ্যের উদ্দেশ্যে যাতায়াতের সুবিধা ও নিরাপদ মাধ্যম ছিল ট্রেনগুলো। কিন্তু ট্রেন ৪টি হঠা বন্ধ করে দেয়ায় চরম বেকায়দায় পড়েছে যাত্রীরা।

এ ব্যাপারে লালমনিরহাট রেলওয়ে বিভাগীয় ম্যানেজার নাজমুল ইসলাম বলেন, ‘চালক সঙ্কট থাকায় আপাতত ট্রেনগুলো বন্ধ রাখা হয়েছে।’ তবে কবে নাগাত আবার চালু হবে তার কোনো উত্তর দিতে পারেন নি এই কর্মকর্তা।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print