শনিবার , ২১ এপ্রিল ২০১৮
মূলপাতা » টেনিস » রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক এখন চান্দিনার জামাই

রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক এখন চান্দিনার জামাই

অবশেষে সাতষট্টি বছর বয়সে শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে জীবনসঙ্গী হিসেবে হনুফা আক্তার রিক্তাকে কবুল করলেন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক। বিয়ের দেনমোহর ছিল ৫ লাখ ১ টাকা। আসরেই তা পরিশোধ করেন মন্ত্রী।

কাজী সিদ্দিকুর রহমান মন্ত্রীর বিয়ে পড়ান। মন্ত্রীর ঘনিষ্টজন হিসেবে পরিচিত হাসেম চৌধুরী উকিল বাবার দায়িত্ব পালন করেন।

আর এ বিয়ের সাক্ষী ছিলেন- কিবরিয়া মজুমদার, খোকন রেজা ও ফজলুল করিম। এদের মধ্যে কিবরিয়া বর এবং অন্য দুজন কনে পক্ষের।

এর আগে বিকেল ৩টার দিকে প্রায় সাতশ বরযাত্রী নিয়ে কনের বাড়িতে পৌঁছান বর।

অভ্যর্থনা জানাতে আগেই প্রস্তুত ছিল সব। রান্না-বান্না থেকে শুরু করে কনের সাজসজ্জাও শেষ হয়েছে জুমার নামাজের আগেই। কথা ছিল নামাজের পর বর আসবেন। কথা রেখেছেন বর মন্ত্রী মুজিবুল হক।

মন্ত্রীর বিয়ে বলে কথা। শুধু বরযাত্রীদের আপ্যায়নের জন্যই নিয়োগ করা হয় ৮০ জন স্বেচ্ছাসেবক। সবাই কন্যার নিটক আত্মীয়।
বরপক্ষের ৭০০ এবং কনেপক্ষের প্রায় ১৫ শ’ অতিথিকে আপ্যায়নের ব্যবস্থা করার কথা থাকলেও সে সংখ্যা পাঁচ হাজারের কম হবে না।

দুপুরের খাবারের তালিকায় ছিল- খাসির কাচ্চি, মুরগীর রোস্ট, কোমল পানীয়, মিস্টান্ন, জর্দা এবং বোরহানী।

নানা খাবারের তালিকা থাকলেও বর মুজিবুল হকের জন্য ছিল বিশেষ ব্যবস্থা। তাঁর জন্য রাখা হয়েছিলো আস্ত খাসি।

এর আগে, সকাল সাড়ে ১১টার দিকে সাদা-লাল রংয়ের কাপড় এবং ফুল দিয়ে সাজানো গাড়িতে করে বরযাত্রা বের হয়। এসময় বর রেলমন্ত্রীর পরনে ছিল গোলাপি রংয়ের শেরওয়ানী এবং মাথায় ছিল সোনালী রংয়ের পাগড়ি।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print