রবিবার , ২২ জুলাই ২০১৮
মূলপাতা » প্রধান খবর » নাইকো মামলা বাতিলের রুল শুনানি শেষ, রায় কাল

নাইকো মামলা বাতিলের রুল শুনানি শেষ, রায় কাল

14.-khaledaনাইকো দুর্নীতি মামলা বাতিলের জন্য বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার করা আবেদনের ওপর হাইকোর্টের দেয়া রলের শুনানি শেষ হয়েছে। এর রায় দেয়া হবে আগামীকাল বৃহস্পতিবার।

বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা মামলাটির রুলের শুনানি শেষ হয়েছে আজ বুধবার। সুপ্রিমকোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের কজলিষ্ট থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

বিচারপতি মো. নূরুজ্জামান ননীর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের একটি ডিভিশন বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করবেন বলে জানা গেছে।

বিষয়টি সাংবাদিকদের জানিয়েছেন খালেদার আইনজীবী ব্যারিস্টার রাগিব রউফ চৌধুরী। এর আগে গত ২৮ মে উভয় পক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে এ মামলার রায় ঘোষণা করার জন্য অপেক্ষমান রাখে আদালত।

গত ৮ এপ্রিল খালেদার চারটি মামলা শুনানির জন্য হাইকোর্টের নতুন এই বেঞ্চ নির্ধারণ করেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা।

এর আগে বিচারপতি মঈনুল ইসলাম চৌধুরি ও বিচারপতি জেবিএম হাসানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে এই মামলাগুলোর শুনানি হয়েছিল। এরপর খালেদার আইনজীবীরা অনাস্থা আবেদন করলে প্রধান বিচারপতি নতুন করে বেঞ্চ গঠন করে দেন।

খালেদার মামলা স্থগিত করে হাইকোর্টের দেয়া রুলের শুনানির জন্য দুদকের আবেদনের শুনানি হয়। দুদকের আবেদনে খালেদার বিরুদ্ধে মামলাটি সচলের প্রার্থনা করা হয়েছে।
ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে কানাডার কোম্পানি নাইকোর সঙ্গে অস্বচ্ছ চুক্তির করে রাষ্ট্রের প্রায় ১৩ হাজার ৭৭৭ কোটি টাকা ক্ষতির অভিযোগে খালেদা জিয়াসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে এ মামলা দায়ের করে দুদক।

২০০৭ সালের ৯ ডিসেম্বর দুদকের তৎকালীন সহকারী পরিচালক (বর্তমানে) উপ-পরিচালক মুহাম্মদ মাহবুবুল আলম বাদি হয়ে রাজধানীর তেজগাঁও থানায় মামলাটি করেন।

দুদকের তৎকালীন সহকারী পরিচালক (বর্তমানে উপ-পরিচালক) এস এম সাহিদুর রহমান তদন্ত করে ২০০৮ সালের ৫ মে এ মামলার অভিযোগপত্র দাখিল করেন। অভিযোগপত্রে খালেদা জিয়াসহ ১১ জনকে আসামি করা হয়।

পরে এ মামলার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে আবেদন করেন খালেদা জিয়া। ২০০৮ সালের ১৫ জুলাই নাইকো দুর্নীতি মামলার কার্যক্রম দুই মাসের জন্য স্থগিত করা হয়। পরবর্তী সময়ে স্থগিতাদেশের মেয়াদ কয়েক দফায় বাড়ানো হয়।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print