শুক্রবার , ২০ জুলাই ২০১৮
মূলপাতা » প্রধান খবর » এফবিসিসিআইয়ের নেতৃত্বে মাতলুব মহিউদ্দিন মাহবুবুল

এফবিসিসিআইয়ের নেতৃত্বে মাতলুব মহিউদ্দিন মাহবুবুল

fbbciরাজশাহী চেম্বারের মনোনীত পরিচালক ও নিটল নিলয় গ্রুপের চেয়ারম্যান আব্দুল মাতলুব আহমাদ ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন দি ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার্স অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি’র (এফবিসিসিআই) সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন। একই সঙ্গে বিজিএমইএ থেকে মনোনীত পরিচালক মো. সফিউল ইসলাম প্রথম সহ-সভাপতি এবং চট্টগ্রাম চেম্বার থেকে মনোনীত মাহবুবুল আলমকে সহ-সভাপতি পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষণা করেছে নির্বাচনী বোর্ড।
সোমবার বিকেলে এফবিসিসিআই নির্বাচনী বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আলী আশরাফ নবনির্বাচিত পরিচালকদের উপস্থিতিতে সভাপতি, সহ-সভাপতির নাম ঘোষণা করেন।

এর আগে গত ২৩ মে সরাসরি ভোটে চেম্বার গ্রুপ থেকে ১৬ জন এবং অ্যাসোসিয়েশন গ্রুপ থেকে ১৬ জন করে মোট ৩২ জন পরিচালক নির্বাচিত হয়েছে। ২৪ মে নির্বাচনী বোর্ড নির্বাচিত ৩২ জন পরিচালকের নাম প্রকাশ করেন। একই সঙ্গে চেম্বার গ্রুপ থেকে ১০ জন এবং অ্যাসোসিয়েশন গ্রুপ থেকে ১০ জন মনোনীত পরিচালকের নাম প্রকাশ করেন।

অধ্যাপক আলী আশরাফ বলেন, নিয়মানুযায়ী পরিচালক নির্বাচনের পর পেসিডেন্ট পদের জন্য নির্ধারিত ফি দিয়ে মনোনয়ন ফরম কিনতে হয়। সেই ফরমে একজন পরিচালকের সমর্থনসহ নির্বাচনী বোর্ডের নিকট জমা দিতে হয়। যদি একাধিক প্রতিদ্বন্দ্বী থাকে সেখানে পরিচালকের ভোটে সভাপতি, সহ-সভাপতি নির্বাচিত হয়। আর যদি একাধিক প্রার্থী না পাওয়া যায় তাহলে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এসব পদের প্রার্থীরা নির্বাচিত হয়। আমরা নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সভাপতি প্রার্থী হিসেবে একজন পরিচালকের সমর্থনসহ রাজশাহী চেম্বারের মনোনীত পরিচালক আব্দুল মাতলুব আহমাদের মনোনয়ন পেয়েছি। এ পদে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে অন্য কারো আবেদন জমা পড়েনি তাই নিয়মানুযায়ী তিনি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন বলে বেসরকারিভাবে ঘোষণা করছি। একইসঙ্গে বিজিএমইএ’র মনোনীত পরিচালক সফিউল ইসলাম প্রথম সহ-সভাপতি হিসেবে এবং চট্টগ্রাম চেম্বারের মনোনীত পরিচালক মাহবুবুর রহমান সহ-সভাপতি পদের জন্য আবেদন জমা পড়েছে। এ পদেও একাধিক আবেদন না পড়ায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় তারা নির্বাচিত হয়েছেন।

নবনির্বাচিত সভাপতি আব্দুল মাতলুব আহমাদ বলেন, ‘আমি সারা দেশে ঘুরেছি । দেশের ব্যবসায়ীদের বিভিন্ন সমস্যার কথা জেনেছি। আমি ব্যবসায়ীদের জন্য কাজ করবো।’

তিনি বলেন, ‘আমরা একটা পজেটিভ ইলেকশন করেছি। যারা ইলেকটেড হতে পেরেছি এবং যারা হতে পারেনি আমরা সবাই ব্যবসায়ী। সকলে একসঙ্গে কাজ করবো। আগেও ই্উনাইটেড ছিলাম, এখনো আছি, ভবিষ্যতেও থাকবো।’

নবনির্বাচিত সহ-সভাপতি সফিউল ইসলাম বলেন, ‘আগামী দিনে ইলেকশন সিস্টেম পরিবর্তনে কাজ করবো। বর্তমান প্রথম সহ-সভাপতি মনোয়ারা হাকিম আলী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে গণতন্ত্র টিকিয়ে রেখেছেন। আমরা সকল ব্যবসায়ীরা ব্যবসায়ীদের স্বার্থে একসঙ্গে কাজ করবো।’

আরেক সহ-সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, ‘এফবিসিসিআইকে সম্পূর্ণ মিনি পার্লামেন্ট হিসেবে গড়ে তুলবো। দেশের অর্থনীতিকে ত্বরান্বিত করতে একসঙ্গে কাজ করবো।’

নির্বাচন বোর্ডের ঘোষণার পর নবনির্বাচিত সভাপতি ও সহ-সভাপতিদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেয় এফবিসিসিআই সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদ এবং প্রথম সহ-সভাপতি মনোয়ারা হাকিম আলীসহ কর্মকর্তারা।


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print