রবিবার , ২২ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » ক্রিকেট » প্রতিশোধের জয়ে উন্মাতাল দেশ

প্রতিশোধের জয়ে উন্মাতাল দেশ

1434659270ভারতের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ‘ওডিআই’ সিরিজের প্রথম খেলায় জয়লাভ করায় বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে অভিনন্দন জানিয়ে রাজধানীসহ সারাদেশে বিজয় উল্লাস করেছেন দলমত নির্বিশেষে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার সর্বস্তরের মানুষ। খেলোয়াড়দের কথায় ঝাঁজ না থাকলেও বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সমর্থকরা যে বিশ্বকাপে হারের প্রতিশোধ দেখতেই শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বসেছিল, তা স্পষ্ট বোঝা যায় উল্লাসের ধরন দেখেই। গতকাল বৃহস্পতিবার সাকিব আল হাসান যখন শেষ উইকেটটি নিয়ে ভারতের ইনিংস মুড়িয়ে দিলেন, তখন এক রকম পাগলপারা হয়ে ওঠে স্টেডিয়াম ভর্তি দর্শক। মুহূর্তের মধ্যেই বিজয়ের এ উল্লাস স্টেডিয়াম থেকে ছড়িয়ে যায় রাজধানীসহ সারাদেশের পথ-প্রান্তরে।

টাইগারদের এ সাফল্যে সবচেয়ে বড় বিজয় মিছিলটি বের হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায়। রাতের নিস্তব্ধতা ভেঙে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হল থেকে মিছিলের পর মিছিল বেরিয়ে টিএসসিতে জড়ো হয়ে মেতে ওঠে জয়োল্লাসে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এ সময় রঙ মেখে ও নেচে-গেয়ে এ বিজয় উদযাপন করে। এছাড়া নগরীতে সহস াধিক বিজয় মিছিল করেছে রাজধানীবাসী। দেশের সকল বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায়সহ শহর থেকে গ্রাম পর্যন্ত সকল প্রান্তরেই বিজয় উত্সব পালিত হয়েছে। ফেইসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও এখন আলোচনা মূল বিষয়বস্তু টাইগারদের এই জয় নিয়ে।
বৃষ্টিবিঘ্নিত টেস্ট ড্র হওয়ার পর বৃহস্পতিবার মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রথম টস জিতে ব্যাট করতে নেমে দুই বল বাকি থাকতে ৩০৭ রানে অলআউট হয়ে যায় বাংলাদেশ। ভারতের বিপক্ষে এটাই তাদের সর্বোচ্চ রান। আর তাতে ৭৯ রানে জয় পায় টাইগাররা। এ জয়ে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেছে বাংলাদেশ।
প্রসঙ্গত, একদিনের খেলায় এর আগে ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশ সর্বশেষ মুখোমুখি হয়েছিল বিশ্বকাপে। বিতর্কিত আম্পায়ারিংয়ের কারণে আলোচিত কোয়ার্টার ফাইনালে স্বপ্নভঙ্গ হয়েছিল টাইগারদের। বিশ্বকাপে সেই হার      তাতিয়ে রাখার জন্য যথেষ্ট ছিল বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের। তবে সেই সঙ্গে যোগ হয় চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলার স্বপ্ন। ভারতকে হারিয়ে এখন একদিনের খেলায় র্যাংকিংয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে টপকে সপ্তম অবস্থানে উঠে এল বাংলাদেশ, যা চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলার স্বপ্ন উজ্জ্বল করল।
প্রথম রোজার আগে ভারতের বিপক্ষে অবিস্মরণীয় জয়ের পর দেশজুড়ে যে উচ্ছ্বাসের জোয়ার সেই জোয়ারে এখনো ভাসছে বাংলাদেশ। গতকাল রাতে বিজয় উত্সবে সর্বস্তরের মানুষ শরিক হন। মধ্যরাতে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় জাতীয় পতাকা ও বিভিন্ন ব্যানার ফেস্টুন প্রদর্শন করে নেচে-গেয়ে এ আনন্দ মিছিল করে লাখো মানুষ। ক্রিকেট দলকে অভিনন্দন জানিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে যে আনন্দ মিছিল বের হয় তা সবার চোখে পড়ার মতো। মধুর ক্যান্টিন থেকে ছাত্রলীগের নেতৃত্বে মিছিল বের হয়। মিছিলে যোগ দেয় বিভিন্ন হল থেকে আসা ছাত্রলীগের সহস্রাধিক নেতাকর্মী।
এছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হলের শিক্ষার্থীরাও স্বতঃস্ফূর্তভাবে খন্ড খন্ড মিছিল বের করেন। এ সময় মিছিলে অংশ নেয়া সবার মাথায় ছিল জাতীয় পতাকা, সাবাস বাংলাদেশ সংবলিত ব্যান্ড। মিছিলগুলো ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে টিএসসির রাজু ভাস্কর্যের সামনে এসে সমাবেশে মিলিত হয়। এ সময় নেচে-গেয়ে আনন্দ মিছিল করে মিছিলে অংশ নেয়া সবাই। সবমিলিয়ে আনন্দঘন পরিবেশ সৃষ্টি হয় বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায়।
রাজধানীর ফার্মগেট, ধানমন্ডি, মতিঝিল, মিরপুর, পুরান ঢাকা, গুলিস্তান, মোহাম্মদপুর, উত্তরা, গুলশান,  বনানী, যাত্রাবাড়ি, সায়েদাবাদ, গাবতলীসহ বিভিন্ন এলাকায় অলি-গলিতে বিভিন্ন স্কুল-কলেজের ছাত্রছাত্রীরা ছাড়াও বিভিন্ন বয়সের মানুষ এ রকম আনন্দ মিছিল করে বাংলাদেশ দলের বিজয় উদযাপন করে।

এদিকে রাতে বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ এক বিজয় মিছিল বের করে। এ সময়ে বিপুলসংখ্যক সাধারণ মানুষও এ আনন্দ মিছিলে শরিক হন। আনন্দ মিছিল করে স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও যুবলীগ। অন্যদিকে রাজধানীর কুড়িল বিশ্বরোড এলাকায় আনন্দ মিছিল বের করে ভাটারা আওয়ামী লীগ। এতে সর্বস্তরের মানুষ যোগ দেয়। এছাড়া বিজয় উল্লাস উদযাপনে জাতীয় প্রেস ক্লাব থেকে স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগ এবং ফার্মগেট থেকে স্থানীয় যুবলীগ বের করে আনন্দ মিছিল।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print