রবিবার , ২২ জুলাই ২০১৮
মূলপাতা » বেসরকারি » সময় টিভির উপস্থাককে ছাত্রলীগ কর্মীর অশ্লীল অফার!

সময় টিভির উপস্থাককে ছাত্রলীগ কর্মীর অশ্লীল অফার!

সম্প্রতি কার্জন হল এলাকায় ছাত্রীকে নাজেহালের ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই এবার সময় টিভির এক সংবাদ পাঠিকাকে কার্জন হল এলাকায় অশ্লীলতার অফার জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের এক নেতা। তার নাম মোশারফ রিমন। তিনি ঢাবির অমর একুশে হল শাখা ছাত্রলীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক।

সংবাদ পাঠিকা ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী পারমিতা হিম জানান, মোশারফ তাকে অশ্লীলতার হুমকি দিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘মোশারফ আমার ফেবু ওয়ালে যেয়ে অশ্লীলতার অফার করে একটি স্ট্যাটাস শেয়ার করে’। সে লিখেছে, ‘তুমি এত্তগুলা সুইট। এত সুন্দর কইরা কথা কও না। আমিতো পুরাই ক্রাশ। একটু কার্জন হলে আসোনা। যে অধিকারের জন্য এত চিল্লাচিল্লি করতাছ, তার না হয় একটু প্রাক্টিক্যাল হোক। আপত্তি থাকারতো কথানা, তাইনা’।

মোশারফের এ স্ট্যাটাসটিতে যেসব কমেন্ট পড়েছে সেগুলোও উস্কানিমূলক। পারমিতা হিমও এনিয়ে তার ফেসবুক ওয়ালে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। তিনি লিখেছেন, ‘আমাকে থ্রেট করে স্ট্যাটাস দিয়েছে মোশারফ রিমন নামের এই ছেলে। সে নাকি অমর একুশে হল শাখা ছাত্রলেগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক। চিনে নিন সোনার ছেলেদের। আমার ওয়ালেই সেটা আছে। আর কমেন্টগুলো পড়তে ভুলবেন না।’

 

 

পারমিতার ফেবু টাইমলাইনে দেখা যায়, এর আগে পারমিতা কার্জন হল এলাকায় মামা-ভাগ্নীর মার খাওয়ার ঘটনায় প্রতিবাদ করে তার ফেবুতে লিখেন, ‘নাহ ভুল করবেন না। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় জামায়াত শিবিরের আস্তানা নয়। তবে এটি এখন আরেকটি স্বনামধন্য ‘মৌলবাদী’ সংগঠনের আস্তানা। তাই, এখানে ছেলে মেয়ে পাশাপাশি বসলে সমস্যা আছে। প্রেম করলে তো আরো সমস্যা ভাই। ছবি তোলা যাবে না। মামার সাথে হোক, চাচার সাথে হোক আর ভাইয়ের সাথে হোক, কোনো পুরুষ যেন আপনার সঙ্গী না হয়’।

পারমিতা আরও লিখেছেন, ‘মেয়েরা কিন্তু বোরকা এবং লম্বা লম্বা সালোয়ার কামিজ ছাড়া ওখানে (কার্জন হল) ভুলেও যাবেন না। প্রেম করা, ছবি তোলা, নির্দিষ্ট পোশাকের বাইরে পোশাক পড়া–এসব প্রতিরোধে কিন্তু ওদের একটা লড়াকু বাহিনী আছে। আহহ, ভুল বুঝবেন না। জামায়াত শিবিরের সাথে ওদের অনেক পার্থক্য। কারণ মাঝে মাঝে চড় থাপ্পরের পাশাপাশি ওরা আপনার মানিব্যাগ আর মোবাইলটা নিতেও ভুলবে না’।

পারমিতা হিম রাত ৮ টায় তার ফেবুতে লিখেন, মোশারফ তাকে অশ্লীলতার থ্রেট করেছে।

 


আপনার মতামত

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*


Email
Print